ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত সিকিম একটি ছোট পার্বত্য রাজ্য। আজকাল অনেক বাংলাদেশী পর্যটকই সেখানে ঘুরতে যান। সুউচ্চ পর্বতমালা, সাজানো গ্রাম, মনোরম প্রাকৃতিক দৃশ্য, হ্রদ এবং প্রাচীন বৌদ্ধ বিহারগুলির কারণে সিকিম পর্যটকদের পছন্দের স্থানে পরিণত হয়েছে।

ডিসেম্বরে সিকিমের বেশিরভাগ অংশ বরফে আচ্ছাদিত থাকে

বছরের অন্যান্য সময় ভ্রমণ করা গেলেও সিকিমে ঘোরার জন্য ডিসেম্বর সবচেয়ে ভালো সময়। এ সময় এখানকার তাপামাত্রা ১০ থেকে ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে যায়। কখনও কখনও তা অবশ্য শূন্য ডিগ্রিতেও চলে যায়। এ সময় গোটা সিকিম রাজ্য বরফে আচ্ছাদিত থাকে। 

সিকিমের শান্ত প্রকৃতি পর্যটকদের প্রকৃতির কাছাকাছি পৌঁছে দেয়। যারা বরফের মধ্যে স্কেটিং করতে পছন্দ করেন তাদের জন্য এ জায়গাটি অত্যন্ত আকর্ষনীয়। এছাড়া অভিযানপ্রিয় কিংবা পর্বোতারোহীদের জন্যও সিকিম দারুণ একটি ভ্রমণের স্থান। 

এই শীতে সিকিম বেড়াতে গেলে কয়েকটা স্থান ঘুরে দেখতে পারেন। এর মধ্যে গুরুডংগার গেট, ইয়ামথাং, জুলুক, কালুক, দারাপ গ্রাম অন্যতম। এসব স্থানে গেলে পাহাড়ের চূড়ায় বরফের সমারোহ যেমন দেখতে পাবেন তেমনি বরফে ঢেকে যাওয়া হ্রদ, মনোরম সূর্যোদয় –সূর্যাস্তের দৃশ্য এবং সুন্দর প্রাকৃতিক দৃশ্যও দেখতে পাবেন।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর দারাপ গ্রাম

সিকিমে ঢুকতে হলে পশ্চিমবঙ্গ দিয়েই যেতে হয়। শিলিগুড়ি কিংবা গ্যাংটক থেকে নিয়মিত এখানে বাস যায়। 

এছাড়া ট্রেনে পশ্চিমবঙ্গ থেকে জলপাইগুড়ি নেমে জীপ, বাস এবং ট্যাক্সিতে করে গ্যাংটক যেতে পারেন।

এছাড়া কলকাতা থেকে আকাশপথে বাগডোগরা গিয়ে সেখান থেকে ট্যাক্সি করেও গ্যাংটক যাওয়া যায়। 

মন্তব্য করুন