ক্যাম্পাস

ক্যাম্পাস


বন্ধু, মিস করব ভীষণ!

প্রকাশ: ২৮ জানুয়ারি ২০২০      

তাসনিম তিশা

প্রথম যখন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে পা রেখেছিলাম তখন পরিচয় ছিল একটাই- আমি বাংলা বিভাগের একজন ছাত্রী। এরপর ঘড়ির সেকেন্ডের কাঁটা আর মিনিটের কাঁটার লুকোচুরি খেলায় আসতে আসতে দিন গেল, সপ্তাহ গেল, একসময় মাসও চলে গেল, কেটে গেল বছর। তৈরি হলো রক্তের সম্পর্কের বাইরে অন্য একটি পরিবার। সব মিলিয়ে আমাদের ৮৭ জনের একটি দল। প্রত্যেকে সাদা টি-শার্ট পরে হাসি-আড্ডায় মেতে উঠেছে; আর একে অন্যের টি-শার্টে মনের কোণে জমে থাকা অগোছালো কথাগুলো রঙিন কালি দিয়ে লিখতে ব্যস্ত। এক বছর একসঙ্গে কাটানো হাজারো স্মৃতি, অভিজ্ঞতা, মন্তব্য লিখে স্মরণীয় করে রাখতে ব্যস্ত সবাই। নিমেষেই ধবধবে সাদা টি-শার্ট ভরে উঠেছে বন্ধুদের কলমের আঁচড়ে। কেউ লিখেছে ভালো থেকো বন্ধু, আবার কেউ লিখেছে ঘুমবাজ, ব্যাকবেঞ্চার, নিরীহ প্রাণী, বড় ভাইদের ত্রাস- এভাবে এক বছরের নানা অব্যক্ত কথা লিখে সাদা টি-শার্টটি ভরিয়ে ফেলেছে। এরপর শুরু হয় আবির খেলা।

সাউন্ড বক্সের গানের তালে আবিরের আলতো ছোঁয়ায় নিজেদের রাঙাতে ব্যস্ত সবাই। এদিন নাচে-গানে, আড্ডা আর হৈ-হুল্লোড়ে দিনভর মেতে ওঠে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ৩৩ ব্যাচের শিক্ষার্থীরা। এভাবে কেটে গেল দিনটি। দেখতে দেখতে স্বপ্নের মতো একটি বছরের সমাপ্তি ঘটল। আমরা এখন একসঙ্গে হাসি, একসঙ্গে কাঁদি, ঝগড়া করি আবার মিলেও যাই, প্রেম করি। আমরাই তো ঘুরেফিরে আসি, আবার চলেও যাই, তবে গল্পগুলো থেকে যায়। এই তো আর তিন বছর। এরপর আমরা চলে যাব। আস্তে আস্তে কমতে থাকবে যোগাযোগ, ঘন ঘন দেখা হবে না, প্রথম প্রথম মাসে একবার, এরপর হয়তো বছরে একবার। মাঝে মাঝে আকাশে হঠাৎ যখন মেঘ করবে, প্রবল বৃষ্টিতে ভেসে যাবে চারপাশ। জানালার পাশে বৃষ্টি দেখতে দেখতে মনে পড়ে যাবে এই প্রিয় মুখগুলো।। া