শুরু হয়েছে নতুন বছর। অনেকেই বছরের শুরু থেকে নানা জায়গায় যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন। যারা শীত পছন্দ করেন তারা ভ্রমণের জন্য যেতে পারেন প্রতিবেশী দেশ ভারতে। শীতের এ সময় ঘুরে আসতে বরফে আচ্ছাদিত সব স্থানে। 

গুলমার্গ, জম্মু ও কাশ্মীর : কোনো বর্ণনাই গুলমার্গের স্বর্গীয় সৌন্দর্য বর্ণনা করার জন্য যথেষ্ট নয়। বিশেষ করে যখন এ শহরে বরফ পড়া শুরু হয় তখন এর সৌন্দর্য বহু গুণ বেড়ে যায়। গন্ডোলার ক্যাবল কারে চড়া কিংবা স্কিং করার মতো দুঃসাহসিক সব অভিযান চালানোর জন্য এ সময়টা উপযুক্ত। এছাড়া বরফে চলার জন্য উপযুক্ত কিছু মোটর রাইডেও চড়তে পারবেন এ সময়। জানুয়ারির মাঝামাঝি পর্যন্ত এ শহরে বরফ পড়ে। 

অলি, উত্তরখান্ড


অলি, উত্তরখান্ড : তৃষার বৃষ্টি দেখতে চাইলে যেতে পারেন উত্তরখান্ডের অলিতে। তুষার বরফ আচ্ছাদিত এ রাজ্যে দুঃসাহসিক অভিযানের স্বাদ নিতে চড়তে পারেন ক্যাবল কারে।স্কিং-ও উপভোগ করতে পারেন এখানে। 

মানালি


সোনামার্গ, জন্মু ও কাশ্মীর : জম্মু ও কাশ্মীর প্রদেশের আরেকটি অসাধারণ স্থান হচ্ছে সোনামার্গ। মধ্য জানুযারি পর্যন্ত এ অঞ্চলে তুষারপাত হয়। সোনামার্গ এর অবস্থান শ্রীনগর-লাদাখ মহাসড়কের পাশে। বরফের এ রাজ্যে মেতে উঠতে পারেন দুঃসাহসিক সব অভিযানে। 

ইয়ুমথাং, সিকিম


মানালি, হিমাচল : মালানি এবং এর আশপাশের এলাকায় শীতের সময় প্রচুর তুষারপাত হয়। ভারতের হিমাচল প্রদেশের কুলু জেলায় এর অবস্থান ।প্রকৃতির অপার সৌন্দর্যের দেখা পাবেন গোটা মানালি জুড়ে। শীতে মানালির পুরোটাই বরফে ঢেকে যায়। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটকরা এখানকার তুষারপাত দেখতে ভিড় করেন।

ইয়ুমথাং, সিকিম : ইয়ুমথাং সিকিমের একটি পর্যটন কেন্দ্র। এটি ফুলের উপত্যকা হিসেবেও পরিচিত। ভারতের উত্তর-পূর্ব দিকের এ স্থানে জানুয়ারিতে মাসেও তুষার বৃষ্টি দেখা যায়।