ঢাকা শনিবার, ১৮ মে ২০২৪

ভূমিমন্ত্রীর ত্রাণ নিয়ে সংঘর্ষ, ছাত্রলীগ নেতাসহ আহত ৩

ভূমিমন্ত্রীর ত্রাণ নিয়ে সংঘর্ষ, ছাত্রলীগ নেতাসহ আহত ৩

ভাংচুর করা হয়েছে বাড়িঘর- সমকাল

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০১ এপ্রিল ২০২০ | ০৯:৩৭ | আপডেট: ০১ এপ্রিল ২০২০ | ০৯:৪৬

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে ভূমিমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদের দেওয়া ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

বুধবার সন্ধ্যা ৭ টার দিকে উপজেলার বড়উঠান ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ডাকপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন- দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক ও বড়উঠান ইউনিয়নের সাইফুদ্দিনের ছেলে সেলিম উদ্দিন (২৭), তার বাবা সাইফুদ্দিন (৪৫), মা রশিদা বেগম (৪৫) ও চাচা শাহজাহান (৩৮)।

স্থানীয় ও থানা সূত্রে জানা যায়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যে জীবিকা নির্বাহের পথ বন্ধ থাকায় কর্ণফুলী উপজেলার অসহায়, খেটে খাওয়া, দিনমজুর, দরিদ্র মানুষের তালিকা তৈরি করে তাদের ঘরে ভূমিমন্ত্রীর পক্ষ থেকে খাবার পৌঁছে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

মঙ্গলবার রাতে উপজেলার বড়উঠান ইউনিয়নের এসব খাবার বণ্টনের ব্যাপারে একই এলাকার বাসিন্দা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক সেলিম উদ্দিনের সঙ্গে স্থানীয় ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সুমনের কথা কাটাকাটি হয়।

এ ঘটনার জেরে ইউপি মেম্বার সুমন ও তার অনুসারীরা বুধবার সকালে লাঠিসোটা নিয়ে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে শোডাউন দেন। পরে বিকেলে দ্বিতীয় দফায় জেলা ছাত্রলীগ নেতা সেলিমের ঘরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়। এসময় ছাত্রলীগ নেতার ওপর হামলা এবং তার পরিবারের ওপরও হামলা চালান তারা। পরে কর্ণফুলী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। 

এ ব্যাপারে দক্ষিণ জেলা সহ সম্পাদক সেলিম উদ্দিন সমকালকে বলেন, ‘মঙ্গলবার রাতে মন্ত্রী মহোদয়ের ত্রাণ এলাকায় বণ্টনের বিষয়ে ইউপি মেম্বার সুমনের কথা হয়। এ ব্যাপারে কথা বলতে গেলে সুমন আমার ক্ষিপ্ত হয়ে যায়। পরে এক পর্যায়ে তার সাথে আমার সাথে কথাকাটাকাটি হয়। শতাধিক  লোকজন আমার বাড়িতে সশস্ত্রভাবে শোডাউন দেয়। তারা আমাকে মারধর করেছে। আমার বাবা-মাকে মারধর করেছে। আমার পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের ওপর হামলা নিয়েছে। আমার ঘর বাড়ি ভাংচুর করেছে।'

ইউপি সদস্য সুমন বলেন, ‘মন্ত্রী মহোদয়ের ত্রাণ বন্টনের ব্যাপারে নাকি তাকে বলতে হবে। এ নিয়ে আমার সাথে কথাকাটি হয় মোবাইলে। পরে যে ঘটনা ঘটেছে তা আমি জানি না। হয়তো এলাকায় ছেলেদের খেলাধুলার ব্যাপারে ঘটনা ঘটতে পারে।’ 

এ ব্যাপারে কর্ণফুলী থানার ওসি ঈসমাইল হোসেন সমকালকে বলেন, মন্ত্রী মহোদয়ের ত্রাণ বিতরণ নিয়ে জেলা ছাত্রলীগের নেতার সাথে স্থানীয় এক ইউপি মেম্বারের সাথে কথকাটাটি হয়। পরে ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ঢিল ছোড়াকে কেন্দ্র করে একটু হৈ চৈ হয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। তেমন কোন বড় ঘটনা নয়। রাতে উভয়পক্ষকে থানায় ডাকা হয়েছে। বৈঠকের মাধ্যমে সমাধান করা হবে। বর্তমানে ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান করছে।



আরও পড়ুন

×