ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন নিয়েই আলোচনায় বুঁদ নেতাকর্মীরা

নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন নিয়েই আলোচনায় বুঁদ নেতাকর্মীরা

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০২ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২:০০ | আপডেট: ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ০০:৪২

ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন আজ শনিবার। তবে কাদের হাতে নেতৃত্ব যাচ্ছে, তা নিয়েই কয়েক দিন ধরে চলছে নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনা। নেতৃত্বে চমক আসতে পারে বলে ধারণা অনেকের। ছয় বছর পর আজকের সম্মেলনে অন্তত এক লাখ লোকের সমাগম হবে বলে দাবি দলটির নেতাদের। সম্মেলন ঘিরে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পাঁচ শতাধিক পুলিশ মোতায়েন এবং সমাবেশ স্থল সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ময়মনসিংহ নগরীর সার্কিট হাউস ময়দানে আওয়ামী লীগের এ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। সকাল ১১টার দিকে সম্মেলন শুরু হওয়ার কথা। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সম্মেলন উদ্বোধন করবেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী। অতিথি থাকবেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক। প্রধান বক্তা হিসেবে থাকবেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

সবশেষ ২০১৬ সালের ৩০ এপ্রিল ময়মনসিংহ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়। পরে একই বছরের ১০ অক্টোবর অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকাকে সভাপতি এবং অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুলকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এ ছাড়া মহানগর কমিটিতে এহতেশামুল আলম সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মোহিত উর রহমান শান্তর নাম ঘোষণা করা হয়।

সম্মেলনের জন্য মাঠের উত্তর পাশে নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে দৃষ্টিনন্দন মঞ্চ। যার দৈর্ঘ্য ১২০ ফুট ও প্রস্থ ৮০ ফুট। গত ২৬ নভেম্বর থেকে প্রায় অর্ধশত শ্রমিক এ মঞ্চ তৈরিতে

কাজ করেছেন। মঞ্চটিতে একসঙ্গে বসতে পারবেন ২০০ নেতা। শুক্রবার শেষ হয়েছে মঞ্চ তৈরির কাজ।

সম্মেলন স্থলে গিয়ে দেখা গেছে, মঞ্চের ওপর বিশাল আকৃতির একটি প্যানা টানানো। যেখানে ডান পাশে বঙ্গবন্ধু এবং বাঁ পাশে আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি রয়েছে। শোভা পাচ্ছে সরকারের মেগা প্রকল্পের ফিরিস্তি।

আজকের সম্মেলনে কেন্দ্রীয় নেতারা জেলা ও মহানগর কমিটির নতুন নেতৃত্ব ঘোষণা করবেন বলে জানা গেছে। নতুন নেতৃত্ব কাদের হাতে যাচ্ছে, এ নিয়ে কয়েক দিন ধরে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। পুরো নগরী নেতাদের পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন আর তোরণে
ছেয়ে গেছে।

জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে আসতে পারেন বলে আলোচনায় রয়েছেন- বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক খোকা, সহসভাপতি ফারুক আহমেদ খান, গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরিফ আহমেদ, সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমানের ছেলে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহিত-উর রহমান শান্ত, বর্তমান জেলা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এমএ কুদ্দুস ও শওকত জাহান মুকুল। মহানগরে নেতৃত্ব পেতে পারেন বলে আলোচনায় রয়েছেন- সিটি মেয়র ইকরামুল হক টিটু, বর্তমান সভাপতি এহতেশামুল আলম, অ্যাডভোকেট সাদেক খান মিল্ক্কী, অধ্যাপক গোলাম ফেরদৌস জিলু ও হোসাইন জাহাঙ্গীর বাবু।
জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবু সাঈদ দীন ইসলাম ফখরুল বলেন, সম্মেলনে অন্তত এক লাখ লোকের সমাগম হবে। ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে নতুন নেতৃত্ব ঘোষণা করা হবে।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহ কামাল আকন্দ বলেন, সম্মেলনের পুরো জায়গা সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। বিশৃঙ্খলা এড়াতে মোতায়েন করা হয়েছে পাঁচ শতাধিক পুলিশ। গোয়েন্দা নজরদারিও রয়েছে।

আরও পড়ুন

×