ক্লাবহাউস নামের মধ্যেই রয়েছে তার বিশেষত্ব। ক্লাবে যা হয় তার একটি অডিও উপস্থাপনা বলা যেতে পারে প্ল্যাটফর্মটিকে। ইতোমধ্যে ক্লাবহাউস নিয়ে মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস, ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ কিংবা টেসলা প্রধান এলন মাস্কের মতো প্রযুক্তি মোগলরা! এখানে আপনি সমমনা বন্ধুদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে আড্ডা দিতে পারেন, প্রয়োজনীয় মিটিং কিংবা কনফারেন্স করতে পারেন। কেউ চাইলে নিজস্ব রুম তৈরি করে গানবাজনা করতে পারেন, বক্তৃতা দিতে পারেন, কোনো জ্ঞানগর্ভ বিষয়ে আলোচনা করতে পারেন- এ রকম নানা সুযোগ অবারিত করেছে ক্লাবহাউস। এখানে লেখালেখির কোনো ঝামেলা নেই। প্ল্যাটফর্মটি পুরোটাই অডিও-নির্ভর। অনেকটা রেডিওর মতো। রেডিওতে কেবল এক পক্ষ কথা বলতে পারে কিন্তু এখানে উভয় পক্ষই আলোচনায় যুক্ত হতে পারে। ক্লাবহাউসের জনপ্রিয়তায় একই ধরনের সেবা ফেসবুক ও টুইটারে স্বল্প পরিসরে রয়েছে।

ক্লাবহাউস বৃত্তান্ত

বিশ্বজুড়ে করোনার প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর ২০২০ সালের মে মাসে চালু হয় ক্লাবহাউস। এটি এমন একটি সামাজিক প্ল্যাটফর্ম বা অ্যাপ্লিকেশন, যার মাধ্যমে আমন্ত্রণের ভিত্তিতে ব্যবহারকারী বিভিন্ন লাইভ অনুষ্ঠানে বা পডকাস্টে অংশগ্রহণ করে তার মতামত জানাতে এবং যে কোনো বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে পারেন। আর তা হতে পারে যে কোনো ভাষা বা যে কোনো দেশের। ক্লাবহাউসে নিবন্ধনের পর ভার্চুয়াল রুম তৈরি করে অন্যদের সঙ্গে কথোপকথন করা যায়। এতে পাবলিক ও প্রাইভেট অডিও চ্যাট রুম আছে। এতদিন শুধু অ্যাপলের আইওএস প্ল্যাটফর্মে অ্যাপটি ব্যবহারের সুযোগ থাকলেও অ্যান্ড্রয়েডেও মিলছে সেবাটি। আইওএসে আসার এক বছর পর গত মে মাসে প্রাথমিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রে অ্যান্ড্রয়েড ওএসে চালু হয় ক্লাবহাউস। এখন সারাবিশ্বের অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা এই অ্যাপ ব্যবহার করতে পারছেন। অ্যান্ড্রয়েড সংস্করণ প্রকাশের দুই সপ্তাহেরও কম সময়ের মধ্যে ১০ লাখের বেশি মানুষ এটি ডাউনলোড করেছেন; যা জুলাই মাসে এক কোটি ছাড়িয়েছে! শুরুতে অ্যাপটিতে শুধু আমন্ত্রণের ভিত্তিতে ব্যবহারকারীরা লগইন করতে পারতেন। গত জুলাই মাসে ক্লাবহাউস জানিয়েছে, এখন থেকে এটি আর শুধু আমন্ত্রণনির্ভর নয়; যে কোনো অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারী অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন। তবে এটি আইপ্যাডওএসের জন্য অপটিমাইজ করা হয়নি। সে ক্ষেত্রে আইপ্যাডে ব্যবহার করলে এটি ছোট উইন্ডো বা অনেক বড় উইন্ডোতে অদ্ভুত আচরণ করতে পারে। অ্যান্ড্রয়েড ট্যাবলেটে অবশ্য সে অসুবিধা নেই। অ্যাপটিতে লাইভ ডিজে পার্টি, সেলিব্রিটি টক শো ও স্পিড ডেটিংয়ের মতো অডিওভিত্তিক কার্যক্রম চালানোর সুযোগ রয়েছে। সিলিকন ভ্যালির প্রযুক্তিবিদদের অনেকেই ক্লাবহাউসে ঢু মেরেছেন। এ বছরের শুরুতে ফেসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ ও টেসলা প্রধান ইলন মাস্ক এক টক শোতে অংশ নেওয়ার পরই অ্যাপটির জনপ্রিয়তা অনেক বেড়ে যায়। এ ছাড়া মার্কিন তারকা অপরাহ উইনফ্রে, অ্যাশটন কুচার, ড্রেক, জেরাড লিও এতে যুক্ত হন।

