ভরণপোষণ চেয়ে ৩ ছেলের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ বাবার মামলা

প্রকাশ: ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

চট্টগ্রামে উচ্চশিক্ষিত তিন ছেলের বিরুদ্ধে আদালতে ভরণপোষণ আইনে মামলা করেছেন অবসরপ্রাপ্ত এক সরকারি কর্মকর্তা। শুনানী শেষে তিন ছেলেকে সশরীরে হাজিরের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। 

চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হেলাল উদ্দীনের আদালতে দায়ের করা মামলার বাদী হলেন মিরসরাইয়ের পূর্ব মালিয়াইশ গ্রামের ধনমিয়া বাড়ির বাসিন্দা সাইদুল হক। তিনি অবসরপ্রাপ্ত পরিসংখ্যান কর্মকর্তা। মামলার বিবাদী তিন সন্তান হলেন- নাজমুল হক হেলাল, সাইফুল হক ও মাইনুল হক। 

বাদীপক্ষের আইনজীবী জিয়া হাবীব আহসান সমকালকে বলেন, তিন ছেলে বাবা-মাকে ভরণপোষণ দিচ্ছেন না বলে নালিশি মামলা দায়ের করেন অসহায় বৃদ্ধ পিতা। আদালত আগামী ১১ অক্টোবর তিন ছেলেকে সশরীরে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন- (বিএইচআরএফ) বাদীকে আইনী সহায়তা দিচ্ছে।

মামলায় বৃদ্ধ বাবা অভিযোগ করেন, জীবনের সমস্ত অর্থ, শ্রম ব্যয় করে তিন সন্তানকে লালন-পালন ও উচ্চশিক্ষিত করেছেন। বড় ছেলে নাজমুল হক হেলাল একজন ঠিকাদার, দ্বিতীয় ছেলে সাইফুল হক সিঅ্যান্ডএফ ফার্ম রাজিয়া ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল চৌমুহনী আগ্রাবাদের সিনিয়র কর্মকর্তা এবং তৃতীয় ছেলে মাইনুল হক রনি ন্যাশনাল ব্যাংকের গুলশান শাখার কর্মকর্তা। 

সন্তানরা সচ্ছল হওয়া সত্ত্বেও বাবা-মাকে আর্থিক সহায়তা দেন না এবং তাদের কোনো খোঁজখবরও নেন না। ২০০৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর সরকারি চাকরি থেকে অবসরে যান বাদী। এখন পেনশনের সামান্য টাকায় তার ও তার স্ত্রীর ভরণপোষণ সম্ভব হচ্ছে না। ফলে তিনি বহু টাকা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। জামাইদের সাহায্যে বাদী চোখের অপারেশন করালেও তিন সন্তান তাকে হাসপাতালে দেখতে পর্যন্ত যায়নি। স্থানীয় থানার মাধ্যমে ও গণ্যমান্য ব্যক্তিদের মধ্যস্থতায় ভরণপোষণ আদায়ের চেষ্টা ব্যর্থ হলে আদালতের শরণাপন্ন হন তিনি।