অর্থাভাবে সংস্কার হচ্ছে না পানাম নগরী

সোনারগাঁ

প্রকাশ: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮     আপডেট: ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮       প্রিন্ট সংস্করণ     

শাহাদাত হোসেন রতন, সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ)

সোনারগাঁয়ের পানাম নগরীতে ভগ্নপ্রায় প্রাচীন ভবনের সারি- সমকাল

প্রাচীন বাংলার রাজধানীখ্যাত সোনারগাঁয়ের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের সাক্ষী পানাম নগরী অর্থাভাবে সংস্কার হচ্ছে না। পানাম নগরীর ৫টি ভবন সংস্কারের জন্য কোরিয়াভিত্তিক বহুজাতিক কোম্পানি ইয়াংওয়ান করপোরেশনের সঙ্গে চুক্তি হওয়ার কথা ছিল। অজ্ঞাত কারণে এ সংস্কার কাজের চুক্তি আর হয়নি। এ প্রাচীন নগরীর সংস্কারের জন্য কোনো বিদেশি কোম্পানি বা সংস্থা বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করছে না। দীর্ঘ সময় সংস্কার না হওয়ায় এক সময়ে জৌলুসপূর্ণ পানাম নগরী আজ ভুতুড়ে অবস্থায় পড়ে আছে। 

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভা এলাকায় অবস্থিত এ জনপদ। লোনা ইট, কালো পাথরের টেরাকোটা ধূসর স্মৃতি বিক্ষিপ্ত অবস্থায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে পানাম ও তার আশপাশের গ্রামগুলোতে। শত শত বছরের অনাদর আর অবহেলার চিহ্ন গায়ে মেখে আজও দাঁড়িয়ে আছে ধ্বংসাবশেষ অট্টালিকা। সোনালি অতীতের সাক্ষী এসব অট্টালিকা এখনও নজর কাড়ে ভ্রমণপিপাসু দেশিবিদেশি পর্যটকদের। 

ওয়ার্ল্ড মনুমেন্ট ফান্ড ২০০৬ সালে পানাম নগরকে বিশ্বের ধ্বংসপ্রায় ১০০টি ঐতিহাসিক স্থাপনার তালিকায় প্রকাশ করে। পানামকে ঘিরে আছে প্রাচীন নগর ও রাজধানীকেন্দ্রিক স্মৃতি। যে স্মৃতির বেশিরভাগই কালের করাল গ্রাসে লুপ্ত আজ। 

এদিকে ২০০১ সালে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর পানাম নগরী সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ করে। ওই সময়ে অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে পানাম নগরীকে উদ্ধারের কার্যক্রম শুরু হয়। ২০০৯ সালে পানাম নগরীকে সম্পূর্ণভাবে দখলমুক্ত করে স্থানীয় প্রশাসন। এ নগরীর ছোট-বড় মোট ৫২টি ভবনকে চিহ্নিত করে অবৈধ দখলমুক্ত করা হয়। প্রাথমিকভাবে প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয়ে কয়েকটি ভবনের সংস্কার কাজ শুরু হয়। সংস্কারের নামে পানাম নগরীতে ৯টি ভবন প্রত্নতত্ত্ব সৌন্দর্য নষ্ট করে যেনতেনভাবে চুন-সুরকির প্রলেপ দিয়ে সংস্কার করার চেষ্টা করলে স্থানীয় সুশীল সমাজ ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ দল প্রবল আপত্তি করলে সংস্কার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। 

সাহিত্যিক ও ইতিহাস গবেষক শামসুদ্দোহা চৌধুরী বলেন, পুরাতত্ত্ব সংরক্ষণ ও সংস্কারের অভাবে পানাম সিটির বিভিন্ন ভবনের ইট-সুরকি খসে পড়ছে। 

সোনারগাঁর ইউএনও শাহিনুর ইসলাম বলেন, সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় ইতিমধ্যে পানাম নগরী সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য উদ্যোগ নিয়েছে। একটি বিদেশি কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ হয়েছে। তাদের সঙ্গে চুক্তি হওয়ার কথা রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ৫টি ভবন সংস্কার হবে। আশা করি শিগগিরই এ নগরীর সংস্কার কাজ শুরু হবে।