মাকে শ্বশুরবাড়ি থেকে তাড়িয়ে শিশু সন্তানকে হত্যার অভিযোগ

প্রকাশ: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

কালিয়া (নড়াইল) প্রতিনিধি

নড়াইলের কালিয়ায় মাকে মারধর করে শ্বশুরবাড়ি থেকে তাড়িয়ে মাহিমা (২) নামে এক শিশুকে পুকুরে ফেলে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করেছে। 

রোববার সকালে উপজেলার হাড়িডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। 

পুলিশ জানায়, উপজেলার হাড়িডাঙ্গা গ্রামের ছাদিয়ার থান্দারের ছেলে মাহামুদ থান্দার সৌদি আরবে কর্মরত। মাহামুদের ভাই শামীম থান্দারসহ পরিবারের লোকজন পারিবারিক কলহের জেরে মাহামুদের স্ত্রী তাছলিমা বেগমকে (৩০) সকাল ১১টার দিকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়। তাছলিমার একমাত্র শিশুকন্যা মাহিমাকেও তার কোল থেকে কেড়ে রাখে। তাছলিমা তাকে মারধর ও সন্তান কেড়ে রাখায় কালিয়া থানায় অভিযোগ দেন। 

কালিয়া থানা পুলিশ ঘটনার তদন্তসহ মাহিমাকে উদ্ধার করতে শামীমদের বাড়িতে গিয়ে মাহিমার খোঁজ জানতে চাইলে বাড়ির লোকজন তার সঠিক সন্ধান না দেওয়ায় পুলিশ ও স্থানীয়রা খোঁজাখুঁজি করে তাকে বাড়ির পাশের পুকুর থেকে থেকে উদ্ধার করে। মাহিমাকে কালিয়া হাসপাতালে পাঠালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

তাছলিমার অভিযোগ, তাকে তাড়িয়ে দিয়ে তার শিশুকন্যাকে শামীম ও তার পরিবারের লোকজন পুকুরের পানিতে ফেলে হত্যা করেছে।        

তাছলিমার দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ ওই গ্রামের বোচা থান্দারের স্ত্রী রোজিনা বেগমকে (৩৭) শিশুর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে আটক করেছে।

কালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকরাম হোসেন বলেছেন, নির্যাতিত গৃহবধূ তাছলিমার অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তার শিশু কন্যাকে উদ্ধার করতে শামীমের বাড়িতে গেলে বাড়ির লোকজন ওই শিশুর সন্ধান দিতে পারেনি। পুলিশ তাকে পুকুরের পানি থেকে উদ্ধার করেছে। তাছলিমার অভিযোগের ভিত্তিতে একজনকে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ঘটনাটিকে হত্যাকাণ্ড বলেই ধারণা করছে পুলিশ।