ঈশ্বরদীর মুড়িগ্রাম ‍‘মুলাডুলি’

প্রকাশ: ১৭ মে ২০১৮      

সেলিম সরদার, ঈশ্বরদী (পাবনা)

মুড়ি তৈরিতে ব্যস্ত মুলাডুলি গ্রামের নারীরা- সমকাল

পাবনার ঈশ্বরদীর মুলাডুলি গ্রামে মুড়ি ভাজার ব্যাপক আয়োজন শুরু হয়েছে। তবে এ মুড়ি বাজারে পাওয়া সাধারণ মুড়ি নয়। জৈব সারে উৎপাদিত ধান দিয়ে ঢেঁকিছাঁটা লাল চালে তৈরি মুড়ির কথা এই ভেজালের যুগে যখন কল্পনা করা দায়, তখন ঈশ্বরদীর এই মুড়িগ্রামে শত শত নারী-পুরুষ 'নিরাপদ মুড়ি' তৈরি করে এরই মধ্যে সাড়া ফেলেছেন। 

ঈশ্বরদীর নিরাপদ মুড়ির সুখ্যাতিও এখন ঈশ্বরদী ছাড়িয়ে গেছে। আবার এ মুড়ির কাজে অংশ নিয়ে গ্রামের দরিদ্র পরিবারের নারীরাও বাড়তি আয় করে কিছুটা স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছেন। 

রাসায়নিক সার, কীটনাশক ছাড়াই ঈশ্বরদীতে তৈরি হচ্ছে মুড়ি। এরই মধ্যে ঈশ্বরদীর কয়েকটি গ্রাম রীতিমতো 'নিরাপদ মুড়িগ্রাম' নামে পরিচিতি লাভ করেছে। সরেজমিন এসব গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, রমজান উপলক্ষে ঈশ্বরদীর মুলাডুলি গ্রামে ধুম পড়েছে ভেজালমুক্ত মুড়ি তৈরির কর্মযজ্ঞে। এতে লবণ ও পানি ছাড়া অন্য কোনো উপকরণ ব্যবহার করা হয় না। তারা এ মুড়ির নামও দিয়েছেন 'নিরাপদ মুড়ি'। প্রতিদিন এ এলাকায় প্রায় ২০ মণ মুড়ি তৈরি হয় বলে জানায় এলাকাবাসী। এরই মধ্যে ঈশ্বরদী ছাড়িয়ে চট্টগ্রাম ও রাজধানী ঢাকাতেও পৌঁছে গেছে ঈশ্বরদীর এই মুড়ির সুখ্যাতি। প্রতিদিন ঈশ্বরদী থেকে এসব মুড়ি যাচ্ছে ঢাকা ও চট্টগ্রামে।

বাজারে সাধারণত যেসব মুড়ি পাওয়া যায় তা থেকে এই মুড়ি দেখতে যেমন আলাদা, তেমনি স্বাদ ও স্বাস্থ্যের জন্যও শতভাগ নিরাপদ। মুলাডুলির হাজারীপাড়া ও শেখপাড়া এবং দাশুড়িয়া ইউনিয়নের খয়েরবাড়িয়া, মাড়মী ও সুলতানপুর গ্রামের নারীরা জানান, প্রতিদিন তারা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্যস্ত থাকেন মুড়ি তৈরির কাজে। 

হাজারীপাড়া গ্রামের জাহেদা বেগম জানান, তাদের জমিতে আউশ ও আমন জাতের ধান উৎপাদনে নিজেদের তৈরি জৈব সার ব্যবহার করা হয়। একই গ্রামের সাহেদা বেগম ও আয়েশা বেগম জানান, রাসায়নিক সারমুক্ত চালে নিরাপদ মুড়ি উৎপাদন করে তারা এক ধরনের সুখ অনুভব করেন। বাজারে সাধারণত যে মুড়ি বিক্রি হয়, ঈশ্বরদীর মুলাডুলির মুড়ি তা থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। সে কারণে এই মুড়ির দামও একটু বেশি। 

ঈশ্বরদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল মামুন জানান, এ 'নিরাপদ মুড়ি'র সুখ্যাতি ছড়িয়ে গেছে আশপাশের এলাকাতেও।এদিকে, পবিত্র রমজানে ইফতারির অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ এই মুড়ি ভেজালমুক্তভাবে তৈরি করতে সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে একটি বেসরকারি সংস্থা। 

আরও পড়ুন

জনগণ স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে ভোট দেবে: তোফায়েল

জনগণ স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে ভোট দেবে: তোফায়েল

জনগণ স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে ভোট দেবে বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী ...

কুষ্টিয়ায় পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ আ.লীগ-বিএনপির

কুষ্টিয়ায় পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ আ.লীগ-বিএনপির

কুষ্টিয়া-৩ (সদর) আসনের বিএনপির প্রার্থী জাকির হোসেন সরকারের নির্বাচনী কার্যালয় ...

নির্বাচনে ৩৫ হাজার দেশীয় পর্যবেক্ষক, বিদেশিদের তালিকা চূড়ান্ত হয়নি

নির্বাচনে ৩৫ হাজার দেশীয় পর্যবেক্ষক, বিদেশিদের তালিকা চূড়ান্ত হয়নি

একাদশ সংসদ নির্বাচনের ভোটের মাঠে প্রায় ৩৫ হাজার দেশি পর্যবেক্ষক ...

অভিবাসন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব জাতিসংঘে গৃহীত

অভিবাসন নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব জাতিসংঘে গৃহীত

অভিবাসন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার 'অভিবাসন-সংক্রান্ত বৈশ্বিক চুক্তি'র প্রস্তাবনা মরক্কোতে ...

রোহিঙ্গাদের ইইউর আরও ৫৫ কোটি টাকা অতিরিক্ত সহায়তা

রোহিঙ্গাদের ইইউর আরও ৫৫ কোটি টাকা অতিরিক্ত সহায়তা

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য আরও প্রায় সাড়ে ৫৫ কোটি টাকা (পাঁচ ...

এবারের নির্বাচন খালেদা জিয়ার মুক্তির নির্বাচন: মওদুদ

এবারের নির্বাচন খালেদা জিয়ার মুক্তির নির্বাচন: মওদুদ

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, খালেদা জিয়া ...

মাশরাফির চোখে হারের কারণ

মাশরাফির চোখে হারের কারণ

অসহায় আত্মসমর্পণ বাংলাদেশ করেনি। শেষ সময় পর্যন্ত লড়ে গেছে সফরকারী ...

বিজেপিতে বড় ধাক্কা...

বিজেপিতে বড় ধাক্কা...

চার বছর ধরে ক্রমাগত সাফল্যের পরে বড়সড় একটা ধাক্কার মুখে ...