সুহৃদ সমাবেশ

সুহৃদ সমাবেশ


আহ্‌! শীত

প্রকাশ: ২১ জানুয়ারি ২০২০      

আসাদুজ্জামান

ষড়ঋতুর এই দেশে ঋতু বৈচিত্র্যে এসেছে শীতকাল। ক্যালেন্ডারে শীতের ঘোষণা দেওয়ার আগেই এবার প্রচণ্ড প্রতাপে হানা দিয়েছে শীত। প্রকৃতি এখন আর পঞ্জিকার অনুশাসন মানছে না বলেই মনে হচ্ছে। প্রকৃতির এ বিরূপ খেলায় নানাভাবে বিপর্যস্ত অসহায় মানুষ। সময়ের পরিক্রমায় পুরোনো বছর বিদায় নিয়ে এসেছে নতুন দিন, নতুন বছর। পুরোনো সব সুখ-দুঃখ আর ভয়কে পেছনে ফেলে শুরু হয়েছে নতুন ও ভালো কিছুর স্বপ্ন নিয়ে পথচলা। নানা অনিশ্চয়তা আর নতুন প্রত্যাশার সঙ্গে বছরের শুরুটা হয়েছে দারুণ শীতের ছোঁয়ায়। গত বছরের শুরুতে শীতের আভাস পাওয়া গেলেও এবার নতুন বছরের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে দেশের সর্বত্রই জেঁকে বসেছে প্রচণ্ড শীত। অনেকের কাছে শীতের এই সময়টা প্রিয় হলেও, পরপর কয়েকটি শৈত্যপ্রবাহে সুবিধাবঞ্চিত, ছিন্নমূল অসহায় খেটে খাওয়া, সাধারণ মানুষের জীবনে নেমে এসেছে নিদারুণ কষ্ট, বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে জীবনযাপন। শুধু মানুষ নয়, শীতের তাণ্ডবে জবুথবু প্রতিটি প্রাণিকুল।

শীতের আগমনী রূপ ফুটে ওঠে প্রকৃতি মাঝে। চারদিকে কেমন যেন একটা হাহাকার বিচরণ করে। এরই মাঝে শীতের রিক্ততা প্রকৃতিকে ভিন্ন সাজে সজ্জিত করে। কুয়াশাঘেরা সকাল-সন্ধ্যা আর শিশিরভেজা ঘাসে পত্রশূন্য প্রকৃতিতে আসে পরম স্নিগ্ধতা। শীতের সকাল ভিন্নরকম, বৈচিত্র্যময় রূপে ধরা দেয় আমাদের কাছে। গ্রামের উঠোনে এখনও হাড়কাঁপানো শীতের সকালে কিছু মানুষ একটু হালকা রোদের আশায় দীর্ঘ সময় কাটান। সে রোদ এনে দেয় প্রাণচাঞ্চল্য। ক্ষেতভরা নতুন ধানের পাশে হলুদ ফুলেরা শোভা পায়। মৌমাছির আনাগোনা বেড়ে যায় সেখানে। কুয়াশায় মোড়া শীতের সকালের সারিবদ্ধ খেজুর বাগানে গাছিদের তৎপরতা বাড়ে। আবহমান গ্রামবাংলার ঐতিহ্যের রস সংগ্রহে গ্রামে গ্রামে গাছিরা খেজুর গাছ কাটার কাজে ব্যস্ত সময় পার করেন। এই শীতেই গ্রামবাংলার ঘরে ঘরে উৎসবে ধুম পড়ে। পিঠা-পায়েস আর উৎসবে সব বৈরাগ্যের মাঝে বেজে ওঠে আনন্দের সুর।

ইট-পাথরের শহরও ঢেকে রাখে শীতের চাদর। শীতে এই শহর যেন বন্দি। আলসতা ঘিরে ধরলেও কুয়াশার চাদর পেরিয়ে যেতে হয় গন্তব্যে। কোনো এক অজানা শীতল হাওয়া কেঁপে ওঠে উত্তপ্ত এ কঠিন শহর। শূন্য পথে ধূসর চাদর হয়ে ঢেকে রাখে চারদিক। পথে-ঘাটে, পাড়ায়, চা স্টল, ফুটপাত, আগুনের ধারে, আবদ্ধ কক্ষে, সম্বলহীন মানুষের পানে আরও বেশি প্রতাপে এগিয়ে আসে শীত। গ্রামের নদীর ধারে অথবা বাজারে কিছু মানুষ সবসময় হাড়কাঁপা শীতকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ভবঘুরে হয়ে ঘুরে বেড়ায়। শহর কিংবা গ্রাম প্রচণ্ড শীতে ঠান্ডাজনিত রোগ বিশেষ করে শিশু ও বয়স্ক মানুষ ডায়রিয়া ও ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে। তাই শীতের এ সময়ে প্রয়োজন বিশেষ সতর্কতা।

শীতের মিষ্টি রোদের সৌন্দর্য আর পিঠাপুলির স্বাদ থেকে যারা বঞ্চিত- পথের ধারে, স্টেশনে যাদের বাস, সামান্য পোশাকও যাদের জোটে না, তারা শীতের অভিশাপ থেকে মুক্তি পেতে চায়। একটু উষ্ণতার জন্য অপেক্ষায় থাকে। অনেকে পরম মমতায় এগিয়ে আসেন তাদের সাহায্যে। প্রচণ্ড শীতে একটু উষ্ণতার পরশ তাদের জন্য আশীর্বাদ হয়ে আসে।

মানবজীবন গতিময়। নানা ঘাত-প্রতিঘাত ছুঁয়ে যাওয়া আশা-নিরাশার অথৈজলে ভাসতে ভাসতে এগিয়ে চলে চূড়ান্ত পরিণতির দিকে। নিয়মের ধারাপাতে সাজানো সময়গুলো নিমিষেই জীবন থেকে হারিয়ে যায় কেউ বুঝে ওঠার আগেই। সূর্য প্রচণ্ড প্রতাপে আবার দাপিয়ে বেড়াবে। সময়ের নিয়মে উষ্ণতা আর শীতলতা প্রভাবিত করবে যাপিত জীবন। প্রকৃতির বহুরূপী আচরণে আমাদের জীবনে নিয়ত আসে বৈচিত্র্য ও প্রাণচাঞ্চল্য। া