মাত্র ১০০ টাকার জন্য ছাত্রলীগ নেতাকে হত্যা করেন তিনি!

প্রকাশ: ২৮ জুন ২০১৯     আপডেট: ২৮ জুন ২০১৯      

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

গ্রেফতার সাইফুল -সমকাল

পটুয়াখালীর বাউফলে ছাত্রলীগ নেতা শুভঙ্কর হত্যা মামলার প্রধান আসামি সাইফুল ইসলামকে (২১) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ঢাকা পালিয়ে যাওয়ার সময় উপজেলার মিলঘর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার দুপুরে পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। 

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মইনুল হাসান বলেন, মাত্র একশ’ টাকার জেরে সাইফুল ইসলামের সঙ্গে বাল্য বন্ধু ও ছাত্রলীগ নেতা শুভঙ্কর হালদারের বাক-বিতণ্ডাসহ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ জের ধরে সাইফুল গত ২৩ জুন বাবা বারেক হাওলাদারে ব্যবহৃত মোবাইল দিয়ে শুভঙ্করকে ডেকে নিয়ে ছোলাবুনিয়া বাজারে একত্রিত হন। এক পর্যায় সাইফুল বন্ধু শুভঙ্করকে নিয়ে গোলাবাড়ি এলাকায় যান। সেখানে শুভঙ্করকে গাঁজা সেবন করান তিনি। পরে রাত ৯টার দিকে শুভঙ্কর প্রকৃতির ডাকে নির্জন স্থানে গেলে সাইফুল পেছন থেকে লাথি মেরে তাকে মাটিতে ফেলে দিয়ে পিঠের ওপর ওঠেন। এক পর্যায়ে রুমাল দিয়ে  শ্বাসরোধ করে শভঙ্করকে হত্যা করেন। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর সাইফুল কোমরের বেল্ট শুভঙ্করের গলায় পেঁচিয়ে পাশের খালের পানিতে ফেলে দেন। হত্যা শেষে শুভঙ্করের ব্যবহৃত বাইসাইকেল ও মোবাইল গলাচিপা থানার লামনা গ্রামে খালু রহিম মোল্লার বাড়িতে রেখে আসেন সাইফুল। পরে তা পুলিশ উদ্ধার করে। সাইফুল ঢাকায় রং মিস্ত্রির কাজ করেন এবং শুভঙ্করের বাল্যবন্ধু।

উল্লেখ্য, নিহত শুভঙ্কর হাওলাদার বাউফল উপজেলার নওমালা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন। গত ২৬ জুন স্থানীয়রা গোলাবাড়ি খালে শুভঙ্করের লাশ ভাসতে দেখে পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ শুভঙ্করের লাশ উদ্ধার করে। ওই দিনই শুভঙ্করের বাবা সত্য রঞ্জন হাওলাদার অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।