মাইক্রোসফটের তরফ থেকে বলা হয়েছিল উইন্ডোজ ১০ হবে জনপ্রিয় এ অপারেটিং সিস্টেমটির সর্বশেষ সংস্করণ। তবে সাম্প্রতিক খবর বলছে- কথা রাখছে না কোম্পানিটি। ইতোমধ্যে জানা গেছে, তারা উইন্ডোজ ১১ সংস্করণ বাজারে ছাড়তে যাচ্ছে!

২০১৫ সালে উইন্ডোজ ১০ প্রকাশের সময় মাইক্রোসফটের ডেভেলপার জেরি নিক্সন। বলেছিলেন, 'এই মুহূর্তে আমরা উইন্ডোজ ১০ প্রকাশ করছি এবং যেহেতু উইন্ডোজ ১০ উইন্ডোজের শেষ সংস্করণ, তাই আমরা সবাই এখন উইন্ডোজ ১০ নিয়েই কাজ করছি।' কিন্তু সে প্রতিশ্রুতি এখন মানছে না মাইক্রোসফট। জানা গেছে, আগামী ২৪ জুন ভার্চুয়াল আয়োজনের মধ্য দিয়ে উইন্ডোজের নতুন একটি সংস্করণ 'উইন্ডোজ ১১' বাজারে ছাড়তে যাচ্ছে।

কেন উইন্ডোজ ১১

মজার ব্যাপার হলো, নিক্সন যা বলেছিলেন মাইক্রোসফট অফিসিয়ালি তা কখনও স্বীকার করেনি। আবার উইন্ডোজ ১০ যে উইন্ডোজের 'শেষ সংস্করণ নয়' এমনটাও বলেনি তারা। যেহেতু তারা নতুন সংস্করণ আনছে, ফলে প্রশ্ন উঠছে এটি কি ছিল মাইক্রোসফটের নতুন কৌশল! ২০১৫ সালের ওই অনুষ্ঠানে বলা হয়েছিল উইন্ডোজ ১০-এর জন্য বেশকিছু আপডেট সরবরাহ করা হবে। এখনও আনুষ্ঠানিকভাবে উইন্ডোজ ১১ দেখায়নি মাইক্রোসফট। এরই মধ্যে ফাঁস হয়ে গেছে নতুন উইন্ডোজের নকশা। টুইটারে রীতিমতো ভিডিও আপলোড করে নতুন উইন্ডোজ ১১-এর নকশার কিছুটা দেখিয়ে দিয়েছেন প্রযুক্তিবিষয়ক সাইট দ্য ভার্জের জ্যেষ্ঠ সম্পাদক টম ওয়ারেন।

শেষ সংস্করণ হিসেবে উইন্ডোজ-১০ ব্যবহারকারীদের আজীবন আপডেট বা সাপোর্ট পাওয়ার কথা ছিল। তবে শেষ পর্যন্ত ২০২৫ সাল থেকে উইন্ডোজ-১০-এর সাপোর্ট বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছে মাইক্রোসফট। উইন্ডোজ ১০ হোম এবং প্রো সংস্করণের জন্য নির্ধারিত ওয়েবপেজে প্রতিষ্ঠানটি লিখেছে, উইন্ডোজ ১০-এর অন্তত একটি সংস্করণের জন্য ২০২৫ সালের ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত গ্রাহকসেবা দিয়ে যাবে মাইক্রোসফট।

উইন্ডোজ ১১ চমক

উইন্ডোজ-১১-এর মূল চমক হচ্ছে এর 'মাইক্রোসফট স্টোর'। উইন্ডোজ-৮ ও উইন্ডোজ-১০ স্বল্প পরিসরে 'মাইক্রোসফট স্টোর' থাকলেও নতুন এই ভার্সনের জন্য মাইক্রোসফট স্টোরকে ডিজাইন করা হয়েছে নতুনভাবে। উইন্ডোজ-এর বিভিন্ন ধরনের সফটওয়্যার থাকবে এই 'মাইক্রোসফট স্টোর'-এ এবং এখান থেকেই ইনস্টল করতে হবে সবকিছু। তবে নতুন এই 'মাইক্রোসফট স্টোর'-এ বড় ধরনের সুযোগ রয়েছে ডেভেলপারদের জন্য। এই স্টোরে ডেভেলপাররা তাদের ডেভেলপ করা অ্যাপ্লিকেশন আপলোড করে রাখতে পারবেন এবং ব্যবহারকারীরা ফ্রি কিংবা টাকার বিনিময়ে সেসব অ্যাপ্লিকেশন সরাসরি 'মাইক্রোসফট স্টোর' থেকে ডাউনলোড ও ইনস্টল করতে পারবেন, ঠিক যেমনটি গুগল প্লে স্টোর-এর ক্ষেত্রে হয়ে থাকে। এ নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদনও প্রকাশিত হয়েছে সাইটটিতে। ফাঁস হওয়া নকশায় দেখা গেছে নতুন উইন্ডোজের ডিফল্ট ওয়ালপেপার। আপাতত ধারণা করা হচ্ছে, লাইট ও ডার্ক দুই মোডেই ওয়ালপেপারটি পাওয়া যাবে। ভার্জ দাবি করছে, ফ্লো, গ্লো এবং ক্যাপচার্ড মোশন নামে কয়েক ধাঁচের ওয়ালপেপারের দেখা মিলবে নতুন উইন্ডোজ সংস্করণে। চূড়ান্তভাবে কোনটিকে দেখা যাবে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। ফাঁস হওয়া ভিডিওতে উইন্ডোজ ১১-এর উইজেট এবং টাস্কবারেও পরিবর্তন চোখে পড়েছে। বাম পাশের বদলে স্ট্ক্রিনের ঠিক মাঝ বরাবর চোখে পড়েছে নতুন টাস্কবারটিকে। এ ছাড়াও সংবাদ, আবহাওয়া বার্তা এবং অন্যান্য ওয়েব কনটেন্টের জন্য উইন্ডোজ উইজেট আনার ব্যাপারে বলছে মাইক্রোসফট।

এই সংস্করণের নাম কী হবে সেটা এখনও নিশ্চিত করেনি প্রতিষ্ঠানটি। তাই সম্পূর্ণ নতুন নামের অপারেটিং সিস্টেম আসছে, নাকি আগের সংস্করণের নতুন ভার্সন পাবে ব্যবহারকারীরা, সেই প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

এসব প্রশ্নের উত্তর পেতে তাকিয়ে থাকতে হবে ২৪ জুনের দিকে। তাই, সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়ার আগে মাইক্রোসফটকে দোষী সাব্যস্ত করা যাচ্ছে না। কথা না রাখার অভিমান নাকি নতুন সংস্করণে নতুন সুবিধা পাওয়ার সুযোগ, কোনটাকে বেছে নেবেন ব্যবহারকারীরা সেটাই এখন দেখার পালা।

মন্তব্য করুন