ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে আমন্ত্রণ করায় বিতর্কে সিইএস প্রধান

প্রকাশ: ০৫ জানুয়ারি ২০২০     আপডেট: ০৫ জানুয়ারি ২০২০      

অনলাইন ডেস্ক

ইভাঙ্কা ট্রাম্প- ফাইল ছবি

প্রযুক্তি বিষয়ক এক অনুষ্ঠানে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ট ট্রাম্পের মেয়ে ইভাঙ্কা ট্রাম্পকে অতিথি করায় বিতর্ক শুরু হয়েছে। 

‘সিইএস টেক এক্সপো’র ওই অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে বক্তব্য উপস্থাপনের কথা রয়েছে ইভাঙ্কার। এই ঘোষণার পরপরই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বিরোধিতায় নেমেছেন অনেকে। 

তবে ‘সিইএস টেক এক্সপো’র প্রধান গ্যারি সাপিরো বলেছেন, একজন তরুণ প্রযুক্তি উদ্যোক্তা হিসেবে দারুণ কাজ করেছেন ইভাঙ্কা। তার কাজ ভবিষ্যতে চাকরি গ্রহীতাদের উন্নয়নে কাজ লাগবে।

সমালোচকরা বলছেন, বেশি দক্ষতা থাকা সত্ত্বেও অনেক নারী সিইএস টেক এক্সপোতে বক্তব্য রাখার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। আর শুধু হাই প্রোফাইলের কারণে ইভাঙ্কাকে সেই সুযোগ পেয়ে গেছেন।  

সমালোচকদের এমন বক্তব্য মানতে মোটেও রাজি নন গ্যারি সাপিরো। 

বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, 'আগামী দিনে চাকরির ক্ষেত্রে অনেক বিষয়ে মনোযোগ দেওয়ার আছে। সেই সঙ্গে ইভাঙ্কা ট্রাম্প কি করছেন সেদিকে আমাদের আলাদা মনোযোগ আছে।'

তিনি আরও বলেন, ‘মার্কিন সরকার প্রযুক্তি ব্যবসার মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতে কীভাবে কাজ করছে সেটাও জানা দরকার।’

গ্যারি বলেন, ইভাঙ্কা মার্কিন প্রেসিডেন্টের জব ক্রিয়েশন অ্যাডভাইজার হিসেবে কাজ করছেন। সুতরাং তাকে এ ধরনের অনুষ্ঠানের মূলপর্বে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ দেওয়া মোটেও ভুল সিদ্ধান্ত নয়। 

অনেকের ধারণা, ইভাঙ্কাকে ওই অনুষ্ঠানে আনার জন্য হোয়াইট হাউসের চাপ রয়েছে। তবে গ্যারি সাপিরো ওই ধারণা উড়িয়ে দিয়ে বলেন, ইভাঙ্কাকেএক্সপোতে হাজির করা তার একমাত্র উদ্দেশ্য নয়। এ ব্যাপারে হোয়াইট হাউস থেকেও কোন চাপ নেই।

কিছুদিন আগে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ইভাঙ্কা ট্রাম্প সিইএস টেক এক্সপোর একটি সেশনে প্রযুক্তিখাতে চাকরির ভবিষ্যত নিয়ে আলোচনা করবেন। 

এরপর একশ'র বেশি টুইটার ব্যবহারকারী বয়কট হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে বিষয়টি নিয়ে আপত্তি জানান। 

ক্যারোলিনা মিলানেসি নামে এক ব্লগার লিখেছেন, ট্রাম্পের চাপপাশে প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করে এমন অনেক নারী উদ্যোক্তা রয়েছেন যারা প্রযুক্তি কীভাবে ভবিষ্যত কাজে প্রভাব ফেলবে তা ভালো জানেন।

আগামী ৭ জানুয়ারি সিইএস টেক এক্সপোর মঞ্চে ইভাঙ্কার সাক্ষাৎকার নেওয়ার কথা রয়েছে।