শৈলী

শৈলী


রঙিন স্মৃতিগুলো

প্রকাশ: ২০ নভেম্বর ২০১৯      
উৎসব ক্ষণিকের হলেও স্মৃতি সারাজীবনের। ফটোগ্রাফি ও ভিডিওগ্রাফির মাধ্যমে সংরক্ষণ করা হয় আনন্দের স্মৃতি। দেশজুড়ে রয়েছেন পেশাদার ফটোগ্রাফার। তাদের সহযোগিতায় আপনার প্রিয় স্মৃতি থাকবে অমলিন। লিখেছেন

গোলাম কিবরিয়া

'আজ আমরার কুসুমরানীর বিবাহ হইব... বিবাহ হইব।'

'লীলাবালি লীলাবালি ভর যুবতী সই গো কী দিয়া সাজাইমু তরে...।'

'হলুদ বাটো মেন্দি বাটো বাটো ফুলের মৌ...।'

যখনই 'বিয়ে' শব্দটা মাথায় আসে, তখন থেকেই এ গানগুলো যেন আমাদের মনের রেডিওতে বেজে চলে। হ্যাঁ, এই বিয়েশাদি বা ওয়েডিং যা-ই বলুন না কেন, তা আমাদের সমাজের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উৎসব। বিয়ের অনুষ্ঠান পালনের রীতি বহুকাল থেকেই চলে আসছে। এখনকার বিয়ের অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ বা অবিচ্ছেদ্য অংশও বলা চলে ওয়েডিং ফটোগ্রাফিকে।

জীবনের সেরা এই ক্ষণটি ফ্রেমে বন্দি করে রাখতে বিয়ের ছবি তোলা বা ওয়েডিং ফটোগ্রাফি এখন দেশে-বিদেশে সমান জনপ্রিয়। গায়ে হলুদ, বিয়ের স্মৃতি ধরে রাখতে বিয়ের ছবির কোনো বিকল্প নেই। এত আয়োজন করে বিয়ে করলেন, অথচ সেই স্মৃতিটাই যদি না থাকে, তাহলে কেমন হবে। তাই বেশ আয়োজন করেই ছবি তুলে রাখতে পারেন।

বিয়ের অনুষ্ঠানের স্মৃতি, দামি খাবার, জমকালো পোশাক- সবই ঝাপসা হয়ে যাবে বছর কয়েক পরই! শুধু ছবিগুলোই অমূল্য স্মৃতি হয়ে চোখের সামনে প্রাণবন্ত হয়ে থাকবে। বিয়ের হাজারো মুহূর্ত দুর্লভ সুখস্মৃতি হয়ে থাকবে কালে কালে।

স্টুডিও টাইমস বিডির স্বত্বাধিকারী ও আলোকচিত্রী তাসকিন আল আনাস জানান, এখনকার বর-কনেরা অনেক সচেতন ও আধুনিক চিন্তাধারার। এখন বিয়ের মূল অনুষ্ঠান, গায়ে হলুদ, বৌভাত আর আক্‌দে আটকে নেই ছবি তোলা। বিয়ের ছবি তোলায় নতুন যোগ হয়েছে বিয়ের আগে (প্রি-ওয়েডিং) এবং বিয়ের পরের (পোস্ট ওয়েডিং) ফটোশুট। জীবনের এই আনন্দময় ও গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্তগুলো ফ্রেমবন্দি করে রাখতে ফটোগ্রাফ বা আলোকচিত্রের জুড়ি নেই। বিয়ের অনুষ্ঠানকে ফ্রেমে বন্দি করার প্রচলন অনেক আগের। এখন এতে এসেছে আধুনিকতার ছোঁয়া। ডিজিটাল ক্যামেরার পাশাপাশি এসেছে ডিজিটাল অ্যালবাম। তাই বিয়ের স্মৃতিগুলোকে সাজানো যায় গল্প আকারে।

স্টোরি বুক বাংলাদেশের স্বত্বাধিকারী ও আলোকচিত্রী তৌফিক হাসান জানান, বিয়ের আয়োজনের বাজেটে এখন গহনা, পোলাও-কোরমা, দর্জিবাড়ির খরচ ইত্যাদির পাশাপাশি বিয়ের ছবি ও ভিডিও ধারণও স্থান পাচ্ছে। আর সেই কাজটি ভালোভাবে করাতে সবাই চান বিয়ের ছবি তোলায় অভিজ্ঞ আলোকচিত্রী বা ওয়েডিং ফটোগ্রাফারের ওপর আস্থা রাখতে।

