চাঁদপুরে ইলিশের বাজারে প্রতারণা

প্রকাশ: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯      

চাঁদপুর প্রতিনিধি

বরফে ঢাকা ইলিশ মাছ

চাঁদপুরে ইলিশের প্রধান আড়ত চাঁদপুর মাছঘাটে তিল ধারণের জায়গা নেই। আড়তের পাকা মেঝেতে মাছের স্তূপ। ছোট-বড় বরফের বাক্সে ভর্তি, মাঝারি সাইজের বাঁশের শত শত টুকরিতে ইলিশ আর ইলিশ। তাই ক্রেতারা মনে করতেই পারেন- মাছঘাটের সব ইলিশই চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার। কিন্তু ক্রেতাদের সেই ধারণা ভুল বলে জানালেন ঘাটের বড় ব্যবসায়ী ও মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান কালু।

তিনি বলেন, এই ঘাটে আসা ইলিশ চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার সুস্বাদু ইলিশ নয়!

ঢাকা থেকে মাছ কিনতে সোমবার বিকেলে একজন সাংবাদিক ঘাটে আসেন। তিনি মাছ কিনতে গিয়ে বিক্রেতাকে বলেন, 'আমাকে শুধু চাঁদপুরের ইলিশই দেবেন।' এ সময় ওই মাছ ব্যবসায়ী তাকে ইলিশ নিয়ে প্রতারণার বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, 'এই আড়তে এখন প্রতিদিন প্রায় তিন হাজার মণ ইলিশ আমদানি হয়। কিন্তু বিপুল পরিমাণ ইলিশের কোনোটিই চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার নয়। চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ, হাতিয়াসহ সাগরবেষ্টিত মেঘনা বা ইলিশ আছে এমন নদী থেকে এসব মাছ আসে। তাই যে ইলিশ চাইছেন, তা আমার কাছে তো নেই, এমনকি এখানকার কারও কাছেই পাবেন না।'

ওই ব্যবসায়ী জানান, চাঁদপুরে পদ্মা-মেঘনায় ইলিশ জেলেদের জালে ধরা পড়ছে না। আর যা কিছু ধরা পড়ছে, তাও নদীর মধ্যেই অন্য পার্টি তথা ভাসমান ব্যবসায়ীরা কিনে নিচ্ছেন।

সংশ্নিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এখন প্রতিদিনই ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, গাজীপুর, ময়মনসিংহ, এমনকি উত্তরবঙ্গের জেলাগুলো থেকে ইলিশ কিনতে চাঁদপুর আসছেন শত শত ক্রেতা। কিন্তু প্রায় ৯০ ভাগ ব্যবসায়ীই ক্রেতাদের কাছে চাঁদপুরের ইলিশ বলে বাইরের ইলিশ বিক্রি করছেন। তবে সন্দ্বীপ-হাতিয়ার ইলিশের দামও আকাশচুম্বী। এই আড়াতে এক কেজি বা তার একটু বেশি ওজনের ইলিশ ১২শ' থেকে ১৫শ' টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

চাঁদপুর মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের প্রধান ইলিশ গবেষক বলেন, আগামী তিন থেকে চার দিন পর অমাবস্যা। আশা করছি, এ সময়ে চাঁদপুরের নদীতে জেলেদের জালে ইলিশ ধরা পড়বে। তিনি জানালেন, ঘাটের ইলিশ চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনার নয়। প্রতারণার বিষয়ে তিনি বলেন, এটি আইনি বিষয়, নৈতিকতার বিষয়।

জেলা মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট সূত্রে জানা যায়, চাঁদপুরের মতলব ষাটনল থেকে হাইমচরের চরভৈরবী পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটার অঞ্চলের পদ্মা-মেঘনার মিঠাপানির সুস্বাদু ইলিশের খ্যাতি দেশজুড়ে। আগস্টের শুরু থেকে অক্টোবর পর্যন্ত এ অঞ্চলের জেলেদের জালে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ে। কিন্তু জাটকা নিধন, ডুবোচর পড়া এবং নদীদূষণসহ নানা কারণে এবার পর্যাপ্ত ইলিশ ধরা পড়ছে না।