বোয়িংয়ের ম্যাক্স ৭৩৭ বিমান নির্মাণ সাময়িকভাবে বন্ধের ঘোষণা

প্রকাশ: ১৭ ডিসেম্বর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের বিমান নির্মাতা কোম্পানি বোয়িং তাদের ম্যাক্স ৭৩৭ বিমানের নির্মাণ সাময়িকভাবে বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। ইথিওপিয়া ও ইন্দোনেশিয়াতে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে ৩০০ এর বেশি যাত্রী নিহত হয়। এ দু'টি দুর্ঘটনার পর বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশে বোয়িং ম্যাক্স ৭৩৭ মডেলের বিমান উড্ডয়ন বন্ধ ছিল। এরপরও বোয়িং কোম্পানি ম্যাক্স ৭৩৭ মডেলের বিমান তৈরি অব্যাহত রাখে। প্রতিষ্ঠানটি এখন জানিয়েছে, আগামী জানুয়ারি মাস থেকে তারা উৎপাদন বন্ধ রাখবে। খবর বিবিসির।

সিয়াটলে অবস্থিত উড়োজাহাজ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বৃহৎ রপ্তানিকারক। বোয়িং আশা করেছিল, চলতি বছরের শেষের দিকে এই বিমান আবারো উড্ডয়ন করতে পারবে। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের বিমান নিয়ন্ত্রণ সংস্থা এটা পরিষ্কার বলেছিল, এতো তাড়াতাড়ি ম্যাক্স ৭৩৭ মডেলের বিমানকে পুনরায় সনদ দেওয়া হবে না।

এক বিবৃতিতে বোয়িং কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ম্যাক্স ৭৩৭ বিমানকে নিরাপদে আকাশে ফিরেয়ে আনার বিষয়টিকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

গত সপ্তাহে মার্কিন কংগ্রেসের এক শুনানিতে বলা হয়েছিল, ইথিওপিয়ায় প্রথম দুর্ঘটনার পর আরও একটি দুর্ঘটনার ঝুঁকি সম্পর্কে অবহিত ছিল যুক্তরাষ্ট্রের বিমান নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা। ফেডারেল এভিয়েশন অথরিটির এক বিশ্লেষণে উল্লেখ করা হয়, বোয়িং ম্যাক্স ৭৩৭ মডেল বিমানের ডিজাইনে পরিবর্তন না করা হলে এর মেয়াদকালে এক ডজনেরও বেশি বিমান বিধ্বস্ত হতে পারে। এরপরও ম্যাক্স ৭৩৭ বিমানের উড্ডয়ন বন্ধ করা হয়নি। পরে ২০১৯ সালের মার্চ মাসে ইথিওপিয়ায় দ্বিতীয় দুর্ঘটনা ঘটে। 

ম্যাক্স ৭৩৭ মডেলের বিমান তৈরি বন্ধ রাখার কারণে এরই মধ্যে সংস্থাটি নয় বিলিয়ন ডলার ক্ষতির মুখে পড়েছে। গত সোমবার বোয়িং-এর শেয়ারের দাম ৪% পর্যন্ত পড়ে গেছে। বোয়িং বলছে, তাদের কাছে ম্যাক্স ৭৩৭ মডেলের ৪০০ উড়োজাহাজ জমা রয়েছে। এসব উড়োজাহাজ ক্রেতাদের কাছে তুলে দেওয়ার বিষয়টিতে তারা বেশি মনোযোগ দেবে।

বিশ্বের বহু এয়ারলাইন্স ম্যাক্স ৭৩৭ মডেলের উড়োজাহাজের জন্য বোয়িংয়ের কাছে অর্ডার দিয়েছিল। কিন্তু সেগুলো ক্রেতাদের কাছে সেসব উড়োজাহাজ তুলে দেয়া হয়নি। কারণ বোয়িং-এর প্রকৌশলীরা ম্যাক্স ৭৩৭ উড়োজাহাজের সফটওয়্যার ঠিক করছেন।