ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

বিদ্যুৎ লাইনে প্লাস্টিক মুড়িয়ে ঝুঁকি নিয়ে ভবন নির্মাণ

বিদ্যুৎ লাইনে প্লাস্টিক মুড়িয়ে ঝুঁকি নিয়ে ভবন নির্মাণ

ছবি: সংগৃহীত

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৩ নভেম্বর ২০২২ | ১২:০০ | আপডেট: ০৪ নভেম্বর ২০২২ | ০০:৩১

ওপরে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎ লাইন, নিচে একতলা ভবন। ভবনটি দোতলা করতে গিয়ে কোনো ধরনের অনুমোদন নেওয়া হয়নি। নিজ উদ্যোগেই তারে প্লাস্টিকের কভার লাগিয়েছেন। এমন ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করে ছাদের ঢালাইও করেছেন রুহুল আমিনের এক ব্যক্তি। তিনি নান্দাইল উপজেলার তারঘাট বাজারের ব্যবসায়ী।

গত বুধবার তারঘাট গিয়ে দেখা গেছে, বাজারের একেবারে উত্তর পাশে মাদ্রাসার পেছনে পূর্ব-পশ্চিম সারিতে অসংখ্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রুহুল আমিনের একতলা ভবন। সেখানে তাঁর হলুদ-মরিচ ভাঙানোর কল রয়েছে। ঘরের ওপর দিয়েই চলে গেছে 'ফোর ফরটি' ক্ষমতাসম্পন্ন পল্লী বিদ্যুতের চারটি তার। সম্প্রতি দোকান ঘরটি দোতলা করছেন তিনি। এ জন্য প্রয়োজনীয় পিলারও তৈরি করা হয়। ছাদ করার সময় দেখতে পান বিদ্যুতের তার ছাদ ছুঁই ছুঁই অবস্থানে। এরপরও কাজে বিরত থাকেননি মালিক। কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না নিয়েই ছাদের ওপর বিদ্যুতের চারটি তার প্লাস্টিকের পাইপ কিনে মুড়িয়ে দেন তিনি। ঢালাই দেওয়ার সময় বিকল্প খুঁটি লাগিয়ে এসব তার উঁচু করে রাখা হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, মুসুলী পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের অসাধু কর্মচারীদের সহায়তায় তার কভারে মোড়ানোর সাহস পেয়েছেন রুহুল আমিন। সবুজ মিয়া ও আবুল মিয়া নামে দুই প্রত্যক্ষদর্শী জানান, যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

খোঁজ নিতে গিয়ে রুহুল আমিনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ পাওয়া গেছে। মোবাইল ফোন নম্বর সংগ্রহ করে যোগাযোগ করলে তাঁর ছেলে মো. রাব্বি জানান, তাঁর বাবা ৪০ দিনের চিল্লায় রাজশাহী গেছেন। তারে প্লাস্টিকের কভার লাগানো সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'যা করেছি না বুঝে করেছি। এখন কর্তৃপক্ষের কাছে খুঁটি একটু উঁচু করে দেওয়ার আবেদন করেছি।'

মুসুলী পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের প্রকৌশলী শামীম মিয়া জানান, তাঁদের জড়িত থাকার অভিযোগ সত্য না। ভবন মালিক তাঁদের কিছু না জানিয়েই কাজটি করেছেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন তিনি।

পল্লী বিদ্যুতের নান্দাইল জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার বিপ্লব চন্দ্র সরকার বলেন, ভবন মালিক অনুমোদন না নিয়েই কাজটি করেছেন। এখন আবার লাইন সরানো বা উঁচু করে দেওয়ার আবেদন করেছেন। নিয়ম অনুযায়ী সব খরচ বহন করলে কাজটি করে দেবেন তাঁরা।

আরও পড়ুন

×