আসছে চসিক নির্বাচন

মহিউদ্দিনপত্নী প্রার্থী হতে পারেন

প্রকাশ: ২৫ আগস্ট ২০১৯       প্রিন্ট সংস্করণ     

তৌফিকুল ইসলাম বাবর, চট্টগ্রাম

হাসিনা মহিউদ্দিন

আগামী বছরের প্রথম দিকে অনুষ্ঠিত হতে পারে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচন। আসন্ন এই নির্বাচন সামনে রেখে এখন থেকেই তোড়জোড় শুরু করেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। এবারও আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তবে দলের পক্ষে নির্বাচনে অংশ নিতে আগ্রহ রয়েছে সাবেক সিটি মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর স্ত্রী হাসিনা মহিউদ্দিনেরও। সমকালের কাছে এই আগ্রহের কথা ব্যক্তও করেছেন তিনি। এটা হলে পাল্টে যেতে পারে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী সমীকরণ। এই দু'জন ছাড়াও নির্বাচনে মনোনয়ন চাইতে পারেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সাবেক চেয়ারম্যান ও দলের কোষাধ্যক্ষ আবদুচ ছালামসহ আরও কয়েকজন আওয়ামী লীগ নেতা। ফলে নির্বাচনের বেশ আগেভাগেই মনোনয়ন নিয়ে আওয়ামী  লীগে গড়ে উঠতে যাচ্ছে অন্যরকম এক 'যুদ্ধ'।

মহিউদ্দিনপত্নী হাসিনা দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। বর্তমানে চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের মা তিনি।

চট্টগ্রামের রাজনীতিতে, বিশেষ করে আওয়ামী লীগের রাজনীতির অন্যতম পুরোধা ব্যক্তি ছিলেন মহিউদ্দিন চৌধুরী। দলে বিপুলসংখ্যক অনুসারী নেতাকর্মী রয়েছে তার। 'চট্টল বীর' হিসেবে পরিচিত মহিউদ্দিনের মৃত্যুর পর অনুসারী নেতাকর্মীদের নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে তার পরিবারের সঙ্গে। বিশেষ করে মহিউদ্দিনের পরিবারের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এক ধরনের 'ছায়া' রয়েছে বলে মনে করা হয়। চসিকের মেয়র পদে নির্বাচনে হাসিনা মহিউদ্দিনের পক্ষে এগুলো অন্যতম নিয়ামক হতে পারে বলে মনে করছেন রাজনীতি-সংশ্নিষ্ট ব্যক্তিরা।

গতকাল শনিবার মোবাইল ফোনে আলাপকালে হাসিনা মহিউদ্দিন সমকালকে বলেন, 'রাজনীতি করি। তাই নির্বাচনের প্রতি আগ্রহ থাকাটাই স্বাভাবিক। তবে আগ্রহ থাকলেই তো হবে না। দলের সিদ্ধান্তের বিষয়ও তো রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চাইলে আমি নির্বাচন করতে প্রস্তুত।' এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'আনুষ্ঠানিকভাবে এ আগ্রহ প্রকাশের সময় এখনও আসেনি। দলে আমাদের অবস্থান ও সাধারণ মানুষের কাছে জনপ্রিয়তা কতুটুক- সেটা দল জানে, মানুষও জানে। তাই এটা নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না।'

দল থেকে মনোনয়ন পেলে নির্বাচন করার মতো প্রস্তুতি রয়েছে কি-না জানতে চাইলে হাসিনা মহিউদ্দিন বলেন, 'মহিউদ্দিন চৌধুরী কোনো কিছুই প্রস্তুতি নিয়ে করেননি। তিনি মানুষের ওপর আস্থা ও বিশ্বাস রাখতেন। আমি একজন রাজনৈতিক কর্মী ও তার সহধর্মিণী হিসেবে তার কাছ থেকে এটাসহ অনেক কিছু শিখেছি। তাই মানুষের ওপর ভরসা রাখতে চাই। তারাই বিচার করবেন।' নির্বাচনের বিষয়ে ছেলে ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরীর সঙ্গে এখন পর্যন্ত তেমন কোনো আলাপ হয়নি বলে জানান তিনি।

২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল সর্বশেষ চসিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিএনপি প্রার্থী ও সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমকে পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হন আ জ ম নাছির উদ্দীন। যদিও কারচুপির অভিযোগ এনে ভোট গ্রহণকালেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ায় বিএনপি ও দলটির প্রার্থী মনজুর আলম।

চসিকের একটানা ১৭ বছর মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা মহিউদ্দিন চৌধুরী। গত নির্বাচনে নাছির উদ্দীনের পাশাপাশি তিনিও দলের মনোনয়ন চেয়েছিলেন। কিন্তু বয়সের কথা বিবেচনা করে শেষ পর্যন্ত তাকে মনোনয়ন দেয়নি দলের হাইকমান্ড।

নগর আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মহিউদ্দিনের মৃত্যুর পর দলে বেশ ভালো অবস্থান তৈরি করেছেন আ জ ম নাছির। দলে সার্বজনীন একটি ভাবমূর্তি তৈরির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। মতবিরোধের কথা ভুলে সবাইকে নিয়ে কাজ করতে চাইছেন তিনি। বিরোধী পক্ষের অনেক নেতাকর্মীও তার এই আগ্রহকে ভালো চোখে দেখছেন।