ই-কমার্সে বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ কোম্পানি অ্যামাজন। কোম্পানিটি ই-কমার্সের পাশাপাশি স্মার্ট হার্ডওয়্যার পণ্য তৈরিতে মনোযোগ বাড়াচ্ছে। সম্প্রতি কোম্পানিটি ঘরোয়া কাজের রোবট, স্মার্ট স্পিকার, ফিটনেস ব্যান্ডসহ একগুচ্ছ নতুন পণ্য উন্মোচন করেছে। অ্যামাজনের নতুন পণ্য নিয়ে লিখেছেন তুসিন আহমেদ

ই-কমার্সভিত্তিক ট্রিলিয়ন ডলারের কোম্পানি অ্যামাজন। তবে ই-কমার্স ছাড়াও স্মার্ট হার্ডওয়্যার পণ্যের বাজারে শক্ত অবস্থান তৈরিতে নজর দিয়েছে জেফ বেজোসের প্রতিষ্ঠিত কোম্পানিটি। এরই অংশ হিসেবে গত ২৮ সেপ্টেম্বর বেশ কয়েকটি ইকো ডিভাইস, রিং ডিভাইস, স্মার্ট থার্মোস্ট্যাট, ঘরোয়া রোবট, ফিটনেস ব্যান্ড, হোম ক্যাম প্রভৃতি উন্মোচন করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

রোবট অ্যাস্ট্রো

অনেকেই অফিসে গিয়ে টেনশনে থাকেন, বাসার সবকিছু ঠিক আছে কিনা। বাসায় থাকা পোষা কুকুরটা কী অবস্থায় আছে কিংবা রান্নাঘরের গ্যাসের চুলা ভুল করে জ্বালিয়ে রেখেছেন কিনা- এমন অনেক কিছু নিয়েই সংশয় তৈরি হয়। এ সংশয় দূরীকরণে অফিসে বসে আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোনে তা সহজেই দেখে নিতে পারবেন মাত্র কয়েক ক্লিকে। কাজটা একটা আইপি ক্যামেরাতেও সম্ভব। তবে বাড়তি কাজের জন্য আপনি এখন কিনে নিতে পারেন অ্যামাজনের রোবট। 'অ্যাস্ট্রো' নামে রোবটটি অ্যালেক্স স্মার্ট হোম প্রযুক্তির সাহায্যে ঘরের নিত্যকাজে সাহায্য করবে। অ্যাস্ট্রো শুধু সিসিটিভি ক্যামেরার মতো নয়, এটি চাকার সাহায্যে সারা ঘরে ঘুরে বেড়াতে পারে। ঘরে যদি অস্বাভাবিক কিছু দেখে তাহলে তা বাড়ির মালিককে নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানিয়ে দিতে সক্ষম অ্যাস্ট্রো। অ্যাস্ট্রো অনেকটা বিজ্ঞান কল্পকাহিনিনির্ভর মুভি 'ওয়াল ই'-এর রোবটের মতোই। অ্যাস্ট্রোর সামনে একটি ডিজিটাল ডিসপ্লে প্লানেল রয়েছে। সেখানে বিভিন্ন অনুভূতি, মত ও অভিব্যক্তি প্রকাশ করে অ্যাস্ট্রো। রোবটটি কি হ্যাকিং হতে পারে- এমন প্রশ্নের জবাবে অ্যামাজান গ্রাহকদের নিশ্চিত করেছে, তাদের কাছে গ্রাহকদের নিরাপত্তা সবার আগে। তাই আমরা নিরাপত্তার বিষয়টি সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছি। যে কেউ চাইলে বাইরে থেকে এই রোবটের অ্যাক্সেস নিতে পারবে না। রোবটটির দাম এক হাজার ডলার। চলতি বছরের শেষে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে পাওয়া যাবে রোবটটি।

ইকো শো ১৫

ডিসপ্লেসহ স্মার্টস্পিকার 'ইকো শো ১৫' উন্মোচন করেছে অ্যামাজন। অ্যামাজনের হোম অ্যাম্পায়েন্স ডিভাইসের জগতে ইকো শো পরিবারের একটি নতুন সংযোজন। এটি মূলত একটি ডিসপ্লেসহ স্মার্ট স্পিকার। ডিভাইসটির ডিসপ্লে সাইজ ১৫.৬ ইঞ্চি, এতে রয়েছে ১০৮০ ইঞ্চির ফুল ডিসপ্লে। এটি দেয়ালে লাগানো যেতে পারে অথবা কাউন্টারে স্থাপন করা যেতে পারে পোর্ট্রেট বা ল্যান্ডস্কেপ ওরিয়েন্টেশনে। ডিভাইসটিতে রয়েছে অ্যামাজনের এজেড২ এজ নিউরাল প্রসেসর। ডিভাইসটির ডিসপ্লে কাস্টমাইজ করার সাজানো সুবিধা পাবেন গ্রাহকরা। নিয়মিত আবহাওয়ার খবর জানাবে ডিভাইসটি। এ ছাড়া চাইলে প্রতিদিনের কাজগুলো সাজিয়ে রাখা যাবে এই ডিভাইসে। অ্যামাজনের অন্য স্মার্ট ডিভাইস চাইলে এটির সঙ্গে যুক্ত করা যাবে। ডিভাইসটির দাম ২৫০ ডলার।

