ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণের স্বপ্ন নিয়ে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ ২০১৯ সালে যাত্রা শুরু করে। প্রতি বছর দুটি সেশনে (স্প্রিং ও ফল) ভর্তি নেওয়া হয়। প্রোগ্রামটি সারাদেশে আইটি পেশাদারদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা রেখে ডিজাইন করা হয়েছে। এটি শিক্ষার্থীদের কম্পিউটার বিজ্ঞান, যোগাযোগ প্রকৌশল এবং তথ্যপ্রযুক্তির বিস্তৃত জ্ঞান অর্জন করার সুযোগ দেয়।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রকৌশল (আইসিই) তথ্যপ্রযুক্তির (আইটি) প্রকৌশল শাখা, যা সম্প্রতি একটি বিশেষ বিষয় হিসেবে দেখা হচ্ছে। প্রকৌশল এই শাখায় শিক্ষার্থীদের যোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পর্কে শিক্ষা দেওয়া হয়, যার অধীনে তারা বেতার সিস্টেম ডিজাইন, রাডার সিস্টেম এবং ইলেকট্রোম্যাগনেটিক সম্পর্কে জানতে পারে। অন্যান্য দিক যা শিক্ষার্থীরা জানতে পারবে সেগুলো স্যাটেলাইট যোগাযোগ ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা সম্পর্কিত, যা মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেট প্রযুক্তির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই কোর্সের মাধ্যমে ভয়েস, ভিজুয়াল এবং ডাটা দ্বারা অবিলম্বে সংযোগটি কীভাবে সরবরাহ করতে হয় তা শিক্ষার্থীরা জানতে পারেন।

ইউনিভার্সিটির ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে চাহিদার তুলনায় পর্যাপ্ত দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষকমণ্ডলী রয়েছেন। অধিকাংশ শিক্ষকই দেশের বাইরে থেকে ডিগ্রি অর্জনকারী। খণ্ডকালীন শিক্ষকদের মধ্যে বুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা পাঠদান করে থাকেন। ইউনিভার্সিটির ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে রয়েছে অত্যাধুনিক ও সমৃদ্ধ ল্যাবরেটরি। এ সম্পর্কে বিভাগীয় প্রধান তসলিম আরেফিন বলেন- 'আমাদের ল্যাবে বিশ্বের অত্যাধুনিক ও সমৃদ্ধ যন্ত্রপাতি, পর্যাপ্ত ল্যাব সুবিধা এবং প্রয়োজনীয় আধুনিক উপকরণ যথেষ্ট পরিমাণ রয়েছে। শিক্ষকরা ল্যাবের বিষয়ে শিক্ষার্থীদের যথেষ্ট সময় দিয়ে থাকেন।' প্রতি সেমিস্টারে ভালো ফলাফল অর্জনকারী মেধাবী শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন পর্যায়ে বৃত্তি দেওয়া হয়ে থাকে। এ ছাড়া মেধাবী ও অসচ্ছল শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে বিশেষ ছাড়। ভর্তির যাবতীয় তথ্য পেতে যোগাযোগ- ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ৪/২০ সোবহানবাগ, ধানমন্ডি, ঢাকা। মোবাইল- ০১৭১৩৪৯৩০৫০-১, ০১৮৪১৪৯৩০৫০।

মন্তব্য করুন