চলতি বছর প্রথম কোনো বড় ইভেন্টে অ্যাপল নতুন উন্মোচন করেছে। করোনার প্রাদুর্ভাবে গত বছরের মতো এবারও ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে নতুন পণ্য ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। অনুষ্ঠানটি অ্যাপলের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট এবং ইউটিউব চ্যানেলে সরাসরি প্রচারিত হয়েছে। অ্যাপল দীর্ঘদিন পর একেবারে নতুন ঘরানার পণ্য নিয়ে এলো। সাশ্রয়ী দামের অ্যাপল 'এয়ারট্যাগ' নামের এ ডিভাইসটি দারুণ জনপ্রিয়তা পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। পাশাপাশি নতুন আইম্যাক ও আইপ্যাড প্রো প্রদর্শন করেছে। এসব পণ্যে ব্যবহার করা হচ্ছে তাদের নিজস্ব উন্নত 'এম ওয়ান' চিপ। চলতি মাসের শেষ দিকে পণ্যগুলো বাজারে আসবে।

এয়ারট্যাগ

এয়ারট্যাগ আপনি আপনার চাবি বা আপনার পোষা প্রাণী যেমন কুকুরের কলার, যে কোনো কিছুর সঙ্গে সংযুক্ত করতে পারবেন। এয়ারট্যাগ যুক্ত পণ্য হারিয়ে গেলে ফোন ব্যবহার করে সহজেই খুঁজে বের করা যাবে। এটি একটি ছোট বৃত্তাকার ডিস্ক, যা যে কোনো কিছুর সঙ্গে সংযুক্ত করা যেতে পারে। এতে রয়েছে আল্ট্রা-ওয়াইডব্যান্ড (ইউডব্লিউবি) প্রযুক্তি, যা ডিভাইসকে আরও নিখুঁতভাবে শনাক্ত করতে পারবে। অ্যাপলের 'ফাইন্ড মাই' অ্যাপ ব্যবহার করে দ্রুত ট্যাগ করা বস্তুটি শনাক্ত করা যাবে। আইফোন ১১ বা ১২ সিরিজের ফোনে ফাইন্ড মাই অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করলে এ এয়ারট্যাগটি কাজ করবে। এটি পানি বা ধুলো এই ডিভাইসটির ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না। এটিতে একটি লিথিয়াম ব্যাটারিও রয়েছে, যা এক বছর পর্যন্ত স্থায়ী হতে পারে। যখন ট্র্যাকারটি ব্লুটুথ রেঞ্জের মধ্যে থাকে, ট্যাগ করা বস্তুটি দ্রুত শনাক্ত করতে অ্যাপের মাধ্যমে একটি বিপ ধ্বনি ব্যবহার করা যায়। ট্যাগটি ব্লুটুথ রেঞ্জের বাইরে থাকলেও ডিভাইসের স্মার্ট ফিচারগুলোকে একসঙ্গে কাজে লাগিয়ে ট্যাগটিকে শনাক্ত করা যাবে। অ্যাপল ইঞ্জিনিয়ারিং প্রোগ্রাম ম্যানেজার ক্যারোলিন উলফম্যান-এস্ত্রাদা বলেন, এয়ারট্যাগের দাম হবে ২৯ ডলার। দেশে ডিভাইসটি সাড়ে তিন হাজার টাকার মধ্যে কেনা যেতে পারে। ৩০ এপ্রিল বাজারজাত হওয়ার কথা রয়েছে ডিভাইসটির।

আইম্যাক

কলিন নোভিয়েলি সাতটি ভিন্ন রঙে নতুন সুপার-থিন আইম্যাক দেখিয়েছেন, যা অ্যাপলের নতুন এম ওয়ান চিপ দিয়ে নির্মিত। একটি ২৪ ইঞ্চি, ১১.৩ মিলিয়ন পিক্সেল স্ট্ক্রিন, একটি পুনর্গঠিত ক্যামেরা এবং অন্যান্য আপগ্রেডসহ নতুনরূপে দেখা যাবে আইম্যাককে। অ্যাপলের পুরোনো পণ্যগুলোর মধ্যে একটি আইম্যাক। কিন্তু বছরের পর বছর ধরে এর উল্লেখযোগ্য আপডেট বাজারে আসেনি। এতে শুধু ১৬ জিবি একটি র‌্যাম (ডিভাইসের স্বল্পমেয়াদি মেমরি) আছে, যা পুরোনো ম্যাক মিনির সমতুল্য।

আইপ্যাডে ফাইভজি

এম ওয়ান চিপ, একটি আল্ট্রা-ওয়াইড ক্যামেরা এবং ফাইভজি ডাটা কানেক্টিভিটি সবই নতুন আইপ্যাড প্রো-তে রয়েছে। এম ওয়ান চিপ সর্বশেষ সংস্করণের গ্রাফিক্স কর্মক্ষমতা আগের চেয়ে এক হাজার ৫০০ গুণ দ্রুততর করে তুলবে। নতুন মডেলটিতে ২ টেরাবাইট পর্যন্ত স্টোরেজও থাকবে।

অন্যান্য পণ্য

অ্যাপল স্ট্রিমিং পরিষেবার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে একটি নতুন সাবস্ট্ক্রিপশন পডকাস্ট প্ল্যাটফর্মও ঘোষণা করেছে। একটি নতুন ৪কে অ্যাপল টিভিও উন্মোচন করা হয়েছে অনুষ্ঠানে। যার মধ্যে একটি পুনরায় ডিজাইন করা সিরি রিমোট এবং এইচডিআর (হাই ডায়নামিক রেঞ্জ) রয়েছে। এইচডিআর রঙের একটি বৃহত্তর পরিসর দেখায়, ছবি আরও উজ্জ্বল এবং বাস্তবসম্মত করে তোলে।

মন্তব্য করুন