ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

নবাবগঞ্জে করোনা আক্রান্তের স্বজনসহ ১২ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

নবাবগঞ্জে করোনা আক্রান্তের স্বজনসহ ১২ পরিবার কোয়ারেন্টাইনে

দোহার (ঢাকা) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০২০ | ০১:৩০

ঢাকার নবাবগঞ্জে সৌদিফেরত এক প্রবাসীর শরীরে করোনা শনাক্ত হওয়ার পর তার পরিবারের সদস্যসহ আশপাশের ১২টি পরিবারকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রেখেছে উপজেলা প্রশাসন। 

আক্রান্ত ব্যক্তি নবাবগঞ্জ উপজেলার বাহ্রা ইউনিয়নের মাইলাল এলাকার বাসিন্দা। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর আইইডিসিআর থেকে একটি টিম মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নবাবগঞ্জেে গিয়ে তাকে চিকিৎসার জন্য ঢাকার উত্তরার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে ভর্তি করান।

নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এইচ এম সালাউদ্দিন মনজু সমকালকে জানান, কয়েকদিন আগে সৌদিআরব থেকে বাড়িতে আসেন ওই প্রবাসী। এরপর তার মধ্যে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হওয়ার বিভিন্ন উপসর্গ দেখা দিলে তার শরাীর থেকে ও এই উপজেলার আরও তিনজনের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এ পাঠানো হয়। গত মঙ্গলবার বিকেলে পরীক্ষার রির্পোটে ওই প্রবাসীর শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়। বাকি তিনজনের শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়নি। 

তিনি আরো বলেন, ওই প্রবাসী যেহেতু করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন সেহেতু সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে তার বাড়ি এবং আশপাশের আরও ১২টি বাড়ির লোকজনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে। তাদের যেন কোনো অবস্থাতেই বাসা থেকে বের হতে না হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় সব কিছু উপজেলা প্রশাসন সরবরাহ করবে। 

নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার, পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শহীদুল ইসলাম সমকালকে জানান, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ওই ব্যক্তি যাদের সাথে উঠা-বসা, চলাফেরা করেছেন এ রকম ৪৮ জনের একটি তালিকা তারা প্রস্তুত করা হয়েছে। প্রয়োজনে তাদের শরীর থেকে রক্ত সংগ্রহ করে নমুনা পরীক্ষা করা হবে। 

নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোস্তফা কামাল বলেন, ওই বাড়িগুলোতে হোম কোয়ারেন্টাইনের ব্যানার ও লাল নিশানা টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। কেউ নিয়ম না মানলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দোহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাজ্জাদ হোসেন বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পুলিশ প্রশাসন মাঠে কাজ করেছে। নবাবগঞ্জে একজন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ায় দোহারবাসীকে আরো সর্তক হতে হবে। বিনা প্রয়োজনে বাইরে বের না হয়ে বাড়িতে অবস্থান করুন।

দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফরোজা আক্তার রিবা বলেন, যেহেতু দোহার ও নবাবগঞ্জ দুটি উপজেলার দূরত্ব খুব কাছাকাছি এলাকায় সেহেতু দোহারবাসীকে সাবধানে থাকতে বলেছি। ইতোমধ্যে বিশেষ সর্তকতা জারি করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন

×