হ্যালো ভিউ: ফিটনেস ব্যান্ড

স্মার্ট ফিটনেস ডিভাইসের বাজারে পিছিয়ে থাকতে চায় না অ্যামাজন। তাই তো হ্যালো ভিউ নামে স্মার্টব্যান্ড বাজারে আনার ঘোষণা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। হ্যালো ভিউ মূলত একটি ফিটনেস ডিভাইস। ডিজাইন দেখতে অনেকটা শাওমির এমআই ব্যান্ডের মতোই। সুপার অ্যামলয়েড ডিসপ্লের এ ডিভাইসটি ব্যবহারকারীদের স্বাস্থ্যের দেখাশোনা করবে। একজন ব্যবহারকারী কত কিলোমিটার হাঁটাহাঁটি করেছেন, ক্যালরি কতটুকু খরচ হয়েছে, প্রতিদিন কতটুকু ক্যালরি খরচ করতে হবে ইত্যাদি তথ্য দেবে ডিভাইসটি। ব্যবহারকারীর হার্ট রেট ও শরীরের তাপমাত্রা পরিমাপ করতে পারে ডিভাইসটি। ডিভাইসটি পুরো চার্জ হতে সময় নেয় ৯০ মিনিট। আর যদি একবার চার্জ দেওয়া হয় তাহলে টানা সাত দিন ব্যাটারি ব্যাকআপ সুবিধা পাওয়া যাবে। হ্যালো ভিউয়ের মূল নির্ধারণ করা হয়েছে ৮০ ডলার।

অ্যামাজন গ্লো

পরিবারে বিশেষ করে শিশুদের জন্য ইন্টারেক্টিভ ডিভাইস অ্যামাজন গেল্গা। ডিভাইসটি ব্যবহার করে ভিডিও কল, গল্প পড়া, ছবি আঁকা এবং গেম খেলা যাবে। এটির ডিসপ্লে সাইজ ৮ ইঞ্চি এবং এতে একটি ট্যাবলেট প্রজেক্টর রয়েছে। এতে গেল্গা অ্যাপ বিল্টইন আকারে রয়েছে। ডিভাসইটির মাধ্যমে ভার্চুয়ালি অন্য পাশে থাকা ব্যক্তির সঙ্গে ভিডিও চ্যাট ও গেম খেলা যাবে। অ্যামাজন জানিয়েছে, ডিভাইসটি ব্যবহার করার জন্য হাজার হাজার বই এবং কয়েক ডজন ইন্টারেক্টিভ গেম রয়েছে। ডিজনি, ম্যাটেল এবং নিকেলোডিয়নের সঙ্গে মিলে গেমগুলো তৈরি করা হয়েছে। গেল্গা অ্যাপটি আইপ্যাড এবং অ্যান্ড্রয়েডে ট্যাবলেটের সঙ্গেও কাজ করে। ডিভাইসটির দাম ২৫০ ডলার।

বিলিংক ডোর বেল

বিলিংক ডোল বেল বাড়ির দরজায় থাকা স্মার্ট সিসিটিভি ক্যামেরার মতো কাজ করবে। এতে রয়েছে বাড়তি দারুণ কিছু সুবিধা। ডিভাইসটি একবার চার্জ করলে দুই বছর ব্যাটারি সুবিধা পাওয়া যাবে। সাধারণত সিসিটিভি ক্যামেরা সেটআপ করার জন্য অনেক তারের সংযোগের প্রয়োজন হয়। তবে এই ডিভাইসটিতে সেই ঝামেলা নেই। ওয়্যারলেসে ডিভাইসটি খুব সহজেই ঘরে বা অফিসের যে কোনো স্থানে স্থাপন করা যাবে। ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ড করতে পারে এই ডিভাইসটি। রয়েছে দু'দিকেই কথা বলার সুবিধা অর্থাৎ যে কেউ বিলিংক ডোর বেল ডিভাইসটির সামনে কথা বললে ঘরের ভেতর থেকে ব্যবহারকারীরা স্মার্টফোনের সাহায্যে সেই কথার উত্তর দিতে পারবেন। এ ছাড়া ডিভাইসটি সহেন্দমূলক কিছু দেখলে তা ব্যবহারকারীকে নোটিফিকেশনের মাধ্যমে জানিয়ে দেবে। ডিভাইসটির মূল্য ৫০ ডলার।

উড়ন্ত ক্যামেরা

রিং ক্যামেরা মূলত একটি উড়ন্ত সিসিটিভি ক্যামেরা। অ্যামাজনের স্মার্টহোম সিকিউরিটি ডিভিশন থেকে প্রকাশ করা সিকিউরিটি ড্রোনটি বাড়ির অভ্যন্তরের নিরাপত্তায় বিভিন্ন পয়েন্টে নিজে থেকেই উড়ে গিয়ে ফুটেজ সংগ্রহ করবে। ড্রোনটি এমনভাবে নকশা করা হয়েছে, যাতে বাসিন্দারা বাড়ির বাইরে গেলে তখন সক্রিয় হয়। এটি কেবল ঘরের অভ্যন্তরে এবং ভবনের একটি তলাতেই নজরদারি চালাবে। ডিভাইসটি যখন ব্যবহারের প্রয়োজন নেই, তখন ডকে অবস্থান করবে এবং ক্যামেরাটা বন্ধ থাকবে। তবে অপ্রত্যাশিতভাবে কেউ যদি দরজা খুলে ভেতরে প্রবেশ করে, তবে ফের সচল হবে এবং ভিডিও ফুটেজ পাঠিয়ে দেবে কর্তার ফোনে।

মন্তব্য করুন