পৃথিবীব্যাপী এখন ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসারিত হচ্ছে। তৈরি হচ্ছে নবীন উদ্যোক্তা। বিভিন্ন চাকরির ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাচ্ছেন ব্যবসায় প্রশাসনে পড়া গ্র্যাজুয়েটরা।

ক্রমবর্ধমান চাহিদার জন্য ব্যবসায় শিক্ষার ওপর পড়াশোনা এখন পৃথিবীব্যাপী অত্যন্ত জনপ্রিয়। এসব দিক সামনে রেখে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে চালু করা হয়েছে বিবিএ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. এবিএম মফিজুল ইসলাম পাটোয়ারী ১৯৯৫ সালে এ ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠা করেন। বর্তমানে ইউনিভার্সিটির ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা প্রায় সাত হাজার। ইউনিভার্সিটিতে বর্তমানে ৩২০ জন পূর্ণকালীন ও খণ্ডকালীন শিক্ষক, কর্মকর্তা রয়েছেন। মানসম্পন্ন শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি প্রশংসার দাবিদার। বিভিন্ন বিভাগ থেকে পাসকৃত ছাত্রছাত্রীরা চাকরির বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফলতার পরিচয় দিচ্ছেন। তাদের মধ্যে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ থেকে পাস করা ছাত্রছাত্রী ভালো অবস্থানে রয়েছেন। তারা বিসিএস প্রশাসনসহ দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান যেমন ব্যাংক, বীমা পুঁজিবাজার, রিয়েল এস্টেট, মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানিসহ ব্যবসা বাণিজ্যে কর্মরত। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রতিটি কর্মকাণ্ড পরিচালিত হচ্ছে পরিকল্পিত, তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক দৃষ্টিকোণ থেকে। এর নেতৃত্ব ও দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের খ্যাতিমান অধ্যাপক ও ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের উপদেষ্টা অধ্যাপক সেলিম ভূঁইয়া। এ ছাড়া রয়েছেন অত্যন্ত মেধাবী, অভিজ্ঞ ও পরিশ্রমী ২৫ জন পূর্ণকালীন শিক্ষক ও খণ্ডকালীন অধ্যাপক। বাণিজ্য অনুষদের শিক্ষকদের সমন্বয়ে যুগোপযোগী বিবিএ এবং এমবিএ প্রোগামের সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। কোর কোর্সের পাশাপাশি রয়েছে অনেক মেজর কোর্স। যেমন- মেজর ইন ম্যানেজমেন্ট, মেজর ইন হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট, মেজর ইন অ্যাকাউন্টিং ইনফরমেশন সিস্টেম, মেজর ইন ফিন্যান্স, মেজর ইন ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট, মেজর ইন মার্কেটিং এবং মেজর ইন ইনফরমেশন সিস্টেম। শিক্ষার্থীরা তাদের পছন্দ অনুযায়ী উল্লিখিত যে কোনো বিষয়ে লেখাপড়া করতে পারেন। ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে নিয়মিত শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি চাকরিজীবী এবং বিএমএ ডিপ্লোমা পাসকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য সান্ধ্যকালীন শিফট চালু রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের জন্য ক্যাম্পাসের কাছেই রয়েছে সাতটি হোস্টেল। ইউনিভার্সিটিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ২০১০-এর আইন অনুযায়ী, দরিদ্র, মেধাবী ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের বৃত্তি দেওয়া হয়।

যোগাযোগ :স্থায়ী ক্যাম্পাস- সাঁতারকুল, বাড্ডা, ঢাকা। ফোন :০১৯৩৯৮৫১০৬০। ৬৬, গ্রিন রোড, ঢাকা। ফোন :০১৬১১৩৪৮৩৪৪। বাড়ি-৪, সড়ক-১, ব্লক-এফ, বনানী, ঢাকা। ফোন :০১৯৩৯৮৫১০৬১। www.diu.ac

মন্তব্য করুন