বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসার ‘প্রধান’ আমন্ত্রণ পেলেন না আ’লীগের সম্মেলনে

প্রকাশ: ১২ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ১২ নভেম্বর ২০১৯      

কানাইঘাট (সিলেট) প্রতিনিধি

প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে চেক নেওয়ার সময় জমির উদ্দিন প্রধান -ফাইল ছবি

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে সংগঠনের উপজেলা শাখার প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক জমির উদ্দিন প্রধানকে আমন্ত্রণ না জানানোর অভিযোগ উঠেছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তাকে ভালবেসে ‘প্রধান’ উপাধি দিয়েছিলেন। 

প্রাণের এই সংগঠনের সম্মেলনে আমন্ত্রণ না পেয়ে পঁচাশি বছর বয়সী অসুস্থ এই নেতার হৃদয়ে যেন রক্তক্ষরণ হচ্ছে। সোমবার কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিকী সম্মেলন হয়েছে। জমির উদ্দিন প্রধানের ছেলে তাজুল ইসলাম বিপ্লব এ বিষয়ে ফেসবুকে আবেগঘন একটি স্ট্যাটাস দেন। স্ট্যাটাসটি  ভাইরাল হওয়ার পরই তৃণমূল নেতাকর্মীদের মনে নাড়া দেয়। 

মঙ্গলবার জমির উদ্দিন প্রধান সমকালকে বলেন, কানাইঘাটে ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা করতে অনেক ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছিল। দুর্দিনে জীবন বাজি রেখে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে লালন করে দলের হাল ধরেছিলাম। সারাটা জীবন যে দলের জন্য সংগ্রাম করেছি, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে সেই দলেরই সম্মেলনে আমাকে কেউ স্মরণ করেনি। 

এদিকে প্রবীণ এই রাজনীতিবিদকে আমন্ত্রণ না দেওয়ায় দলের তৃণমূল নেতাকর্মীরা বিভিন্নভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মামুনুর রশীদ বলেন, কানাইঘাটে আওয়ামী লীগের একজন প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে জমির উদ্দিন প্রধানকে সম্মেলনে আমন্ত্রণ জানানো অবশ্যই উচিত ছিল। একজন ত্যাগী নেতাকে এভাবে অবমূল্যায়ন করা দলের জন্য ক্ষতিকর। বছরখানেক আগে জমির উদ্দিন প্রধানের অসুস্থতার খবর পেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উন্নত চিকিৎসার জন্য ২০ লাখ টাকার চেক প্রদান করেন। 

তবে আমন্ত্রণ বিষয়ে কানাইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সভাপতি ও সাবেক আহ্বায়ক লুৎফুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জমির উদ্দিন প্রধানের দাওয়াত কার্ড রাখা ছিল। বিষয়টি তার পরিবারকেও জানানো হয়েছিল। কিন্তু তার পক্ষে কেউ দাওয়াত কার্ডটি গ্রহণ করেননি।