কয়লা দুর্নীতি: বড়পুকুরিয়ার সাবেক এমডিসহ তিনজন কারাগারে

প্রকাশ: ১৬ অক্টোবর ২০১৯      

দিনাজপুর প্রতিনিধি

সংগৃহীত

কয়লা দুর্নীতি মামলায় দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রকৌশলী হাবিবউদ্দিন আহমেদসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি মামলার বাকি ২০ আসামির জামিন মঞ্জুর করা হয়েছে। 

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ১ লাখ ৪৩ হাজার ৭২৭ দশমিক ৯৯ টন কয়লা (আনুমানিক মূল্য ২৪৩ কোটি ২৮ লাখ টাকা) আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি তারা।

ওই মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশের একদিন পর বুধবার দুপুরে ২৩ আসমি দিনাজপুরের সিনিয়র স্পেশাল জজ আজিজ আহমদ ভূঞার আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে তিনজনকে কারাগারে পাঠান। অপর দু'জন হলেন- কয়লা লোপাটের ঘটনা ধরা পড়ার সময়ে মাইন অপারেশন বিভাগের মহাব্যবস্থাপক আবু তাহের মো. নুর-উজ জামান ও স্টোর ডিপার্টমেন্টের উপমহাব্যবস্থাপক একেএম খালেদুল ইসলাম।

দুদকের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ওমর ফারুক আদালতের উদ্ধৃতি দিয়ে জানান, কয়লা লোপাটের ঘটনায় সুস্পষ্ট অভিযোগ আসায় আদালত তিন আসামির জামিন নামঞ্জুর এবং অভিযোগপত্রে থাকা ২০ জনের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পর্যায়ক্রমে না আসায় তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছেন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ওই খনি থেকে ২০০৬ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ১৯ জুলাই পর্যন্ত ১ লাখ ৪৩ হাজার ৭২৭ দশমিক ৯৯ টন কয়লা চুরি হয়। কয়লা গায়েবের ঘটনায় বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানির ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) আনিসুর রহমান বাদী হয়ে গত বছর ২৪ জুলাই ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে পার্বতীপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটি দুদকের তফসিলভুক্ত হওয়ায় দুদক কার্যালয়ে স্থানান্তর করা হয়। পরে তদন্ত কর্মকর্তা হিসেবে মামলাটি দুদকের উপপরিচালক সামসুল আলম তদন্ত করেন। 

গত ২৪ জুলাই মামলাটির চার্জশিট (অভিযোগপত্র) আদালতে দাখিল করা হয়।