কিশোরগঞ্জে কিশোর গ্যাং সাজ্জাদ গ্রুপের প্রধানসহ আটক ১১

প্রকাশ: ১১ অক্টোবর ২০১৯      

কিশোরগঞ্জ অফিস

ছবি: সংগৃহীত

কিশোরগঞ্জ শহরের বত্রিশ বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে কিশোর গ্যাং সাজ্জাদ গ্রুপের প্রধান সাজ্জাদসহ (১৭) কিশোর গ্যাংয়ের ১১ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের সদস্যরা বত্রিশ বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন তাতিপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করেন।

কিশোর গ্যাং সাজ্জাদ গ্রুপের প্রধান সাজ্জাদ ছাড়া আটককৃত অন্যরা হচ্ছে, ফজলে রাব্বি বাধন (১৮), মো. আনোয়ারুল ইসলাম (১৮), আব্দুলাহ আল নোমান (১৬), মো. জুয়েল (১৬), মো. ইয়াছিন ইসলাম (১৮), মো. সানি আহাম্মেদ (১৬), ফজলুল করিম আকাশ (১৯), সৌমিত্র বৈষ্ণব (১৬), হৃদয় দত্ত (১৬) এবং মো. আদনান ইসলাম (১৬)।

তাদের মধ্যে সাজ্জাদ কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার কালিয়াকান্দা গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে। ফজলে রাব্বি বাধন শহরের বত্রিশ এলাকার মো. সুলতানের ছেলে, মো. আনোয়ারুল ইসলাম শহরের বত্রিশ এলাকার মুনসুর আলমের ছেলে, আব্দুলাহ আল নোমান কটিয়াদী উপজেলার গচিহাটার মো. মোজাম্মেল হকের ছেলে, মো. জুয়েল কটিয়াদী উপজেলার করগাঁও গ্রামের মো. আইযুব হাজীর ছেলে, মো. ইয়াছিন ইসলাম শহরের বত্রিশ এলাকার জালাল উদ্দিনের ছেলে, মো. সানি আহাম্মেদ শহরের উকিলপাড়া এলাকার মো. বুলবুল আহম্মেদ এর ছেলে, ফজলুল করিম আকাশ শহরের স্টেশন রোড এলাকার ফজলুল মতিন সিদ্দিকির ছেলে, সৌমিত্র বৈষ্ণব শহরের খরমপট্টি এলাকার সমির বৈষ্ণবের ছেলে, হৃদয় দত্ত শহরের বত্রিশ এলাকার রাখাল দত্তের ছেলে এবং মো. আদনান ইসলাম শহরের বত্রিশ এলাকার মোফাজ্জল ইসলামের ছেলে।

র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের এএসপি মো. মাহবুব-উল-আলম জানান, গত ৭ অক্টোবর কিশোরগঞ্জ শহরের বত্রিশ এলাকায় নতুন পল্লী সংঘ মন্দিরে হিন্দু ধর্মালম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গাপূজার রাত্রিকালীন আরতি চলার সময় কিশোর গ্যাং সাজ্জাদ গ্রুপের প্রধান সাজ্জাদ এবং এই গ্রুপের আটক হওয়া অন্য ১০ সদস্যসহ কিশোর গ্যাং এর কতিপয় সদস্যরা মেয়েদের উত্যক্ত করার মাধ্যমে বিশৃংখলা সৃষ্টি করে। এ সময় শুভ সরকার (১৬), প্রসেনজিৎ ঘোষ (১৭) এবং তনয় বর্মন বিকাশ (১৭) নামের তিন কিশোর বাধা প্রদান করলে তাদের সাথে বাকবিতণ্ডা হয়।

এই ঘটনার জের ধরে  বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে সাজ্জাদ গ্রুপের প্রধান সাজ্জাদসহ অন্যান্য সদস্যরা মিলে শুভ সরকার, প্রসেনজিৎ ঘোষ ও তনয় বর্মন বিকাশকে বিভিন্ন দেশিয় অস্ত্র দ্বারা আঘাত করে গুরুতর জখম করে।

এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১৪, কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের একটি চৌকস আভিযানিক দল আনুমানিক রাত সাড়ে ৮টার দিকে অভিযান পরিচালনা করে সাজ্জাদ গ্রুপের প্রধানসহ এই গ্রুপের মোট ১১ সদস্যকে আটক করে।

বর্তমানে শুভ সরকার কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে এবং প্রসেনজিৎ ঘোষ ও তনয় বর্মন বিকাশ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক হওয়া ১১ কিশোর র‌্যাবকে জানিয়েছে, বত্রিশ এলাকার নতুন পল্লী সংঘ মন্দিরে হিন্দু ধর্মালম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব দুর্গা পূজার রাত্রিকালীন আরতি অনুষ্ঠানে উপস্থিত মেয়েদের উত্যক্ত করাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির জেরে তারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বাক্কার জানান, থানায় হস্তান্তর করার পর তাদের বিচারিক হাকিম আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হবে।