নতুন বছর শুরু হতে যাচ্ছে। আগামী বছরে কোথায় কোথায় যাবেন তা নির্ধারণ করতে পারেন বছরের শুরু থেকেই। জানুয়ারিতে যারা ঘোরাঘুরির পরিকল্পনা করছেন তারা বেছে নিতে পারে এমন কিছু জায়গা। যেমন-

গুজরাট : ভারতের গুজরাট রাজ্যে এ সময় চলে রান উৎসব। প্রাণবন্ত এবং বর্ণাঢ্য এ উৎসবের মাধ্যমে রাজ্যের শিল্প-সংস্কৃতি ফুটে ওঠে। গুজরাট এবং গোটা দেশ থেকে কারিগররা এ উৎসব উপলক্ষে একত্রিত হয়। 

গুজরাটে চলে রান উৎসব


বিশ্বের বৃহত্তম লবণের মরুভূমি হিসেবে খ্যাত রান অব কুচে এ সময় ভালো সময় কাটাতে পারবেন। কারণ জানুয়ারিতে এখানে সূর্যের তাপমাত্রা অতটা তীব্র হয় না। 

কেরালা : ভারতের কেরালায় ভ্রমণের সবচেয়ে দারুণ সময় হচ্ছে জানুয়ারি মাস । এসময় পানির পাশে বসে বিকেল কাটানো কিংবা মান্নারের সবুজ অঞ্চলে ঘোরার মতো আনন্দ অন্য সময় পাওয়া যায় না। 

কানহা ন্যাশনাল পার্ক :  যদি জানুয়ারির কুয়াশাচ্ছন্ন সকালে বাঘ দেখার ইচ্ছে থাকে তাহলে ভারতের মধ্যপ্রদেশের কানহা ন্যাশনাল পার্কে যেতে পারেন। বন্যজীবন দেখার কিংবা ছবি তোলার জন্য এ জায়গাটি অন্যতম আকর্ষণীয় একটি স্থান। বন্যজীবনের অন্যরকম অভিজ্ঞতা নিতে থাকতে পারেন বনের কুটিরগুলোতে।

কানহা ন্যাশনাল পার্কে দেখতে পাবেন বন্য জীবন


সিঙ্গাপুর : জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে সিঙ্গাপুরে বড়দিন এবং বর্ষবরণের আমেজ থাকে। 

এসময় গোটা সিঙ্গাপুর এমন আলোতে সজ্জিত থাকে  যা অন্য সময় পাওয়া কঠিন। এছাড়া জানুয়ারিতে কেনাকাটায় ব্যাপক ছাড়ও থাক। যারা শপিং করতে পছন্দ করেন তারা এসময় গেলে আনন্দ পাবেন।

থাইল্যান্ড : গোটা থাইল্যান্ডই এখন পর্যটকদের কাছে প্রিয় হয়ে উঠেছে। ভিড় পছন্দ না করলে এসময় প্রকৃতির কাছাকাছি নির্জন কোনো জায়গা বেছে নিতে পারেন।  সিঙ্গাপুরের মতোই থাইল্যান্ডেও এসময় নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে সুসজ্জিত থাকে। এসময় এখানে দলবেঁধে পার্টি করলে আনন্দ পাবেন।

থাইল্যান্ডে যেতে পারেন প্রকৃতির কাছাকাছি


বালি : ইন্দানেশিয়ার পর্যটনস্থল বালি সবসময়ই আকর্ষণীয়। তারপরও জানুয়ারি মাসে এ সৌন্দর্য অন্য মাত্রা নেয়। 

এ সময় আবহাওয়া থাকে চমৎকার । সেই সঙ্গে সৈকতে চলে নানারকম পার্টির আয়োজন। এছাড়া কেনাকাটাতে ছাড় দেওয়া হয় এ সময়ে। যারা একাকী ভ্রমণে আনন্দ পান তাদের জন্যও বালি দারুণ এক স্থান। এখানে এমন সব সৌন্দর্য লুকিয়ে আছে যা সব ধরনের পর্যটককেই মুগ্ধ করে ।