ক্যাম্পাস

ক্যাম্পাস


৪ স্বপ্নবাজ তরুণ

প্রকাশ: ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০      

সানজিদা ইমু

গণপরিবহন ব্যবস্থায় নিরাপত্তাহীনতা ও বিভিন্ন অযাচিত দুর্ঘটনাসংবলিত সংশয় নিয়ে প্রতিনিয়ত উদ্বিগ্ন নারীরা। প্রচলিত রাইড শেয়ারিং পরিষেবাগুলো ব্যয়বহুল হওয়ায় মধ্যবিত্ত নারীরা এসব পরিষেবা থেকে বঞ্চিত। ফলে শিক্ষা ও কর্মক্ষেত্রে যাতায়াত সমস্যার কোনো সমাধান পাচ্ছেন না তারা। নারীদের নিরাপদ ও আরামপ্রদ যাত্রা স্বল্পমূল্যে নিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির একদল শিক্ষার্থী গড়ে তুলেছে হপইন অভিহিত রাইড শেয়ারিং সার্ভিস।

হপইন মূলত একটি অ্যাপভিত্তিক কার শেয়ারিং পরিষেবা, যা একই যাত্রামুখী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের একটি গাড়ি শেয়ারের সুযোগ করে দেয়। সর্বাধিক চারজন লোক একটি গাড়ি শেয়ার করতে পারেন। মধ্যবিত্ত শিক্ষার্থী ও চাকরিজীবীরা স্বল্পমূল্যে প্রিমিয়াম পরিবহন সেবার সুযোগ পাবেন হপইনের সার্ভিসে।

মহানগরের পরিবহন ব্যবস্থায় বিড়ম্বনার শিকার নারীদের পাশাপাশি পুরুষদের সংখ্যাও কম নয়। পরিবহনগুলোয় আরোহীদের উপচেপড়া ভিড়, ভাড়ার উচ্চমূল্য, জীবনের ঝুঁকি কমছে না কিছুতেই। রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন ঝরছে প্রাণ। অদক্ষ চালক, ফিটনেসবিহীন গাড়ি, চালকের অসাবধানতা ও প্রতিযোগী মনোভাব ইত্যাদি দুর্ঘটনাগুলোর মূল কারণ। এ ক্ষেত্রে বর্তমান রাইড শেয়ারিং সেবাগুলো স্বস্তিদায়ক হলেও ভাড়া বলতে গেলে আকাশচুম্বী। মধ্যবিত্তদের নিত্যদিনের জন্য এ ধরনের সেবা ব্যবহার প্রায় অসম্ভব। তাই পরিবহন হয়রানি এড়ানো সম্ভব হচ্ছে না তাদের পক্ষে। তাই হপইনের সেবায় প্রাধান্য পাচ্ছে মধ্যবিত্ত চাকরিজীবী ও শিক্ষার্থীরা। হপইন যাত্রীদের স্বস্তিদায়ক যাত্রার পাশাপাশি ন্যায্য ভাড়া ও নিরাপদ যাতায়াতের লক্ষ্যে তাদের এই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম গড়ে তুলেছে। নারীদের সর্বোচ্চ সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বদ্ধপরিকর হপইন। এ লক্ষ্য বাস্তবায়ন করতে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য রাখা হয়েছে আলাদা গাড়ি এবং পরিকল্পিত করা হয়েছে সুনির্দিষ্ট রুট ব্যবস্থা। এ ছাড়া ড্রাইভাররা যে কোনো ধরনের অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতির মুখোমুখি হওয়ার জন্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত। প্রত্যেকের জন্য নিরাপদ এবং সাশ্রয়ী মূল্যের যাত্রা নিশ্চিত করতে হপইন 'নিরাপদ যাত্রা প্রতিদিন' ট্যাগলাইনটির অধীনে কাজ করে চলছে। বর্তমানে হপইনের গাড়ি দুটি রুটে চলছে এবং ইতোমধ্যে ছয় শতাধিক শিক্ষার্থীর সেবা প্রদানে সমর্থ হয়েছে। কেবল দুই মাসের ব্যবধানে ১২০ জন নিয়মিত প্রাহক অর্জন করেছেন এ ডিজিটাল পল্গ্যাটফর্ম। শিগগিরই হপইনের সেবা করপোরেট চাকরিধারীরা ব্যবহার করতে পারবেন। সেই সঙ্গে নতুন রুট চালু করা হচ্ছে এবং দ্রুতই রাজধানীর সব রুট হপইনের সেবার আওতায় আসবে। হপইনের সহ-প্রতিষ্ঠাদের মধ্যে রয়েছেন নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী - প্রধান কার্যনির্বাহী রিদওয়ান হোসেন, ইব্রাহিম খলিল, প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা নাফিসা আলম এবং প্রধান প্রযুক্তি-আধিকারিক অফিসার আজিজুল হাকিম সৌরভ। া