শৈলী

শৈলী


কানাডিয়ান কফির স্বাদ

প্রকাশ: ০৬ নভেম্বর ২০১৯      
ব্রিটিশ সভ্যতার অন্যতম অবলম্বন চায়ের জায়গাটি দখল করে নিয়েছে কফি। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এ দেশেও চাহিদা বাড়ছে কফির। নগরীজুড়ে গড়ে উঠছে ছোট-বড় অনেক কফিশপ। তেমনই একটি কফিশপ 'সেকেন্ড কাপ'। ভিন্ন স্বাদের কফিশপ থেকে ঘুরে এসে লিখেছেন তৌহিদুল ইসলাম তুষার



চমৎকার অন্দরসজ্জায় ও মনোরম পরিবেশে বিশ্বমানের কফির স্বাদে সময় কাটাতে চাইলে চলে আসতে হবে ধানমন্ডির সাতমসজিদ রোডের ৭৫৪/বি নম্বর বাড়ির সেকেন্ড কাপ কফিশপে। লিফট ধরে সোজা পাঁচ তলায় গেলেই আলো-আঁধারি এক পরিবেশ আপনাকে মুগ্ধ করবে। এই কফিশপে ঢুকতেই যে ব্যাপারটি চোখে পড়ে তা হলো বেশ আরামদায়ক বসার ব্যবস্থা। বন্ধুদের সঙ্গে যেমন কফির আড্ডায় হারিয়ে যেতে পারেন, তেমনি সেরে নিতে পারেন অফিসিয়াল আলাপচারিতা। তবে কফির কদর যারা করেন, তাদের কাছে যে ব্যাপারটি ভালো লাগবে তা হলো চার দেয়ালে আটকে থাকা কফির মোহনীয় মাতাল করা সুঘ্রাণ।

সেকেন্ড কাপ কফি কানাডার সবচেয়ে জনপ্রিয় ও বড় কফি চেইন। যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, আবুধাবি, কাতার, কুয়েত, তুরস্ক, ওমান, জর্ডান, সৌদি আরব, আজারবাইজান, তাইওয়ান, পাকিস্তান, রোমানিয়া, সাইপ্রাস, অ্যাঙ্গোলা, মরক্কোসহ এশিয়া, ইউরোপ, আফ্রিকার ৩০টিরও বেশি দেশে এই কফির আউটলেট রয়েছে। বিশ্বের বড় শহরগুলোর মধ্যে রয়েছে দুবাই, শারজাহ, রাস আল খাইমাহ, কুয়েত সিটি। আর সংশ্নিষ্ট দেশগুলোর রাজধানী শহর তো রয়েছেই। দেশে দুটি আউটলেট রয়েছে। একটি ধানমন্ডি, অন্যটি বনানী।

এ ছাড়া বাইরে বসেও কফির স্বাদ উপভোগের জন্য রয়েছে চমৎকার ব্যবস্থা। কফিশপটির এক অংশ সম্পূর্ণ খোলা ছাদ। গাছ আর আটিফিসিয়াল ঝর্ণায় ভিন্ন এক রূপ ফুটে উঠেছে। একটু ঠাণ্ডা পড়লে তো কথাই নেই। জমে ওঠে আড্ডা। সন্ধ্যা নামলেই শপটিতে আনাগোনা শুরু হয় সবার। নিজেদের বসার জায়গাটা দখল করে শুরু হয় আড্ডা দেওয়ার পালা।

কারণ ঠাণ্ডা বা গরম দু'ধরনের কফিই রয়েছে শপটিতে। তাই যে কোনো সময় যেতে পারেন। সেকেন্ড কাপের অন্যতম দুটি কফি হলো চিল্লাতে এবং আইসপ্রেসো। সিগনেচার এই দুটি কফি একটু ভিন্নভাবে তৈরি করা হয়। আপনার হট কফির ফ্লেভার হিসেবে যোগ করা হয় কেরেলা থেকে আনা এই চিল্লাতে পাউডার। অন্যদিকে আইসপ্রেসো বানাতে ব্যবহার করা হয় সম্পূর্ণ আলাদা একটা কফি মেশিন। কফি ফোম আর আইস কুচি দিয়ে তৈরি হয় এটি। ঠাণ্ডা-উষ্ণতা দেবে কফিটি। কফির বিন প্রসেসিংয়ের পর মানদণ্ডের দিকে যথেষ্ট নজর রাখে প্রতিষ্ঠানটি। ১৪ দিনের বেশি কোনো প্রসেসিং বীজ রাখে না শপটি। ক্যারামেল করেটো তাদের অন্যতম সিগনেচার কফি, যাতে রয়েছে চারটি ভিন্ন ফ্লেভার। এগুলো হলো- ভেনিলা বিন, হেজেলনাট, মকাচিনো এবং হোয়াইট মকা। শপটিতে সবচেয়ে বেশি চলে ক্যাপাচিনো। এ ছাড়াও থাকছে আমেরিকানো এবং এক্সপ্রেসোর অনেক ফ্লেভার। সিগনেচার হট চকলেটসের মধ্যে আছে ক্রিমি, ডার্ক, হুইট, ভ্যানিলা বিন এবং ম্যাপেল। এ ছাড়া চা এবং গ্রিন টি মিলবে এখানে। আইস আইটেমের মধ্যে কফি, চা, স্মুদি এবং সেক আইটেম রয়েছে। ক্রিমি, ডার্ক, উইট, ভ্যানিলা বিন এবং ম্যাপেল স্বাদের রয়েছে ফ্রোজের চকলেট কফি। আছে টি চিলারস, ফ্রুট চিলারস এবং ফ্রেশ অরেঞ্জ জুস এবং চকলেট অ্যান্ড ক্যারামেল চিলার। এ ছাড়াও রয়েছে চারটি ভিন্ন স্বাদের স্মুদি, চার ফ্লেভারে সেকমকা এবং পাবেন হাতের তৈরি ইতালিয়ান সোডা। সাইড আইটেমের মধ্যে থাকছে স্যান্ডুইচ, পেস্ট্রি, ব্রাউনি, কেক বা মিষ্টি আইটেম, র‌্যাপসহ মজাদার বেশ কিছু খাবার।



ছবি : মুহাম্মাদ শিহাব