ভোটের হাওয়া : চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২

ভোটযুদ্ধের আগে মনোনয়ন যুদ্ধে বড় দুই দল

প্রকাশ: ০৫ জানুয়ারি ২০১৮      

আমিনুল ইসলাম তন্ময়, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (নাচোল-গোমস্তাপুর-ভোলাহাট) আসনে ভোটযুদ্ধ তো পরের কথা, রীতিমতো মনোনয়নযুদ্ধ চলছে বড় দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপিতে। আওয়ামী লীগে এ যুদ্ধে নেমেছেন বর্তমান এমপি গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস ও সাবেক এমপি জিয়াউর রহমান। আর বিএনপিতে সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট আশিফা আশরাফী পাপিয়ার মুখোমুখি মনোনয়নযুদ্ধে নেমেছেন গোমস্তাপুর উপজেলার চেয়ারম্যান বাইরুল ইসলাম ও যুবদলের কেন্দ্রীয় সাবেক কোষাধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম।

এ আসনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান এমপি গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস, সাবেক এমপি জিয়াউর রহমান, নাচোল উপজেলার চেয়ারম্যান আবদুল কাদের ও আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার।

জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জিয়াউর রহমান ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বিশ্বাসের মধ্যে দ্বন্দ্ব বহু দিনের পুরনো। স্থানীয়ভাবে এ দুই নেতা বিবদমান দুই গ্রুপের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাদের মধ্যে বনিবনা নেই বললেই চলে।

গোলাম মোস্তফা বিশ্বাস জানান, তিনি সবাইকে নিয়ে নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে তিনি কোনো ক্ষমতার অপব্যবহার করেননি।

আর নেতাকর্মীদের সঙ্গেও তার নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে। এসব কারণে দলের মনোনয়নের বেলায় তাকেই মূল্যায়ন করা হবে বলে তার প্রত্যাশা।

এমপি বলেন, সাবেক এমপি জিয়াউর রহমান দলের স্থানীয় কর্মকাে অংশ নিচ্ছেন না। তা ছাড়া এই নেতা গত সংসদ নির্বাচনে দলের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিলেন। স্থানীয় সরকার নির্বাচনেও তার ভূমিকা ইতিবাচক ছিল না। তিনি জানান, বড় দল হওয়ায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে দ্বিমত থাকতেই পারে। তবে সেটা নিয়ন্ত্রণের মধ্যেই রয়েছে।

অন্যদিকে জিয়াউর রহমান জানান, নির্বাচনী এলাকায় তার ব্যাপক জনসমর্থন রয়েছে। তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গেও তার সখ্য রয়েছে। তিনি ভোটারদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। কেন্দ্রীয় নেতারাও সম্ভাব্য প্রার্থীদের জনসমর্থন দেখে গেছেন। সব মিলিয়ে তিনি আগামী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। দলের মনোনয়ন পাবেন বলেও মনে করছেন তিনি।

নাচোল উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদেরও নিজের পক্ষে দলীয় বলয় গড়ে তুলেছেন। তিনি জানান, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হওয়ার পর মানুষের কাছাকাছি যাওয়ায় তিনি উপজেলার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। দলকেও সুসংহত করেছেন। দলের মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে বেশ আশাবাদী তিনি।

আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার গত নির্বাচনের মতো এবারও দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন। সরকারের উন্নয়ন কর্মকা সংবলিত প্রচারপত্র বিতরণের মধ্য দিয়ে তিনি নিজের অবস্থান শক্ত করছেন। তার অভিযোগ, দলের বর্তমান ও সাবেক এমপির মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধ ও পরস্পরবিরোধী অবস্থান থাকায় এ আসনে উন্নয়ন কার্যক্রম বহুলাংশেই ব্যাহত হচ্ছে।

এ আসনে বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন- দলের কেন্দ্রীয় মানবাধিকারবিষয়ক সহসম্পাদক অ্যাডভোকেট আশিফা আশরাফী পাপিয়া, গোমস্তাপুর উপজেলার চেয়ারম্যান বাইরুল ইসলাম, যুবদলের কেন্দ্রীয় সাবেক কোষাধ্যক্ষ আমিনুল ইসলাম ও নাচোল উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আবু তাহের খোকন।

দীর্ঘদিন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনটি ছিল বিএনপির দখলে। ২০০৮ সালে এ আসনে আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়। বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন নেতা সাবেক এমপি ও প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মঞ্জুর হোসেনের মৃত্যুর পর নতুন নেতৃত্ব স্থানীয় সংগঠনে গতি এনেছে; আবার দ্বন্দ্ব-বিবাদও তৈরি করেছে। কারণ, এ আসনে সৈয়দ মঞ্জুর হোসেনের আধিপত্য ছিল প্রশ্নাতীত।

