ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪

গোবিন্দগঞ্জে আদিবাসীর লাশ সৎকারে বাধা দেওয়ার অভিযোগ

গোবিন্দগঞ্জে আদিবাসীর লাশ সৎকারে বাধা দেওয়ার অভিযোগ

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০২০ | ০৯:১৩ | আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০২০ | ০৯:২৮

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে এক আদিবাসীর সৎকারে বাধা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার কামদিয়া ইউনিয়নের ভেউর গ্রামের মৃত কমল মুরমুর স্ত্রী শেফালী মুরমু (৫২) মঙ্গলবার রাতে তার বাড়িতে মারা যান। বিষয়টি থানা পুলিশের কানে গেলে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিবারের লোকজনের কাছে বিস্তারিত জেনে লাশের সৎকারের জন্য বলে আসে। যথাসময়ে লাশটি তার পরিবারের লোকজন সৎকারের ব্যবস্থা নেয়ার একপর্যায়ে সাংবাদিক পরিচয়ধারী উজ্জ্বল হক প্রধানসহ ৫/৬ জন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে লাশটি সৎকারে বাধা দেয়। এ সময় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ লোকজন এগিয়ে আসলে উজ্জ্বল বাহিনী ঘটনাস্থল থেকে সটকে পড়ে।

এ বিষয়ে গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ এ কে এম মেহেদী হাসান  জানান, ওই আদিবাসীর মৃত্যু স্বাভাবিক হওয়ায় তার সৎকারের জন্য বলা হয় কিন্তু কতিপয় সাংবাদিক ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের জন্য সাধারণ ঘটনাকে ভিন্ন খাতে নেয়ার চেষ্টা করে। 

কামদিয়া ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য দুলু মিয়া উজ্জ্বল বাহিনী কর্তৃক লাশ সৎকারে বাধা প্রদানের বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, অবৈধ সুবিধা নেয়ার জন্য তারা লাশ সৎকারে বাধা দেয়। তবে এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে সাংবাদিক পরিচয়ধারীরা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক আদিবাসী অভিযোগ করেন, ওই সাংবাদিকরা লাশ সৎকারে বাধা প্রদান করে টাকা দাবি করে। তারা ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। এ অবস্থায় স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে উজ্জ্বল বাহিনী সটকে পড়ে।

এ ব্যাপারে উজ্জ্বলের মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে প্রতিবারই অপর প্রান্ত থেকে ফোন কেটে দেয়া হয়।

আরও পড়ুন

×