এই সিজনে বিভিন্ন অফারের পসরা সাজিয়ে বসেছে ওয়েডিং ফটোগ্রাফি প্রতিষ্ঠানগুলো। জীবনের সেই রঙিন মুহূর্তগুলোকে আপনার কাছে ফিরিয়ে দিতেই স্টুডিও টাইমসের যত আয়োজন। 'স্টুডিও টাইমস বিডি' সব ধরনের ফটোগ্রাফি ও সিনেমাটোগ্রাফি-সংক্রান্ত সলিউশন দিয়ে থাকে। তাদের অল সিজন 'হট কম্বো' প্যাকেজে ১৮ হাজার ৯৯০ টাকায় আপনি একজন সিনিয়র ফটোগ্রাফার ও একজন সিনেমাটোগ্রাফার পাবেন, সঙ্গে থাকবে একজন চিফ ফটোগ্রাফারের দুই ঘণ্টার পোর্ট্রেট ব্রাইড ও গ্রুম ফটোশুট। এই প্যাকেজের আওতায় একজন গ্রাহক ১০০ ফোরআর প্রিন্টেড ছবি, একটি ১২এল সাইজের ফ্রেম্‌ড ছবি, ফুল এইচডি সিনেমাটোগ্রাফির ডিভিডি পাবেন। বিভিন্ন সময়ে তাদের অফারের আওতায় ক্যালেন্ডার, ছবির ফ্রেমসহ নানা উপহারও থাকে। এ ছাড়া বিয়েতে তোলা সব ছবি ও এই প্যাকেজের গ্রাহকরা একটি ডিভিডি পাবেন। তবে তাদের ২৫ হাজার থেকে শুরু করে স্টোরি টেলিং ফিচারের আওতায় আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত প্যাকেজও আছে। বিয়ের সিজন অনুযায়ী তাদের বিয়ের প্যাকেজও পরিবর্তিত হয়ে থাকে। তাই সব অফার জানতে চোখ রাখতে পারেন তাদের ওয়েবসাইট িি.িংঃঁফরড়ঃরসবংনফ.পড়স লিঙ্কে। এ ছাড়া যদি নিয়মিত আপডেট পেতে চান, তাহলে তাদের ফেসবুক পেজ যঃঃঢ়ং:/িি/.িভধপবনড়ড়শ.পড়স/ঞরসবংংঃঁফরড়-এ লাইক দিয়ে রাখতে পারেন।

আপনার বিয়ের ফটোগ্রাফির বাজেটের ওপর ভিত্তি করে স্টোরি বুক বাংলাদেশ দিচ্ছে কাস্টমাইজড ফটোগ্রাফি ও সিনেমাটোগ্রাফির প্যাকেজ সুবিধা। যেখানে আপনার বাজেট ও চাহিদার ওপর নির্ভর করে প্যাকেজ সাজানো হবে। এ ছাড়া সব মূল্যের ওপর শীতকালীন অফারে ১৫ শতাংশ ছাড় থাকছে।

কম্বো প্যাকেজ ১০ থেকে ৩৫ হাজার টাকা। এ ছাড়া রয়েছে ছোট্ট শর্ত সাপেক্ষে পোস্ট/প্রি-ওয়েডিংয়ের সুবিধা।

বিস্তারিত জানতে কল করুন ০১৭৪১৪১৪১৭১ নম্বরে।

ফটোগ্রাফার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, প্রি-ওয়েডিং বর্তমান বিয়ের ফটোগ্রাফিতে সবচেয়ে জনপ্রিয় ট্রেন্ড। বিয়ের আগে মূলত কাপলরা শুধু ছবি তোলার জন্য এই প্রি-ওয়েডিং ফটোগ্রাফি করে থাকেন। বিয়ের অনুষ্ঠানে ফটোগ্রাফাররা ছবি তোলার জন্য খুব কম সময় পান। তাই বর-কনে ও ফটোগ্রাফারের বোঝাপড়ার জন্য প্রি-ওয়েডিং খুব জরুরি।

স্টুডিও টাইমস বিডির স্বত্বাধিকারী ও আলোকচিত্রী তাসকিন আল আনাস জানান, এখন ওয়েডিং ফটোগ্রাফির ট্রেন্ডে বেশ কিছু পরিবর্তন এসেছে। বর ও কনে বিয়ের মঞ্চে উপস্থিত হওয়ার জন্য নিজেদের প্রস্তুত করেন। আর সেই মুহূর্তগুলোকে ধারণ করা হচ্ছে গেটিং রেডি। এখন বেশ জনপ্রিয় ট্রেন্ড এটি। এ ছাড়া ক্যামেরার সামনে পোজ দিয়ে দাঁড়িয়ে ছবি তোলার চল এখন নেই বললেই চলে। তাই বিয়ের দিন বর-কনের নানা কর্মকাণ্ড থেকে সুন্দর মুহূর্তের ছবি নেওয়াই হচ্ছে ক্যানডিড। তা ছাড়া এন্ট্রি শট, অলঙ্কার আর পোশাককে প্রাধান্য দিয়ে তোলা হচ্ছে অসাধারণ কিছু মুহূর্ত।

বলা হয়ে থাকে, শীতের মৌসুম বিয়ে করার জন্য উত্তম সময়। তাই ওয়েডিং ফটোগ্রাফার প্রতিষ্ঠান ও ফটোগ্রাফারের ফোন নম্বরসহ কিছু তথ্য দেওয়া হলো।

ওয়েডিং ডায়েরি বাংলাদেশ

০১৯৭৫৫৫৬৬৩৩।

িি.িবিফফরহমফরধৎু.পড়স.নফ

ড্রিম ওয়েভার

০১৭১৭৯৯২২৮৫।

িি.িফৎবধসবিধাবৎ.পড়স.নফ

ব্রাইডাল মোমেন্ট

০১৭৯১৩৩৩৪৪৪।

িি.িনৎরফধষসড়সবহঃ.পড়স

রনি বাউল

০১৬৮০৮২০৩৯০।

শাহরিয়ার নবী নেওয়াজ

০১৭১১১৬৬৫৪৪।

মোস্তাফিজুর রহমান

০১৬৭৭৪৫৮০৬৬। া