ইন্দুরকানীতে 'বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত' নিহত

প্রকাশ: ২৬ আগস্ট ২০১৮     আপডেট: ২৬ আগস্ট ২০১৮      

ইন্দুরকানী (পিরোজপুর) প্রতিনিধি

পিরোজপুরের ইন্দুরকানী উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে 'বন্দুকযুদ্ধে' জাকির হোসেন (৫৪) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে।

শনিবার রাত আড়াইটার দিকে উপজেলার পত্তাশী গ্রামের বটতলা এলাকায় 'বন্দুকযুদ্ধে'র এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহত জাকির পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলার জোলাগাতী গ্রামের ফজলুল হক আকনের ছেলে।

পুলিশ বলছে, জাকির আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার ছিলেন। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১১টি মামলা রয়েছে।

ইন্দুরকানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাসির উদ্দিন জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পিরোজপুর ডিবি পুলিশ ও ইন্দুরকানী থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে শুক্রবার রাতে খুলনার জিরো পয়েন্ট এলাকা থেকে ডাকাত সর্দার জাকিরকে গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ডাকাতদলের অন্য সদস্যদের গ্রেফতার এবং অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে শনিবার গভীর রাতে তাকে নিয়ে ইন্দুরকানীর পত্তাশী গ্রামের বটতলা এলাকায় অভিযানে যায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জাকিরের সহযোগীরা গুলি ছুড়লে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় পালাতে গিয়ে ডাকাত সর্দার জাকির গুলিবিদ্ধ হয়। এছাড়া ডাকাতদের গুলিতে ইন্দুরকানী থানার এএসআই শাহাদাৎ হোসেন ও ডিবি পুলিশ সদস্য নাসির উদ্দিন আহত হয়।

তিনি জানান, পরিস্থিতি শান্ত হলে গুলিবিদ্ধ ডাকাত সর্দারকে উদ্ধার করে ইন্দুরকানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত দুই পুলিশ সদস্যকে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি দেশীয় পাইপগান, ৩টি রাইফেলের গুলি, ৩টি বন্দুকের তাজা গুলি, ১২টি গুলির খোসা, একটি চাইনিজ কুড়াল, একটি দা উদ্ধার করা হয়েছে জানিয়ে ওসি বলেন, ডাকাত সর্দার জাকিরের বিরুদ্ধে ইন্দুরকানী থানায় হিন্দুদের পাঁচ বাড়িতে ডাকাতিসহ বিভিন্ন অভিযোগে ১১টি মামলা রয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ পিরোজপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।