প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে তদবির করলে হাতকড়া: দুদক চেয়ারম্যান

প্রকাশ: ০১ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০১ নভেম্বর ২০১৯      

রাজশাহী ব্যুরো

দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ও বদলিতে তদবির করলে হাতকড়া পড়তে হবে বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

তিনি বলেন, ঘুষ খাওয়া আর তদবির সমান অপরাধ। অনিয়ম একটা দুর্নীতি। সুতরাং শিক্ষক বদলি বা নিয়োগ নিয়ে তদবির করবেন না। তাহলে হাতকড়া পড়তে হবে।

শুক্রবার জেলা পরিষদ মিলনায়তনে দুপুরে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়নের লক্ষে সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণ মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

শিশুদের পড়াশোনার বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, গল্পের ছলে বাচ্চাদের পড়ানো সবচেয়ে ভালো পদ্ধতি। এতে বাচ্চারা শিখবে এবং মনে রাখবে। বাচ্চাদের ভয় দেখিয়ে জয় করা সম্ভব নয়। এটা রাজাদের সময়ে ছিলো। এখন রাজাদের সময় নয়। গল্পের ছলে আদর করে বাচ্চাদের শেখাতে হবে।

জেলা প্রশাসক হামিদুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, প্রাথমিকে নৈতিকতার শিক্ষা দিতে না পারলে জাতি ধ্বংস হয়ে যাবে। প্রাথমিক শিক্ষায় শিশুদের মনে দুর্নীতির বিরুদ্ধে উপদেশ ও শিক্ষা দিতে হবে। প্রাথমিকে যারা সুশিক্ষা পেয়েছে তারা বড় হয়ে দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়ে না। 

তিনি বলেন, নাগরিকের চাপ না থাকলে প্রশাসন বা দুদকও কাজ করবে না। এজন্য সামাজিক চাপ প্রয়োজন। চাপ থাকলে শিক্ষকরাও পড়াবেন। 

নির্বাচনের কাজ ছাড়া অন্য কোনো কাজে প্রাথমিক শিক্ষকদের না জড়ানোর বিষয়ে সরকারের কাছে আবেদন করা হবে বলেও জানান তিনি।

মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম হোসেন, প্রথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এএফএম মনজুর কাদির।