ধারালো রামদার ওপর দাঁড়িয়ে স্রষ্টার আরাধনা করেন তারা

প্রকাশ: ১৫ এপ্রিল ২০১৯     আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৯      

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগেরহাট

ধারালো রামদার ওপর দাঁড়িয়ে আছেন সাগর সাহা -সমকাল

বাগেরহাটে বাংলা বছরের প্রথম দিনে ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রামদায়ের (ধারালো অস্ত্র) ওপর দাঁড়িয়ে স্রষ্টার আরাধনা করা হয়। গ্রামের সকলের মঙ্গল কামনায় ১০৬ বছর ধরে প্রতি পহেলা বৈশাখেই জেলা সদরের কাড়াপাড়া ইউনিয়নের কাড়াপাড়া বাজারে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

রোববার বিকেলে সরেজমিনে দেখা যায়, বাজারের পাশে জমিদার বাড়ির পুকুরে (কালকের দীঘি) রামদা নিয়ে ডুব দেয় ৩ যুবক। পরে পানি থেকে উঠে পুকুরের সিঁড়ি দাঁড়ায় তারা। এরপর প্রথমে ২ যুবক রামদাটিকে হাত দিয়ে ধরে রাখেন, পরে আরেক সাদা ধুতি পরে খালি শারীরে ধারালো অস্ত্রটির ওপর উঠে দাঁড়ান। ওই অস্ত্রের ওপর দাঁড়িয়ে পুরো বাজার ঘুরে অস্থায়ী ঠাকুর ঘরে ৭টি চক্কর দেন তারা। এ সময় সনাতন ধর্মালম্বী ভক্তরা উলু ধ্বনি দিয়ে ওই যুবকদের উৎসাহ দেন। পরে রামদা ধুয়ে ভক্তদের জল দেন পুরোহিত। রোগ মুক্তি ও মঙ্গল কামনায় এই জল পান ও শরীরে মাখেন ভক্তরা। 

ব্যতিক্রমধর্মী এ অনুষ্ঠান দেখতে আসা বৃদ্ধ তারক মন্ডল বলেন, জমিদারদের আমল থেকেই এখানে রামদার ওপর দাঁড়ানো অনুষ্ঠান হয়ে আসছে। আমরা সকলে এদিন খুব আগ্রহ নিয়ে এটি দেখি। ভগবানের নৈকট্য লাভের জন্য প্রার্থনা করি। 

৭৫ বছর বয়সী মহারাণী শিকদার বলেন, যে কোনো ক্ষতির হাত থেকে বাঁচতে আমরা এ অনুষ্ঠান করে থাকি। পরিবারের সকলকে নিয়ে এ অনুষ্ঠানে আসি। রামদা ধোয়া পানি ব্যবহার করি। 

মৌসুমি দেবনাথ বলেন, সকল অমঙ্গল থেকে মুক্তির আশায় রামদা ধোয়া জল আমরা শরীরে মাখি।

রামদার ওপর দাঁড়ানো যুবক সাগর সাহা (৪১) বলেন, ১০৬ বছর ধরে আমাদের গ্রামে এ উৎসব চলছে। আমি ২৮ বছর ধরে নিয়মিত রামদার ওপর দাঁড়িয়ে আসছি। গ্রামের সকলের মঙ্গল কামনায় আমাদের এই আয়োজন।

উৎসবের পুরোহিত বিলেশ্বর চক্রবর্তী (৮২) জানান, আমরা ভগবানের কৃপা লাভের আশায় এ পূজা করি।

বিষয় : বাগেরহাট