ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

'ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিয়ে' দেওয়ায় বাবার গলায় ছুরি

পুলিশ কর্মকর্তার মামলায় দুই মেয়ে কারাগারে

পুলিশ কর্মকর্তার মামলায় দুই মেয়ে কারাগারে

প্রতীকী ছবি

রংপুর অফিস

প্রকাশ: ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ১৮:০০ | আপডেট: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ | ০৭:৩৩

রংপুরের পীরগাছায় 'ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিয়ের' আয়োজন করায় কনের ছুরিকাঘাতে আহত হয়েছেন এক বাবা। এ ঘটনায় শনিবার ভুক্তভোগীর মামলায় দুই মেয়েকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। এদিকে আহত রংপুর রেঞ্জ রিজার্ভ ফোর্সের (আরআরএফ) এসআই ফজল মাহমুদ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তিনি শঙ্কামুক্ত নন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

শুক্রবার রাত ১০টার দিকে পীরগাছার তালুকইসাদ দাঁরারপাড় গ্রামে বাবাকে আহতের পরপরই দুই মেয়ে ফারজানা আক্তার ও ফারহানা আক্তারকে আটক করা হয়। ফারজানার সঙ্গে তিন মাস আগে নৌবাহিনীতে কর্মরত এক যুবকের বিয়ে নিবন্ধন হয়। শুক্রবার ছিল বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ফজল মাহমুদের সঙ্গে থাকা দূরসম্পর্কের শ্যালক বদরুল আলম জানান, বড় মেয়ের ইন্ধনে ছোট মেয়ে এন্টিকাটার দিয়ে বাবার গলায় আঘাত করেন। এতে তাঁর গলায় ১০ সেন্টিমিটার গভীর ক্ষত ও সাতটি ভেইন কাটা পড়েছে। ১৮টি সেলাই দিতে হয়েছে। গলার ডান পার্শ্ব থেকে কান পর্যন্ত অবশ, কিছুই শুনতে পাচ্ছেন না। কর্তব্যরত চিকিৎসক অনামিকা জানান, ফজল মাহমুদের বিষয়ে এখনও নিশ্চিত করে কিছু বলা যাচ্ছে না। গলার ক্ষত খুব গভীরে, সেরে উঠতে সময় লাগবে।

পীরগাছা থানার ওসি মাসুমুর রহমান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে দুই মেয়ের কাছ থেকে তেমন কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন

×