দলের নাম ব্যবহার করে কেউ সফল হবে না: অর্থমন্ত্রী

প্রকাশ: ০৯ অক্টোবর ২০১৯      

চট্টগ্রাম ব্যুরো

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল- ফাইল ছবি

নিজের ছাত্রজীবনের কথা তুলে ধরে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ইঙ্গিত করে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আমি টিউশনি করে লেখাপড়া করেছি, ছাত্রলীগ করেছি। সেখান থেকে অর্থমন্ত্রী হয়েছি। তোমাদের এত তাড়া কিসের? দলের নাম ব্যবহার করে কেউ সফল হবে না। এখন যে অভিযান চলছে, তাতে জয়ী হবেন প্রধানমন্ত্রী।

আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আতাউর রহমান খান কায়সারের নবম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর এলজিইডি অডিটোরিয়াম মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, আমরা অস্থিরতার মধ্য দিয়ে যাচ্ছি। আমি বিশ্বাস করি, এখন যা ঘটছে তা কেটে যাবে। এ সময় আতাউর রহমান কায়সারকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, কায়সার ভাই মানুষের কল্যাণে জীবন উৎসর্গ করেছেন। চট্টগ্রামের মানুষ কায়সার ভাইকে এখনও ভালোবাসেন।

নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম। চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন নগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নইমউদ্দিন চৌধুরী, খোরশেদ আলম সুজন, আলতাফ হোসেন বাচ্চু, উত্তর জেলা সাধারণ সম্পাদক এমএ সালাম, যুগ্ম সম্পাদক বদিউল আলম, দক্ষিণ জেলা সহসভাপতি মো. ইদ্রিস, উত্তর জেলা যুগ্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ। পরিবারের পক্ষে বক্তব্য দেন সংরক্ষিত নারী সংসদ সদস্য ওয়াসিকা আয়েশা খান।

আতাউর রহমান খান কায়সারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে  বুধবার পরিবারের উদ্যোগে দিনব্যাপী কর্মসূচির পাশাপাশি দলীয়ভাবেও নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এদিন সকালে নগরীর চন্দনপুরা বংশাল বাড়িতে মরহুমের কবরে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরিবারের উদ্যোগে দোয়া, মিলাদ মাহফিল এবং এতিমদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়।

বুধবার কায়সার স্মরণে আলোচনা সভা করেছে মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগ। দলের সভানেত্রী হাসিনা মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে তার চশমা হিলস্থ বাসভবনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর নিলু নাগের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন সহসভাপতি মমতাজ খান, বিলকিস কলিমুল্লাহ, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মালেকা চৌধুরী, হোসনে আরা বেগম, খুরশিদা বেগম, হাসিনা আক্তার টুনু প্রমুখ।

আতাউর রহমান খান ২০১০ সালের ৯ অক্টোবর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।