যেভাবে যুক্ত হবেন

ক্লাবহাউস অ্যাপ ফোনে নামিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। অ্যাক্সেস পাওয়ার পরে অ্যাপটি কথোপকথনের বিষয়-সংবলিত পূর্ণ একটি পৃষ্ঠা সামনে দেখাবে। এখানে বিচিত্র সব বিষয় আছে। খেলাধুলা থেকে প্রযুক্তি, আন্তর্জাতিক বিষয় থেকে বিভিন্ন বিশ্বাস এবং আরও অনেক কিছু। আপনার পছন্দের বিষয়ে আগ্রহী ব্যক্তিদের দেখতে পাবেন এবং আপনি তাদের অনুসরণ করতে পারেন। আপনি যত বেশি বিষয় এবং লোকদের অনুসরণ করবেন, আপনার ইচ্ছার সঙ্গে খাপ খায়- এমন একটি ঘরের জন্য পরামর্শ পাওয়ার সম্ভাবনা তত বেশি হবে। ক্লাবহাউসে 'রিপ্লে' নামে একটি ফিচার যুক্ত হতে যাচ্ছে। এটির মাধ্যমে যিনি রুম তৈরি করবেন তিনি কথোপকথন রেকর্ড করতে এবং তাদের প্রোফাইল বা ক্লাবে সংরক্ষণ করতে পারবেন। তারপর যে কেউ এটি ডাউনলোড করতে পারে, যা অনেকটা পডকাস্টের মতো। যদি আগে থেকে রিপেল্গ বৈশিষ্ট্যটি চালু না করা হয়, সে ক্ষেত্রে তা রেকর্ড করা যাবে না। ক্লাবহাউস 'ক্লিপস' নামে আরেকটি বৈশিষ্ট্যও চালু করছে। পাবলিক রুমে থাকা যে কেউ সেখানে ঘটছে এমন কথোপকথনের একটি ৩০ সেকেন্ডের ক্লিপ তৈরি করতে পারবেন, যা তারা অন্যদের সঙ্গে শেয়ার করতে পারবেন। মূলত অন্যদের উৎসাহী করে রুমে যোগদান করানোর জন্যই এই ব্যবস্থা। একসঙ্গে পাঁচ হাজার ব্যবহারকারী একটা ক্লাবহাউস রুমে অংশ নিতে পারে। যদিও এখন টুইটার, ফেসবুক, টেলিগ্রাম, ইনস্টাগ্রাম, স্পটিফাইসহ সব মাধ্যমেই অডিওভিত্তিক চ্যাটিং ব্যবস্থা আছে। তবে ক্লাবহাউসের মতো এত বিপুলসংখ্যক মানুষের অ্যাক্সেস এসব প্ল্যাটফর্মে নেই। ক্লাবহাউসের অফিসিয়াল সাইট clubhouse.com ও  joinclubhouse.com থেকে এবং গুগল প্লে-স্টোর বা অ্যাপল অ্যাপ স্টোর থেকে অফিসিয়াল অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করতে হবে।

মন্তব্য করুন