ছাগী নয়, দুধ দিচ্ছে পাঁঠা!

প্রকাশ: ২৮ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ২৮ অক্টোবর ২০১৯      

জয়পুরহাট প্রতিনিধি

জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলায় ব্যতিক্রমী এক ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার মোলান রশিদপুর গ্রামে গাভী কিংবা ছাগী নয়, দুধ দিচ্ছে একটি পাঁঠা। ব্যতিক্রমী এ ঘটনার খবর দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে দূর-দুরান্ত থেকে মানুষ এই পাঠাটিকে দেখতে আসছেন।

জানা গেছে, মোলান রশিদপুর গ্রামে ছাগল প্রজনন খামারী বাবু লালের খামারে বিভিন্ন প্রজাতীর ১৬টি ছাগলের পাঁঠা রয়েছে। বাণিজ্যিকভাবে ছাগল-বকরী প্রজননের উদ্দেশ্যে তিনি দীর্ঘদিন ধরে পাঁঠাগুলো পালন করে আসছেন। বছর খানেক আগে ওই খামারের একটি পাঁঠার তলপেটে ছাগীর মত দুধের বাঁট লক্ষ্য করেন বাবু লাল। স্থানীয় পশু চিকিৎসা কেন্দ্রে নিয়ে গেলে চিকিৎসক জানান, পাঁঠাটির ওই বাঁটগুলো দিয়ে যে দুধ নিঃসরণ হচ্ছে এর স্বাদ ও গুণগত মান গাভী কিংবা ছাগীর দুধের মতোই। এরপর থেকে চিকিৎসকের পরামর্শে নিয়মিত দুধ দোহানোর পর তা নিজেও খান আবার পাড়া-পড়শিদেরও দেন খামারী বাবু লাল।

বাবু লাল জানান, প্রতি দিন আধা লিটার থেকে এক লিটার দুধ দেয় প্রজনন ক্ষমতা সম্পন্ন এই পাঁঠাটি। আশ-পাশের গ্রামগুলো ছাড়াও দূর-দুরান্তের উৎসুক জনতা ভীড় করতে থাকেন তার পাঁঠার খামারে। জেলাসহ দেশের কোথাও এমন বিরল ঘটনা ঘটেনি বলে জানান তিনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পাঁচবিবি উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল হাকিম জানান, এমন ঘটনা এলাকায় বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করছে। অক্সি-ডক্সিন নামক একটি হরমনের কারনে এমনটি হয়। এই হরমনের সিক্রেশন যখন খুব বেশি হয়ে যায় তখন পুরুষ ছাগলও প্রতিদিন আধা লিটার থেকে ১ লিটার দুধ দেওয়া শুরু করে।

প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আরো জানান, পাঁঠার দুধ স্বাভাবিক ছাগীর দুধের মতই। বাবু লালের খামারের পাঁঠার দুধ দেওয়ার বিষয়টি সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রয়েছে বলেও জানান স্থানীয় সরকারি প্রাণিসম্পদ বিভাগের এই কর্মকর্তা।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন: