ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

গোলাপগঞ্জে সেতুর অভাবে দুর্ভোগ

গোলাপগঞ্জে সেতুর অভাবে দুর্ভোগ

গোলাপগঞ্জের বিয়ামারা নদীর ওপর নির্মিত বাঁশের সাঁকো দিয়ে এভাবেই পার হন স্থানীয়রা - সমকাল

গোলাপগঞ্জ (সিলেট) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ২৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২:০০ | আপডেট: ২৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ০৩:০৬

একটি সেতুর অভাবে শীলঘাট-রংপুর এলাকার কয়েক হাজার মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। যোগাযোগের বিকল্প ব্যবস্থা না থাকায় গোলাপগঞ্জ উপজেলার আমুড়া ইউপির শীলঘাট এলাকায় কুশিয়ারায় মিলিত হওয়া বিয়ামারা নদীর ওপর নির্মাণ করা হয়েছে দীর্ঘ বাঁশের সাঁকো। তবে এ সাঁকো দিয়ে চলাচলের সময় প্রতিনিয়ত ঘটছে নানা দুর্ঘটনা।

এলাকা ঘুরে দেখা যায়, চাতল বিল থেকে উৎপত্তি হওয়া শীলঘাট এলাকা দিয়ে প্রবাহিত কুশিয়ারা নদীতে মিলিত হওয়া খালটি পাড় ভেঙে বড় হয়ে একসময় স্থানীয়দের কাছে বিয়ামারা নদী নামে পরিচিতি লাভ করে। নদীর উত্তরে রংপুর, শিকপুর এবং দক্ষিণে শীলঘাট কুমারপাড়া, শীলঘাট-২ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা ও প্রতিষ্ঠান অবস্থিত। বিভিন্ন প্রয়োজনে গ্রামের মানুষ প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে সরু বাঁশের সাঁকো দিয়ে নদী পার হয়। সৈয়দা আদিবা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী সুরাইয়াসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী জানায়, প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে তাদের নদী পার হতে হয়। বর্ষায় দুঃসহ যন্ত্রণা পোহাতে হয়।

শীলঘাট গ্রামের বাসিন্দা প্রবাসী সানোহর আহমদ জানান, প্রতি আশ্বিনে স্থানীয়দের উদ্যোগে সাঁকো নির্মাণ করা হলেও দুর্ভোগ চলে বছরজুড়ে।

শীলঘাট-২ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফয়জুল হাসান জানান, বিয়ামারা নদীর অপরপ্রান্ত থেকে প্রতিদিন শতাধিক শিশু বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়া করে। বর্ষায় তাদের বড় অংশ বিদ্যালয়ে আসতে পারে না।

আমুড়া ইউপি চেয়ারম্যান হাসিন আহমদ মিন্টু জানান, এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি এখানে একটি সেতু নির্মাণের। সরকারি উদ্যোগে তা বাস্তবায়িত হলে তাঁদের কষ্ট দূর হবে।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী মাহমুদুল হাসানের ভাষ্য, ছোটখাটো সেতু হলে অনেক সময় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে নির্মাণ করা সম্ভব হয়।

আরও পড়ুন

×