ভ্রমণ লেখকদের মিলনমেলা হয়ে গেলো শুক্রবার। বাংলাদেশ ট্রাভেল রাইটার্স অ্যাসোসিয়োশনের উদ্যোগে আয়োজনটির নাম ছিল 'ট্রাভেল কার্নিভাল ২০২১'।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বল্প পরিসরে ৪ ঘণ্টার এই কার্নিভালের প্রধান আকর্ষণ ছিলেন ভ্রমণ লেখকরা। ভ্রমণপ্রেমী মানুষের সান্নিধ্যে এই আয়োজনের অন্যতম পর্ব ছিল ভ্রমণ বিষয়ক বই আলোচনা। এই পর্বে ৫ জন লেখক হলেন, রুহুল আমিন শিপার, তৌফিক রহমান, জাকারিয়া মন্ডল, সেলিম সোলায়মান ও এস এম সাজ্জাদ হোসেন। স্বরচিত ভ্রমণ-বই নিয়ে আলোচনা করেন তারা।

লেখকদের অভিজ্ঞতা, বই সংক্রান্ত তথ্য প্রদান এবং উপস্থিত শ্রোতা/পাঠকদের প্রশ্নোত্তরে প্রাণবন্ত সেশন ছিল এটি। সেশনটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ ট্রাভেল রাইটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল ও শাকিল বিন মুশতাক।

ভ্রমণ দেশ উপস্থাপনা পর্বে ভ্রমণ দৃষ্টিকোণ থেকে একটি দেশের ওপর আদ্যোপান্ত উপস্থাপন করা হয়। উদ্বোধনী কার্ণিভালে এবারের পর্বে নেপালে ভ্রমণের সাতকাহন নিয়ে আলোচনা হয়। অ্যাডভেঞ্চার ট্রাভেলিং নিয়ে কথা বলেন ভ্রমণ লেখক ও ফটোগ্রাফার হোমায়েদ ইসহাক মুন। এভারেস্ট বেস ক্যাম্পে তার ভ্রমণের অভিজ্ঞতা সবার সামনে তুলে ধরেন। এছাড়াও ছিল বাংলাদেশের প্রখ্যাত আলোকচিত্রশিল্পী আবির আব্দুল্লাহর ভ্রমণ আলোকচিত্র নিয়ে সেশন।

দেশের ভ্রমণ সাহিত্যের বর্তমান অবস্থা ও প্রকাশনার প্রেক্ষাপট নিয়ে কথা বলেন উৎস প্রকাশনার প্রকাশক মোস্তফা সেলিম। লেখক-প্রকাশক মত-বিনিময়ের এই পর্বে লেখকদের প্রত্যাশা এবং প্রকাশকদের চাহিদা প্রসঙ্গে আলোচনা হয়। প্রাণবন্ত আড্ডা-আলোচনায় ভ্রমণ লেখক, প্রকাশক, সাংবাদিক, ফটোগ্রাফার, ট্রাভেলারদের এক মিলনমেলায় পরিণত হয়েছিল কার্ণিভালটি।

বই আলোচনা পর্ব শেষে লেখকের বই বিক্রি, অটোগ্রাফ সংগ্রহ এবং ফটোসেশনে উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়। বাংলাদেশ ট্রাভেল রাইটার্স অ্যাসোসিয়োশন সভাপতি আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল সমাপনী বক্তব্যে সবাইকে কার্নিভাল সফল করায় কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।