ঢাকা বুধবার, ২২ মে ২০২৪

রৌমারীতে করোনা রোগী শনাক্ত, ২ ওয়ার্ড লকডাউন

রৌমারীতে করোনা রোগী শনাক্ত, ২ ওয়ার্ড লকডাউন

কুড়িগ্রাম ও রৌমারী প্রতিনিধি

প্রকাশ: ১৪ এপ্রিল ২০২০ | ০১:০২ | আপডেট: ৩০ নভেম্বর -০০০১ | ০০:০০

কুড়িগ্রামের রৌমারী উপজেলার দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়নের পুরান টাপুরচর গ্রামে এক কিশোর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় ওই ইউনিয়নের ৪ ও ৫ নম্বর ওয়ার্ড সম্পূর্ণরূপে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আল ইমরান লকডাউনের গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেন এবং সোমবার রাত থেকে তা কার্যকর করা হয়েছে। 

গণবিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ওই দুই ওয়ার্ডের কোন বাসিন্দা বাড়ির বাইরে যেতে পারবেন না। কারও কোন জরুরি প্রয়োজন হলে ইডনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলায় স্থাপিত কন্ট্রোল রুমে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

দাঁতভাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শামছুল হক জানান, করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হওয়ায় তার ইউনিয়নের ৪ ও ৫ নম্বর ওয়ার্ড লকডাউন ঘোষণা করে গণবিজ্ঞপ্তি জারির পরপর ওই দুই ওয়ার্ডের ৪টি মসজিদের মাইক দিয়ে এই ঘোষণা প্রচার করা হয়। এরপর মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) সকাল ৮ টা থেকে ওই এলাকায় মাইকিং করে এই ঘোষণা প্রচার করা হচ্ছে। ওই দুই ওয়ার্ডে ৭টি গ্রাম রয়েছে। 

রৌমারী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মোঃ দিলওয়ার হাসান ইনাম জানান, লকডাউন কার্যকর করতে নজরদারি জোড়দার করা হয়েছ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আল ইমরান জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এবং তা কার্যকর করা হয়েছে।

এ দিকে সিভিল সার্জন ডা.মোঃ হাবিবুর রহমান জানান, জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৫৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় আনা হয়েছে। এ নিয়ে মঙ্গলবার হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৩১৩ জন। আর মেয়াদ শেষ হওয়ায় ৩৩৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া জেলা থেকে এ পর্যন্ত ১৪৭ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থাপিত পরীক্ষাগারে পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ৪৪ জনের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল এসেছে। তার মধ্যে ৪৩ জনের নেগেটিভ এবং ১ জনের পজিটিভ এসেছে।

                    

আরও পড়ুন

×