শৈলী

শৈলী

কাজে ফেরার ক্ষণে...

প্রকাশ: ১২ জুন ২০১৯

ঈদ শেষ হলো মাত্র কয়েকটা দিন। পরিবারের সবার সঙ্গে খুশি ভাগাভাগি করে এবার কর্মব্যস্ত জীবনে ফেরার পালা। বিপুলসংখ্যক কর্মজীবী আর শিক্ষার্থী ঈদের ছুটিতে বহুদিন পর নিজের প্রিয় শহরে, পরিবারের কাছে ফিরেছিল। ছুটি শেষে কাজে ব্যস্ত হওয়ার সময় এসেছে। ফিরতে হবে আবারও। তাই তাদের রয়েছে নানা প্রস্তুতি। টিকিটের সংকট তো আছেই, ফলে যারা এখনও বাস বা ট্রেনে কাজে ফেরার টিকিটটি নিশ্চিত করতে পারেননি তারা আছেন বাড়তি টেনশনে।

প্রথমেই নিজের প্রয়োজনীয় সবকিছু গুছিয়ে নেওয়া নিশ্চিত করুন। দীর্ঘ পথের ঝক্কি সামলে পৌঁছে দেখলেন, প্রয়োজনীয় কিছু ফেলে এসেছেন। ফলে যে লাগেজ নিয়ে বেরোবেন প্রতিদিন একটু করে সব গোছাতে থাকুন। এখন সময় কখনও মেঘ, কখনও বৃষ্টির। গত কয়েক বছর ধরেই ঈদ এমন একটা সময়ে হচ্ছে। তাই ব্যাগ গোছাতে গিয়েও বৃষ্টির কথা মাথায় রাখতে হবে। বৃষ্টি প্রতিরোধক ছাতা, রেইনকোট রাখুন হাতের কাছে। রাবারের স্যান্ডেল, স্পঞ্জ ধরনের জুতা পরতে পারেন যাত্রাপথে। দীর্ঘ পথ যেন দীর্ঘতর হয়ে যায় এ সময়ের যানবাহনের ভিড়ে! বমি হওয়া, মাথা ঘোরানো, পানিশূন্যতা ভ্রমণকালীন সাধারণ উপসর্গ। হ্যান্ডব্যাগে তাই প্যারাসিটামল, স্যালাইন, অ্যান্টাসিডের মতো কিছু ওষুধ ও আনুষঙ্গিক রেখে দিন। ডায়াবেটিস, এজমার রোগীরা আগেভাগেই অতিরিক্ত ইনসুলিন, ইনহেলার ইত্যাদি লাগেজবন্দি করে রাখুন। ছোট বাচ্চা থাকলে দুধের বোতল, ডায়াপার পর্যাপ্ত নেবেন। দরকার হলে বাচ্চার জিনিসগুলো আলাদা ব্যাগে রাখবেন।

খুব সাধারণ অথচ প্রয়োজনীয় আরেকটি অনুষঙ্গ আপনার রোজকার পরিধেয় চশমাটি। একজোড়া অতিরিক্ত নিয়ে রাখবেন সেটিও। পথে খিদে তো লাগবেই। রাস্তার খোলা কিছু না কিনে বাড়ি থেকেই হটপটে স্যান্ডউইচ, হালকা ক্র্যাকার্স, বিস্কুট, ফল নিয়ে গুছিয়ে রাখবেন। পানি রাখুন সঙ্গে। একা জার্নি করলে সঙ্গে রাখতে পারেন পেপারব্যাক বইও। ফোন, আইপ্যাড, ট্যাব প্রভৃতি পর্যাপ্ত চার্জ দিয়ে এবং চার্জার সঙ্গে নিয়ে বাসা থেকে বের হবেন। তাড়াহুড়ো থেকে বিরত থাকুন। অপরিচিত লোকের দেওয়া খাবার গ্রহণ থেকে বিরত থাকুন। হাতে সময় নিয়ে ঘর থেকে বের হোন। মনে রাখবেন, প্রিয়জন আপনাকে বিদায় দিয়ে আবারও থাকবেন আপনার সঙ্গে দেখা হওয়ার অপেক্ষায়। তাই নিরাপদে কাজে ফিরুন।



লেখা : মেহজাবিন তুলি