ফতুল্লায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে নিহত ১

প্রকাশ: ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮      

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

টায়ার পুড়িয়ে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা— সমকাল

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার বিসিক শিল্পনগরীতে আবারও শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে এক নারী শ্রমিক নিহত ও পুলিশ সদস্যসহ শতাধিক আহত হয়েছেন।

মাত্র তিন দিন আগে ফকির নিটওয়্যারে সংঘর্ষের রেশ কাটতে না কাটতেই বিসিকের এনআর গার্মেন্টে শ্রমিক অসন্তোষের এ ঘটনা ঘটল। মজুরি বাড়ানোর দাবিতে দু'দিন ধরে রফতানিমুখী এ প্রতিষ্ঠানে শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। বৃহস্পতিবার তা সহিংসতায় রূপ নেয়।

নিহত শ্রমিকের নাম বুবলী বেগম (৪০)। তার বাড়ি নওগাঁ জেলার পাঁচচাটিয়া গ্রামে। ফতুল্লার ভোলাইল এলাকার জব্বার মিয়ার বাড়িতে তিনি ভাড়া থাকতেন। তিনি এনআর গার্মেন্টে হেলপার হিসেবে কাজ করতেন।

এদিন সকালে ফতুল্লার বিসিকে শ্রমিকরা সরকার ঘোষিত ন্যূনতম মজুরি বাস্তবায়নের দাবিতে আন্দোলন শুরু করলে এনআর গার্মেন্টের স্টাফদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বেধে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান, গার্মেন্টের ভেতরে আটকে শ্রমিকদের মারধর করা হয় ও গরম পানি ছিটানো হয়। এরপর পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা বের হয়ে আশপাশের বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানায় ভাংচুর এবং পঞ্চবটি-মুন্সীগঞ্জ সড়ক অবরোধ করেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করলে শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ শুরু হয়। শ্রমিকরা বেশ কিছু যানবাহনও ভাংচুর করেন। এ সংঘর্ষে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার গ্যাসের শেল ও জলকামান ব্যবহার করে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে পরিস্থিতি শান্ত করতে বিকেলে কারখানায় ছুটে যান নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান— সমকাল

এদিকে, বুবলীর মরদেহ উদ্ধার করতে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে ভোলাইল এলাকায় গেলে পুলিশকে অবরুদ্ধ করেন বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা। এ সময় শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ও ইউনাইটেড ফেডারেশন অব গার্মেন্ট ওয়ার্কার্সের কেন্দ্রীয় সভাপতি কাউসার আহমেদ পলাশ পুলিশ সদস্যদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যান।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে পরিস্থিতি শান্ত করতে বিকেলে কারখানায় ছুটে যান নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান। শ্রমিক ও মালিক পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে শ্রমিকদের দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়।

এনআর গার্মেন্টের শ্রমিকদের অভিযোগ, কারখানার ভেতরে শ্রমিকদের অবরুদ্ধ করে বেদম পেটানো হয়। কোনো মতে সেখান থেকে বরে হয়ে আসার পর পুলিশ ও মালিকের লোকদের মুখে পড়েন তারা। পুলিশ লাঠিচার্জ করে এবং টিয়ার গ্যাসের শেল ও গরম পানি নিক্ষেপ করে। শ্রমিকরা ইটপাটকেল ছুড়ে প্রতিহত করার চেষ্টা করেন। এ সময় জলকামান থেকে নিক্ষিপ্ত পানি বুবলীর বুকে লাগলে তিনি ঘটনাস্থলে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারান। সহকর্মীরা উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ তিনশ' শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বুবলীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শ্রমিকরা আরও উত্তেজিত হয়ে ওঠেন। তখন পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এতে পুলিশের ৯ সদস্যসহ শতাধিক শ্রমিক আহত হন।

শ্রমিকরা জানান, সরকার ঘোষিত নতুন মজুরি কাঠামো চলতি ডিসেম্বর মাস থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। শ্রমিকরা বর্ধিত বেতন জানুয়ারিতে পাবেন। কিন্তু গার্মেন্ট মালিক মোখলেছুর রহমান বর্ধিত বেতনকে 'পাগলের প্রলাপ' বলে মন্তব্য করেন। এর পর শ্রমিকরা আরও ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন।

শ্রমিক নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ বলেন, নতুন মজুরি কার্যকরের দাবি নিয়ে ঘটনার সূত্রপাত হয়। তবে তৃতীয় কোনো পক্ষ সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে এ সংঘর্ষে ইন্ধন দিয়েছে কি-না, তা খতিয়ে দেখতে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, দু'দিন ধরে এনআর গ্রুপের শ্রমিকরা আন্দোলন করে আসছিলেন। প্রতিষ্ঠানটিতে ১০-১২ হাজার লোক কাজ করেন। গত বুধবার মালিক পক্ষ তাদের দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দেয়। তা সত্ত্বেও বৃহস্পতিবার সকালে শ্রমিকরা ফের আন্দোলন শুরু করেন এবং কারখানায় ও সড়কে গাড়ি ভাংচুর করেন। একপর্যায়ে পুলিশ-শ্রমিকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় ঘটনা ঘটে।

তিনি দাবি করেন, ঘটনার সময় আতঙ্কিত হয়ে এক নারী শ্রমিক স্ট্রোক করে মারা গেছেন। তার গায়ে আঘাতের কোনো চিহ্ন নেই। পুলিশের আঘাতে তার মৃত্যু হয়নি।

নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ বুবলীর মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে একই বক্তব্য দিয়েছেন।

নারায়ণগঞ্জ তিনশ' শয্যা হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. তাহমিনা নাজনিন জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তিনি মারা যান। তার শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন ছিল না। ময়নাতদন্ত ছাড়াই শ্রমিকরা তার লাশ নিয়ে গেছেন। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তিনি স্ট্রোকে মারা গেছেন।

আরও পড়ুন

'অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশ' গড়বে আওয়ামী লীগ

'অপ্রতিরোধ্য বাংলাদেশ' গড়বে আওয়ামী লীগ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে দুই প্রধান জোটেই চলছে ...

ক্ষমতার ভারসাম্য চায় ঐক্যফ্রন্ট

ক্ষমতার ভারসাম্য চায় ঐক্যফ্রন্ট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে দুই প্রধান জোটেই চলছে ...

যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানরাও ভোটের লড়াইয়ে

যুদ্ধাপরাধীদের সন্তানরাও ভোটের লড়াইয়ে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার আসামি, যুদ্ধাপরাধে ...

সর্বাত্মক সঙ্গী সোভিয়েত ইউনিয়ন

সর্বাত্মক সঙ্গী সোভিয়েত ইউনিয়ন

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ভারত প্রত্যক্ষভাবে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করলেও ...

৩৬৫ দিনই পাশে

৩৬৫ দিনই পাশে

চলতি বছরের ৭ ডিসেম্বর। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে জাতীয় ...

নির্বাচনের খরচে চোখ রাখছে দুদক

নির্বাচনের খরচে চোখ রাখছে দুদক

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চোখ এখন নির্বাচনী মাঠে। প্রচারণায় অস্বাভাবিক ...

বিএনপি কর্মীদের পিটুনিতে আ.লীগ নেতার মৃত্যু

বিএনপি কর্মীদের পিটুনিতে আ.লীগ নেতার মৃত্যু

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোটের প্রচারের দ্বিতীয় দিনে ফরিদপুর-৩ (সদর) ...

জনগণ স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে ভোট দেবে: তোফায়েল

জনগণ স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে ভোট দেবে: তোফায়েল

জনগণ স্বাধীনতার চেতনার পক্ষে ভোট দেবে বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী ...