শ্রীপুরে গৃহবধূকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ, ভিডিওচিত্র ধারণ

প্রকাশ: ১৪ মে ২০১৯      

মাগুরা ও শ্রীপুর প্রতিনিধি

প্রতীকী ছবি

মাগুরার শ্রীপুরে এক গৃহবধূকে রাস্তা থকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করেছে এক বখাটে। এ সময় সঙ্গী অপর বখাটে মোবাইল ফোনে এ ঘটনার ভিডিওচিত্র ধারণ করে রাখে। মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার বরিশাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে ওই গৃহবধূর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ ধর্ষক আনিচুর রহমান ও তার সহযোগী রবিউলকে আটক করে। তাদের দু'জনের বাড়িই বরিশাট গ্রামে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন শ্রীপুর থানার ওসি।

ঘটনার শিকার গৃহবধূ সমকালকে জানান, স্বামীর সঙ্গে রাগারাগি করে সোমবার সন্ধ্যায় পাশের হরিন্দি গ্রামের একটি বাড়িতে আশ্রয় নেন। মঙ্গলবার ভোরে সেখান থেকে মাগুরা যাওয়ার জন্য হেঁটে বরিশাট গ্রামের পেট্রোল পাম্পের কাছাকাছি এলে দুই যুবক তার পিছু নেয়। তারা তার বাড়ি ও নাম জিজ্ঞাসা করে। তিনি কোনো উত্তর না দিলে বখাটে দুই যুবক তার মুখ চেপে ধরে গ্রামের শ্মশানের পাশে একটি বাগানে নিয়ে যায়। সেখানে প্রথমে বখাটেরা তার গলায় থাকা স্বর্ণের চেইন ও কানের দুল খুলে নেয়। একপর্যায়ে একজন তাকে ধর্ষণ করে এবং অন্যজন মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণ করে।

গৃহবধূর এক স্বজন জানান, তাকে খুঁজতে বের হয়ে শ্মশানের দিকে গেলে সেখানকার একটি বাগানের ভেতর থেকে এক যুবক ছুরি নিয়ে তেড়ে আসে। এ সময় তার চিৎকারে লোকজন ছুটে এসে দুই বখাটেকে আটক করে। পরে তাদের শ্রীপুর থানা পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

ঘটনাস্থলের কাছাকাছি বাড়ির এক নারী বলেন, মেয়েটি প্রাণে বাঁচতে দৌড়ে তাদের বাড়িতে এসে পড়ে যান।

শ্রীপুর থানার ওসি মাহাবুবুর রহমান বলেন, আনিচুর ধর্ষণ করে ও রবিউল তা মোবাইলে ভিডিও ধারণ করে। তবে ভিডিওটি এখনও পুলিশ উদ্ধার করতে পারেনি। আনিচ বরিশাট গ্রামের আজিজ রহমানের ছেলে এবং রবিউল একই গ্রামের সাজ্জাদ হোসেনের ছেলে বলে জানা গেছে।

বিষয় : ধর্ষণ মাগুরা