জাল সনদে পুলিশে চাকরি, কারাগারে বাবা-মেয়ে

প্রকাশ: ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

বরিশাল ব্যুরো

মুক্তিযোদ্ধার জাল সনদ দিয়ে পুলিশে চাকরি নেওয়ার অভিযোগে বাবা পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত সুবেদার আব্দুল লতিফ ও তার মেয়ে কনস্টেবল মিলি আক্তারকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। 

বরিশাল অতিরিক্ত জ্যেষ্ঠ মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক মারুফ আহম্মেদ সোমবার তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

আব্দুল লতিফ বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া ইউনিয়নের বাসিন্দা। তিনি মুক্তিযোদ্ধা না হয়েও জাল সনদ সংগ্রহ করেন। ওই সনদ ব্যবহার করে তার মেয়ে মিলি আক্তার পুলিশ বিভাগে মুক্তিযোদ্ধা কোটায় চাকরি নেন। এ অভিযোগে পুলিশ হেডকোয়টার্সের নির্দেশে বরিশাল রিজার্ভ পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) কবির হোসেন বাদী হয়ে গত ৩০ মে বাবা ও মেয়ের বিরুদ্ধে কোতোয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে সোমবার এ দু'জন আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

কোতোয়ালী মডেল থানার এসআই খোকন জানান, মিলি আক্তার মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কোটায় ২০১০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি কনস্টেবল পদে চাকরি পান। পরে তার বাবা সাবেক সুবেদার আব্দুল লতিফ গাজীর সনদ বাছাই শেষে জানা যায় এটি জাল। এর আগে ৬ মাসের ট্রেনিং শেষ করে বরিশাল মহানগর পুলিশে যোগ দেন মিলি আক্তার।