উন্মোচিত হয়েছে সাইবারপাঙ্ক অ্যাকশন গেম 'ঘোস্টরানার'। আধুনিক সব প্রযুক্তি আর রোমাঞ্চকর ভৌতিক অনুভূতির মিশ্রণে গেমটি নির্মাণ করেছে অ্যালবুর্গ-ভিত্তিক ভিডিও গেম নির্মাতা প্রতিষ্ঠান স্লিপগেইট আয়রন ওয়ার্কস। এই গেমের কম্পোজিশন করেছেন ড্যানিয়েল ডিলাক্স এবং প্রকাশ করেছে '৫০৫ গেমস'। গত ২৮ সেপ্টেম্বর উন্মোচিত হওয়া গেমটি শুধু সিঙ্গেল প্লেয়ার মোডেই খেলা যাবে।

যাতে খেলা যাবে :পেল্গস্টেশন ফোর, পেল্গস্টেশন ফাইভ, এক্সবক্স ওয়ান, এক্সবক্স সিরিজ এক্সওএস, অ্যামাজন লোনা, নিনটেন্ডো সুইচ ও মাইক্রোসফট উইন্ডোজ।

কাহিনি : ঘোস্টরানারের প্লট সাজানো হয়েছে ধারমা টাওয়ারকে কেন্দ্র করে; যা একটি বিশাল আকারের পুরোনো বাড়ি। একসময় বাড়িটি ব্যবহূত হলেও বর্তমানে এটি পরিত্যক্ত এবং এখানে কেউ বসবাস করে না। বহু বছর আগে প্রাকৃতিক দুর্যোগের ফলে এই বাড়িতে বসবাসকারী সবাই আটকে পড়ে মারা যায়। এরপর একসময় তাদের আত্মা জাগ্রত হয়ে ভূতে পরিণত হয়। আর গেমাররা এই আত্মার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়। তবে তাদের কোনো স্মৃতি থাকে না, তারা আগের কোনো কিছুই মনে করতে পারে না। ধারমা টাওয়ারে বসবাসকারী ভূতেরা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসহ হ্যাকিংয়ের মতো আধুনিক সব প্রযুক্তিতে বেশ দক্ষ। এই বাড়ি থেকেই তারা দলবদ্ধভাবে বিভিন্ন মিশন পরিচালনা করে। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাকে কাজে লাগিয়ে একসময় বাড়ি থেকে পুরো শহরের ক্ষমতা নিজেদের দখলে নিয়ে নেয় তারা। আর এর পরই শুরু হয় ক্ষমতায় টিকে থাকার লড়াই। ক্ষমতা দখলের জন্য অন্যান্য দল তাদের সঙ্গে লড়াই করতে থাকে এবং সবাই নতুন নতুন প্রযুক্তি দিয়ে তাদের হ্যাকিংয়ের ফাঁদে ফেলার চেষ্টা করে। একসময় খেলোয়াড়ের দলের কিছু ভূত বিশ্বাসঘাতকতা করে যোগ দেয় বিপক্ষের একটি দলে। আর তাতে পুরো বাড়ির সিস্টেম হ্যাকড করে নেয় শত্রুরা। এর ফলে শুরু হয় মুখোমুখি লড়াই। এখানে অংশ নেয় গেমাররাও। বিশাল আকৃতির এক ধরনের তলোয়ার নিয়ে সরাসরি শত্রুদের হত্যা করতে পারবে গেমাররা। সম্মুখ লড়াইয়ের ফলে ধারমা বাড়ির বিভিন্ন অংশ ধ্বংস হয়ে যায়। এই লড়াইয়ের মধ্য দিয়েই গেমারকে বেঁচে থাকতে হয় ঘোস্টরানারে।

খেলতে নূ্যনতম পিসি সিস্টেম :ওএস :উইন্ডোজ ১০, প্রসেসর :ইন্টেল কোর আই ৫-২৫০০কে/এএমডি ফেনম টু এক্সফোর ৯৬৫, র‌্যাম :৮ জিবি, জিপিইউ :এনভিডিয়া জিফোর্স জিটেক্স ১০৫০, ২ জিবি/এএমডি রেডিয়ন আরএক্স ৫৫০, ৪ জিবি।

মন্তব্য করুন