ওই সময়েই স্থানীয় বিএনপির রাজনীতিতে প্রবাসী খুরশেদ আলম বাচ্চুর উত্থান ঘটতে শুরু করে। তিনি ২০০১ সালে মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হয়ে দলীয় প্রার্থী সৈয়দ মঞ্জুর হোসেনের বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে পরাজিত হয়েছিলেন। সৈয়দ মঞ্জুর হোসেনের মৃত্যুর পর আলোচনায় আসেন যুবদলের আমিনুল ইসলাম। তিনি ২০০৮ সালের নির্বাচনে দলের মনোনয়ন পেলেও জয় পাননি। এ অবস্থায় আগামী নির্বাচন সামনে রেখে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ আসনে বিএনপির দুই নেতা আমিনুল ইসলাম ও বাইরুল ইসলাম তৎপর হয়ে উঠেছেন। সাংগঠনিক কর্মসূচি তেমন না থাকলেও তারা আলাদাভাবে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন; গণসংযোগ করছেন। অবশ্য এমন তৎপরতার মধ্য দিয়ে দুই নেতার মধ্যে দূরত্বও তৈরি হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর আসনের সাবেক এমপি ও বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হারুনুর রশিদ হারুনের স্ত্রী অ্যাডভোকেট আশিফা আশরাফী পাপিয়া। তার দাবি, তিনি সব সময় জনগণের পাশে রয়েছেন। দুর্দিনে নেতাকর্মীদের সঙ্গে থেকেছেন। এখন তিনি দলের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন। তিনি বলেন, এ আসনে নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব রয়েছে। তবে জনপ্রিয়তার বিচারে তিনি শীর্ষে রয়েছেন। তিনি দলের মনোনয়নপ্রত্যাশী।

আমিনুল ইসলাম বলেন, ২০০৮ সালের নির্বাচনে তিনি রেকর্ডসংখ্যক ভোট পেয়েছিলেন। ভোটপ্রাপ্তির দিক থেকে উত্তরাঞ্চলে বিএনপি প্রার্থীদের মধ্যে তিনি ছিলেন সবার শীর্ষে। বর্তমানে তার গ্রহণযোগ্যতা আরও বেড়েছে। তিনি দলের মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, নাচোল, গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট উপজেলার নেতাকর্মী এবং জনগণ তার সঙ্গে রয়েছেন।

গোমস্তাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি বাইরুল ইসলামও আগামী নির্বাচনে দলের মনোনয়ন পাবেন বলে আশা করছেন। তিনি জানান, কাগজে-কলমে হয়তো দলের অনেকেই মনোনয়নপ্রত্যাশী থাকতে পারেন। তবে বর্তমানে তিনি ছাড়া নির্বাচনী মাঠে দৃশ্যমান কেউ নেই। আর সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের নির্বাচনী প্রচারণা তাকে ঘিরেই ঘটছে। তিনি দলের মনোনয়ন পাবেন বলে মনে করছেন।

স্থানীয় ইউসুফ আলী কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি আবু তাহের খোকন বলেন, তিনি সুনামের সঙ্গে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে জনগণের আস্থা অর্জন করতে পেরেছেন। বিএনপি ঘরানার রাজনীতিতেও সক্রিয় ভূমিকা রাখছেন। তিনি বলেন, এ আসনে প্রত্যাশিত উন্নয়ন হয়নি। তিনি দলের মনোনয়ন পেয়ে নির্বাচিত হলে এলাকার উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখবেন।

১৯৮৬ সালের নির্বাচনে এ আসনে জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নেতা মীম ওবায়দুল্লাহ নির্বাচিত হন। নাচোল উপজেলা চেয়ারম্যান পদেও জয়ী হয় জামায়াতে ইসলামী। আগামী নির্বাচনে এ আসনে ইয়াহিয়া খালেদকে চূড়ান্ত করেছে জামায়াতে ইসলামী। তবে মাঠ পর্যায়ে তাদের কোনো কর্মকাণ্ড এখনও চোখে পড়ছে না।

বিষয় : ভোটের হাওয়া

পরবর্তী খবর পড়ুন : বাপ-বেটার ইয়াবা ব্যবসা

আ.লীগের ইশতেহার ঘোষণা মঙ্গলবার

আ.লীগের ইশতেহার ঘোষণা মঙ্গলবার

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে অাগমী মঙ্গলবার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা ...

যে গ্রামে দরজা নেই কোন ঘরের

যে গ্রামে দরজা নেই কোন ঘরের

ঘরে জিনিসপত্র, টাকা-পয়সা, গহনাগাটি নিরাপদ রাখতে মানুষ কত কিছুই না ...

আওয়ামী লীগে কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই: নানক

আওয়ামী লীগে কোনো বিদ্রোহী প্রার্থী নেই: নানক

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, আওয়ামী ...

হোর্হে সাম্পাওলি সান্তোসের কোচ

হোর্হে সাম্পাওলি সান্তোসের কোচ

রাশিয়ার কাজান এরিনা কাঁদিয়ে ছেড়েছে হোর্হে সাম্পাওলিকে। তার কোচিং ক্যারিয়ারের ...

ড. কামাল সাংবাদিকদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছেন: আ’ লীগ

ড. কামাল সাংবাদিকদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছেন: আ’ লীগ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, জাতীয় ...

মাঠে শেষ দিন পর্যন্ত থাকবো: ফখরুল

মাঠে শেষ দিন পর্যন্ত থাকবো: ফখরুল

একাদশ সংসদ নির্বাচনকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নির্বাচন উল্লেখ ...

'১৫-১৬ জনের বিশ্বকাপ দল তৈরি আছে'

'১৫-১৬ জনের বিশ্বকাপ দল তৈরি আছে'

কয়েক দিন ধরে বাতাসে একই গুঞ্জন। মাশরাফি কি মিরপুরে শেষ ...

ড. কামাল বেপরোয়া ড্রাইভারের মতো আচরণ করছেন: কাদের

ড. কামাল বেপরোয়া ড্রাইভারের মতো আচরণ করছেন: কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল ...