কী নির্মম!

প্রকাশ: ১৫ মে ২০১৮     আপডেট: ১৫ মে ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

ফরিদপুর অফিস

ফরিদপুর সদর উপজেলায় সৎমায়ের হাত কেটে নিয়েছে এক যুবক। গত রোববার উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের নরসিংহদিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ওই নারীর নাম রেশমা বেগম (৩০)। তিনি ওই গ্রামের নুর ইসলাম শেখের দ্বিতীয় স্ত্রী। তার সৎছেলের নাম আল আমিন শেখ (২১)। 


আহত রেশমা বেগম জানান, তিনি লেবাননে থাকাকালীন মোবাইলে কথা হতো প্রতিবেশী নুর ইসলামের সঙ্গে। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। মাস পাঁচেক আগে দেশে ফেরার পর নুর ইসলামের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকে প্রথম স্ত্রী আকলিমা ও তার ছেলে আল আমিন ঝগড়া-বিবাদ লাগিয়ে রাখতেন। রোববার সকালে আল আমিন আচমকা ধারালো দা দিয়ে রেশমার দুই হাত ও পায়ে কোপায়।

পরে গ্রামের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। এ বিষয়ে নুর ইসলাম জানান, তিনি দ্বিতীয় বিয়ে করায় ছেলেক্ষিপ্ত ছিল। তার দুই স্ত্রী আলাদা বাড়িতে থাকেন। ছেলে তার দ্বিতীয় মাকে মেনে নিতে না পেরে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। হাসপাতালের চিকিৎসক অনাদীরঞ্জন মণ্ডল বলেন, রেশমার বাম হাত কব্জির ওপর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। ডান হাতেও গুরুতর জখম রয়েছে। এ ছাড়া দুই পা ও শরীরে কোপানো হয়েছে। কোতোয়ালি থানার ওসি এএফএম নাসিম বলেন, বিষয়টি খোঁজখবর নিয়ে দেখা হচ্ছে।