কথা ব্যঙ্গাত্মক মনে হওয়ায় শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হাসপাতালে!

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮     আপডেট: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

মাগুরা প্রতিনিধি

হাসাপাতালে ভর্তি আহত শিক্ষার্থী- সমকাল

প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার সময় উচ্চারণগত ত্রুটিসহ তোতলামি করায় ক্ষুব্ধ হয়ে মাগুরা সরকারি বালক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির এক ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেছেন এক শিক্ষক।

পিটুনির শিকার যায়েদ বিন জামানকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার প্রতিকার চেয়ে জেলা পশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন তার বাবা মাগুরা শহরের আদর্শ পাড়ার বাসিন্দা মুন্সী কায়েমুজ্জামান।

তিনি বলেন, আমার ছেলে দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। এ কারণে তাকে নিয়মিত ফিজিওথেরাপি দিতে হয়। এজন্য আমি এ বছরের জুলাইয়ে লিখিত দরখাস্তের মাধ্যমে আমার সন্তানকে কোন কারণেই যেন মারপিট করা না হয় তার আবেদন জানিয়েছিলাম।

ছাত্রের বাবা বলেন, কিন্তু মঙ্গলবার ওই স্কুলের শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী তার প্রশ্নের যথাযথ জবাব দিতে না পারায় আমার ছেলেকে মারপিট করেন। রাতে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে আমরা বিষয়টি বুঝতে পেরে দ্রুত মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করি। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে জেলা পশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জামান জানায়, সে স্যারের মারের হাত থেকে বাচাঁর জন্যে আকুতি জানিয়েছিল; তবে এতেও থামেননি ওই শিক্ষক।

শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী সমকালকে বলেন, ওই ছাত্রের কথাবার্তা আমার কাছে ব্যঙ্গাত্মক বলে মনে হয়েছিল। এ কারণে তাকে শাসন করেছি। তবে সে যে গুরুত্বর অসুস্থ তা আমার জানাছিল না। আমি দুঃখিত। আমি তাকে হাসপাতালে দেখতে এসেছি।

জেলা প্রশাসক আতিকুর রহমান জানান, ছাত্র মারপিটের ঘটনায় তিনি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। বিষয়টি তদন্তে একজন ম্যাজিষ্ট্রেটকে দায়িত্ব দিয়েছেন তিনি।