ঢাকা রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

ডাস্টবিন থেকে নবজাতক উদ্ধার, মাসহ আটক ৫

ডাস্টবিন থেকে নবজাতক উদ্ধার, মাসহ আটক ৫

প্রতীকী ছবি

পীরগঞ্জ ( রংপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১১:১৮ | আপডেট: ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১১:৪৩

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেপের ডাস্টবিন থেকে মঙ্গলবার এক নবজাতককে উদ্ধার করেছেন হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মীরা। পরদিন বুধবার দুপুরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় শিশুটিকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় শিশুটির মা ও চার যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

আটক চার যুবক হলো- জাফরপাড়ার শ্যামদাসের পাড়ার বাদশা মিয়ার ছেলে চতরা ডিগ্রি কলেজের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের অনার্স প্রথম বর্ষের ছাত্র আরিফুল ইসলাম, উপজেলার সরলা-চান্দেরপাড়ার মৃত বিমল চন্দ্র সরকারের ছেলে তাপস সরকার, ধনশালা হিন্দুপাড়ার সুবল চন্দ্র রায়ের ছেলে সঞ্চিত কুমার রায় ও গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুরের আতাউর রহমানের ছেলে রাহেল সরকার। তারা সবাই টিভিএস শোরুমের কর্মচারী ও মেকানিক। আটক নবজাতকের কিশোরী মাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নেপথ্য কাহিনি: পীরগঞ্জ থানার ওসি (অপারেশন) মাহবুবুর রহমান জানান, মোবাইল ফোনে নবম শ্রেণির ছাত্রী ওই কিশোরীর পরিচয় হয় টিভিএস মোটরসাইকেল সার্ভিসিং সেন্টারের কর্মচারী রাহেল সরকারের সঙ্গে। এ থেকে প্রেম। গত বছরের ২৯ জুন থানার কাছে ফারুক এন্টারপ্রাইজ নামে টিভিএস মোটরসাইকেল সার্ভিসিং সেন্টারের পেছনের ঘরে মেয়েটিকে ডেকে আনে রাহেল। এ সময় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে রাহেল। এরপর তার অন্য তিন সহযোগী ওই ঘরে এসে মেয়েটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ওই ঘটনার পর মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। এভাবেই কেটে যায় আট মাস। গত মঙ্গলবার প্রসব বেদনা শুরু হলে ওই কিশোরী একটি ভ্যানে করে পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেপের জরুরি বিভাগে আসে। এরই মধ্যে ভ্যানচালক পালিয়ে যায়। জরুরি বিভাগে কর্মরত স্বাস্থ্যকর্মীরা কিশোরীর পরিচয় জানতে চান। এরপর কাউকে কিছু না বলে মেয়েটি দোতলায় উঠে পড়ে। হাসপাতালের বারান্দায় নিজে নিজেই সন্তান প্রসব করিয়ে নিচে আবর্জনার স্তূপে নবজাতককে ফেলে পালিয়ে যায় সে। নবজাতকের কান্নার শব্দে হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মীরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে। ওই সময় কিশোরীর নানা হাসপাতালে এসে নাতনিকে খুঁজতে এলে স্থানীয় লোকজন তাকে আটক করে। এরপর তার দেওয়া তথ্যে প্রথমে কিশোরী মাকে আটক এবং মেয়েটির কাছে সব শুনে অভিযুক্ত চার যুবককে আটক করা হয়।

পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র জানান,  বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরীর মা থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আটক চার যুবককে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন

×