শ্রীমঙ্গলে পর্যটকদের ঢল

প্রকাশ: ০৮ জুন ২০১৯      

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি

ঈদের ছুটি শেষে আবারো কর্মব্যস্ত জীবনে ফিরে যাচ্ছেন সবাই। তবে ঈদ শেষ হলেও আনন্দের রেশ এখনো কাটেনি মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে। ঈদের ছুটি ফুরালেও এখানকার পর্যটনকেন্দ্রগুলোতে পর্যটকদের পদচারণে মুখরিত। সেই সঙ্গে হোটেল-রিসোর্টগুলোর কক্ষ ভাড়া হওয়ায় লাভের মুখ দেখছেন ব্যবসায়ীরা।

শ্রীমঙ্গলের বিভিন্ন পর্যটন স্পট ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন চা-বাগান, বধ্যভূমি ৭১, বিটিআরআই, বাংলাদেশ বন্য প্রাণী সেবা ফাউন্ডেশন, নিলকণ্ঠের ১০ লেয়ার চা, চা-কন্যার ভাস্কর্য, টি রিসোর্ট মিউজিয়াম, মণিপুরী পাড়ার হস্তশিল্পের দোকানসহ বিভিন্ন স্থানে পর্যটকদের ভিড় ছিল সবচেয়ে বেশি।

ঢাকা থেকে আসা পর্যটক জয়নাল আহমেদ সমকালকে বলেন, 'ঈদের ছুটি হওয়ার অনেক আগেই অনালাইনে শ্রীমঙ্গলের একটি হোটেলের কক্ষ ভাড়া করে রেখেছিলাম। ছুটি শুরু হতেই পরিবারের সদস্যদের নিয়ে এখানে আসলাম। সবুজ চায়ের বাগান, টিলা, বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখছি। এখানকার প্রাকৃতিক দৃশ্য যেকোনো মানুষকে বিমোহিত করে। আর এখানে আসার খরচও অনেক কম। তাই পরিবার নিয়ে ছুটি কাটাতে এখানে প্রায়ই ছুটে আসি।'

শ্রীমঙ্গল টি টাউন গেষ্ট হাউজের ব্যবস্থাপক ওয়াহিদ আহমেদ বলেন, 'ঈদের ছুটির পরও আমাদের শ্রীমঙ্গলের হোটেল-রিসোর্টগুলোতে ভালো পর্যটক আছে। আশা করছি এ রকমভাবে আরও কয়েক দিন যাবে।'

শ্রীমঙ্গল ট্যুরিষ্ট ইনফরমেশন সেন্টারের পরিচালক শিমুল তরফদার বলেন, সারাবছরের তুলনায় ঈদ কিংবা অন্যকোন বড় ছুটিতে এখানে প্রচুর পর্যটক আসেন। ঈদের পরদিন থেকে এখন পর্যন্ত দেশ বিদেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রচুর পর্যটকের আগমন হচ্ছে। শ্রীমঙ্গলে দর্শনীয় স্থান ও ভালো মানের হোটেল-রিসোর্ট ও রেস্টুরেন্ট থাকার কারণে এখন পর্যটকেরা শ্রীমঙ্গলকেই বেছে নিচ্ছেন। তবে এখানকার রাস্তাঘাটসহ কিছু সমস্যা রয়েছে এগুলো সরকারের সংশ্লিষ্ট মহল সমাধানের চেষ্টা করলে পর্যটকরা আরো বেশি এখানে আসবেন।

মৌলভীবাজার সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মো. আশরাফুজ্জামান সমকালকে বলেন, 'ঈদ উপলক্ষে আমাদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এ উপলক্ষে বিভিন্ন দর্শনীয় স্থানে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোশাকে আমাদের পুলিশের পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঈদের ছুটিতে ঘুরতে এসে শেষে পর্যটকরা যেন নিরাপদে বাড়ি ফিরে যেতে পারে সে মোতাবেক আমাদের  নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।'